সংবিধান অনুযায়ী আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন: শিল্পমন্ত্রী

প্রকাশ : ০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২৩:৫৬ | অনলাইন সংস্করণ

  তাহিরপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি

অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিচ্ছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। ছবি-যুগান্তর

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আগামীতেও এগিয়ে যাবে দেশ। সংবিধান অনুযায়ী আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

শনিবার বিকালে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিসিআইসির ট্যাকেরঘাট চুনাপাথর খনি প্রকল্পে শহীদ স্মৃতিসৌধ প্রাঙ্গণে এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, ৭৫ এর আগষ্টে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের হত্যার মধ্যদিয়ে এদেশের মানুষের ভবিষ্যতকে, স্বপ্নকে হত্যা করা হয়েছে। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এ দেশ মধ্য আয়ের দেশে উন্নীত হচ্ছে। ৭১ এর পরাজিত শক্তি এদেশের বিরুদ্ধে বার বার ষড়যন্ত্র করে আসছে। তাদের সঙ্গে একটি অপশক্তি হাত মিলিয়ে জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবেও দেশকে ধ্বংসের ষড়যন্ত্র করছে। কিন্তু আবারও আওয়ামী লীগ জনগণের ভোটে সরকার গঠন করবে।  

আমির হোসেন আমু বলেন, ৭১ এর পরাজিত শক্তি বার বার শেখ হাসিনাকে হত্যার অপচেষ্টা চালিয়েছে, এখনও তারা সক্রিয়। এই শক্তি দেশকে অস্থিতিশীল করতে চায়। অতীতে সেই অপশক্তি নির্বাচন বানচাল করতে ভোট কেন্দ্রে, বাসে আগুন দিয়েছে, রেললাইন উপড়ে ফেলেছিল, মানুষ হত্যা করেছিল কিন্তু তারা সে দিন নির্বাচন বানচাল করতে ব্যর্থ হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, উন্নয়ন পেতে হলে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে শেখ হাসিনাকে আবারও ক্ষমতায় আনতে হবে। আগামীতেও শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এদেশ এগিয়ে যাবে। একদিকে পদ্মা সেতু, অন্যদিকে পায়রা সমুদ্র বন্দর হলে এ দেশ হবে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সবচেয়ে বড় শিল্পাঞ্চল। 

তিনি বলেন, থাইল্যান্ড, চীনসহ বিশ্বের অনেকগুলো দেশ বাংলাদেশে বিনিয়োগ ব্যবসা বাণিজ্য করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। সরকার বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা, বয়স্ক ভাতাসহ বিভিন্ন ভাতা দিয়ে যাচ্ছে। 

বাংলার মানুষের উপরে আমাদের বিশ্বাস আছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমরা জানি বাংলার  মানুষ যে উন্নয়নের ছোঁয়া পেয়েছে, বাংলার মানুষ শিক্ষার আলো পেয়েছে, স্বাস্থ্যের অধিকার পেয়েছে, সে জন্য তারা শেখ হাসিনার পেছনে ঐক্যবদ্ধ। তাই অতীতের মত কোনো অপশক্তি এই উন্নয়নের ধারাকে ব্যহত করতে পারবে না। 

শিল্পমন্ত্রী স্থানীয় এলাকার উন্নয়ন প্রসঙ্গে বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলেন, এখানকার লোকজনের দীর্ঘদিনের দাবির প্রেক্ষিতে বিসিআইসির ট্যাকেরঘাট চুনাপাথর খনি প্রকল্পের পতিত ভূমিতে একটি মিনি সিমেন্ট ফ্যাক্টরি নির্মাণে এবং এলাকার নৃ-তাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর আর্থ সামাজিক ও জীবনযাত্রার মান উন্নয়নের একটি কুটির শিল্প গড়ে তোলার ব্যাপারে আমি সর্বাত্বক চেষ্টা চালিয়ে যাব। 

জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ আবুল হোসেন খানের সভাপতিত্বে সমাবেশে উপজেলার মুক্তিযোদ্ধাগণ, ব্যবসায়ী সমাজের নেতৃবৃন্দ ছাড়াও উপজেলা এবং জেলা পর্যায়ের আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দসহ কয়েক হাজার লোকজন উপস্থিত ছিলেন।

সমাবেশের পূর্বে তিনি বন্ধ হয়ে পড়ে থাকা বিসিআইসির ট্যাকেরঘাট চুনাপাথর খনি প্রকল্প এলাকা পরিদর্শন করেন।