শরীয়তপুরে স্কুলছাত্রকে তুলে নিয়ে নির্যাতন

  শরীয়তপুর প্রতিনিধি ০৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১:০৪ | অনলাইন সংস্করণ

আহত স্কুলছাত্র শফিকুল ইসলাম

শরীয়তপুর সদর উপজেলার শৌলপাড়ায় শফিকুল ইসলাম নামে এক স্কুলছাত্রকে তুলে নিয়ে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় প্রভাবশালীর বিরুদ্ধে। সদর উপজেলার শৌলপাড়া বাজার থেকে তুলে নিয়ে ওই ছাত্রকে নির্যাতন করা হয়।

আহত শফিকুলকে উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছে স্থানীয়রা। বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল শেষে নির্যাতনকারীর বড়িতে হামলা চালায়। পরে শৌলপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরের শহীদ মিনারে সমাবেশ করে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা।

শৌলপাড়া মনর খান উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র অতুল মাদবর, শওকত খান জানায়, আহত শফিকুল ইসলাম চর-গয়ঘর গ্রামের রিপন বেপারির ছেলে ও শৌলপাড়া মনর খান উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র। বুধবার সকাল ৭টায় বিদ্যালয়ের রাসেল স্যারের কাছে ইংরেজি প্রাইভেট পড়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে রওনা হয়।

জমিসংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে শৌলপাড়া বাজারে পৌঁছামাত্রই শফিকুলকে জোরপূর্বক মোটরসাইকেলে তুলে নেয় স্থানীয় রাজ্জাক খলিফা ও রিপন চোকিদার। পার্শ্ববর্তী ইসমাইল চৌকিদারের বাড়ির পূর্বপাশে নিয়ে পূর্বে থেকে অপেক্ষারত আরও ৮-৯ জন লোকের সহায়তায় তাকে নির্যাতন করে ফেলে রেখে চলে যায়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

আহত ছাত্র শফিকুল ইসলাম বলেন, রাসেল স্যারের কাছে ইংরেজি বিষয় প্রাইভেট পড়ার জন্য স্কুলের দিকে যাচ্ছিলাম। শৌলপাড়া বাজারে যাওয়ামাত্রই রাজ্জাক খলিফা জোর করে একটা মোটরসাইকেলে করে মাঝে বসিয়ে চৌকিদার কান্দি নিয়ে যায়। সেখানে ৮-১০ জন লোকে আমাকে মারধর করে। স্থানীয় লোকজন আমাকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে।

শৌলপাড়া মনর খান উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রাকিব চৌকিদার বলেন, শফিকুলকে সন্ত্রাসীরা অপহরণ করে নির্যাতন করেছে। আমরা শনিবারের মধ্যে বিচার চাই। বিচার না পেলে আমরাই বিচার করব।

আহত শফিকুলের বাবা রিপন বেপারি বলেন, চাচাতো ভাইদের সঙ্গে জমিসংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে স্কুলে যাওয়ার সময় আমার ছেলেকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে রাজ্জাক খলিফা, সিরাজ খলিফা, শাহজাহান খলিফা লোকজন নিয়ে নির্যাতন করেছে। তাদের সঙ্গে আমার কোনো দ্বন্দ্ব নেই। আমি নির্যাতনকারীদের বিচার চাই।

শৌলপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের গ্রামপুলিশ সোহেল বলেন, আমি রাস্তা দিয়ে কলের লাঙল চালিয়ে যাচ্ছিলাম। তখন রাজ্জাক খলিফা ও রিপন চৌকিদার একটা মোটরসাইকেলের মাঝে বসিয়ে শফিকুল ইসলামকে নিয়ে যায়। কিছুক্ষণ পরে শুনতে পাই শফিকুলকে মারধর করেছে।

অভিযুক্ত রাজ্জাক খলিফা বলেন, আমরা মোটরসাইকেল নিয়ে যাচ্ছিলাম। শফিকুল ইচ্ছা করেই বলে আমাকে নিয়ে চলেন। আমরা শফিকুলকে নিয়ে যাচ্ছিলাম। পথিমধ্যে শফিকুল মোটরসাইকেল থেকে লাফ দেয়। তখন ব্যথা পেয়েছে। আমরাও মাটিতে পড়ে আহত হয়েছি।

এ ব্যাপারে শৌলপাড়া মনর খান উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আ. মোতালেফ মিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করে তাকে পাওয়া যায়নি।

পালং মডেল থানার ওসি মনিরুজ্জামান বলেন, এ ঘটনা আমার জানা নেই। কোনো অভিযোগ পাইনি।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter