ময়মনসিংহে শিশুশিক্ষার্থীর মৃত্যুতে শিলাঙ্গন হাসপাতাল বন্ধের নির্দেশ

প্রকাশ : ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১:৫১ | অনলাইন সংস্করণ

  ময়মনসিংহ ব্যুরো

নিহত শিশু শিক্ষার্থী রাফিয়া। ছবি: সংগৃহীত

ময়মনসিংহে বেসরকারি ক্লিনিকের  ‘শিলাঙ্গন’ চিকিৎসক ও কর্তৃপক্ষের অবহেলায় প্রগ্রেসিভ স্কুলের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী রাফিয়ার মৃত্যুতে প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ করে দিয়েছেন সিভিল সার্জন কার্যালয়।

সোমবার দুপুরে ওই ক্লিনিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচালক, বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়, জেলা সিভিল সার্জন ও জেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন দফতরে অভিযোগ ও স্মারকলিপি দেয় রাফিয়ার বাবা ব্যবসায়ী ও কথাশিল্পী মাহমুদ বাবু।

এ সময় বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। পরে সন্ধ্যায় সিভিল সার্জনের কার্যালয় থেকে ‘শিলাঙ্গন’ বন্ধের নির্দেশ দেয়া হয়।

জেলা সিভিল সার্জন ডা. আব্দুর রউফ সাংবাদিকদের জানান, মেধাবী ছাত্রী রাফিয়ার মৃত্যু নিয়ে বেসরকারি ক্লিনিক ‘শিলাঙ্গন’ কর্তৃপক্ষ ও চিকিৎসকের বিরুদ্ধে অভিযোগ এসেছে। যে কারণে হাসপাতালটি সাময়িক বন্ধের নির্দেশ দিয়ে চিঠি প্রেরণ করা হয়েছে। তবে ‘শিলাঙ্গন’ কর্তৃপক্ষ হাসপাতালটি বন্ধ না করলে পরবর্তীতে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গত ২৬ আগস্ট শহরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও কথাশিল্পী মাহমুদ বাবুর শিশুকন্যা রাফিয়ার তলপেটে ব্যথা হলে বিকাল ৩টায় জরুরি ভিত্তিতে গাইনি চিকিৎসক ডা. শিলা সেনের কাছে যায় রাফিয়ার বাবা মাহমুদ বাবু।  পরে সন্ধ্যায় রাফিয়াকে ডা. শিলা সেনের ব্যক্তিগত ক্লিনিক শিলাঙ্গনে ভর্তির জন্য বলেন।  

সেখানে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মনির হোসেন ভূঁইয়া নির্দেশে দুই দিনব্যাপী রাফিয়ার নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে ২৮ আগস্ট রাফিয়ার এপেন্ডিসাইডসের রোগ ধরা পড়ে। এরপর ভোর ৬টায় তার অপারেশন হয়। অপারেশনের পর রাফিয়ার অবস্থার অবনতি হলে তাৎক্ষণিক তাকে পাশের একটি ক্লিনিকে আইসিইউতে ভর্তি করে। কিন্তু কিছুক্ষণ পর মৃত ঘোষণা করা হয় তাকে।

এ ঘটনায় গত কয়েক দিন ধরে শহরবাসী ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেসরকারি হাসপাতাল ‘শিলাঙ্গন’ এবং ওই হাসাতালের মালিক ডা. শীলা সেন ও চিকিৎসক ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মনির হোসেন ভূঁইয়াকে নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় বইছে। 

বিশিষ্টজনদের অভিযোগ, নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে অতিরিক্ত পয়সা হাতিয়ে নেয়ার উদ্দেশ্যেই শিশু রাফিয়ার সুচিকিৎসায় কালক্ষেপণ করা হয়েছে।
এর জেরেই ফুঁসে উঠে ময়মনসিংহের সচেতন নাগরিকরা। মেধাবী ছাত্রী রাফিয়ার মৃত্যুর প্রতিবাদে এবং দোষী চিকিৎসক ও ক্লিনিক মালিকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে যৌথভাবে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে মহিলা পরিষদ, উদীচী, যুব ইউনিয়ন, ছাত্র ইউনিয়ন, প্রগতি লেখক সংঘসহ বিভিন্ন সংগঠন।