গাজীপুরে বিএনপির মানববন্ধনে পুলিশের লাঠিচার্জ, আটক-৯

প্রকাশ : ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১:৪১ | অনলাইন সংস্করণ

  গাজীপুর প্রতিনিধি

ছবি: যুগান্তর

কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে গাজীপুর মহানগর ও জেলা বিএনপির উদ্যোগে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে পুলিশের লাঠিচার্জ ও টিআর শেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় পুলিশের লাঠিপেটায় জেলা মহিলা দলের সাবেক সভানেত্রী আনোয়ারা বেগমসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে।  আহতদের বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। 

সোমবার সকালে শহরের রাজবাড়ি সড়কের বিএনপি অফিসের সামনে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। 

গাজীপুর জেলা বিএনপির সভাপতি একেএম ফজলুল হক মিলনের সভাপতিত্বে যুগ্ম সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন সবুজ ও পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর হান্নান মিয়া হান্নুর সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন গাজীপুর মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক শিল্পপতি মো. সোহরাব উদ্দিন, বিএনপির কেন্দ্রীয় শ্রমবিষয়ক সম্পাদক হুমায়ূন কবির খান, কেন্দ্রীয় সদস্য ডা. মাজহারুল আলম, শাহ রিয়াজুল হান্নান, বিএনপি নেতা মীর হালিমুজ্জামান ননী, আহাম্মদ আলী রুশদী, কাজী মাহবুব উল হক গোলাপ, অ্যাডভোকেট মেহেদী হাসান এলিস, সাখাওয়াত হোসেন সেলিম, ভিপি আশরাফ হোসেন টুলু, শওকত হোসেন সরকার, আনোয়ারুল ইসলাম, বশির আহাম্মেদ বাচ্চু, ভিপি জয়নাল আবেদীন তালুকদার, হুমায়ূন কবির রাজু, হাসান আজমল ভূইয়া, নাহিন আহাম্মেদ মমতাজি, জিএস নাসিমুল ইসলাম মনির, আ ক ম মোফাজ্জল হোসেন, সাজ্জাদুর রহমান মামুন, হাজী মাসুদুর রহমান, যুবদল নেতা প্রভাষক বশির উদ্দিন, মনিরুল ইসলাম মনির, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা আরিফ হোসেন হাওলাদার, শাহাদাত হোসেন শাহিন, ছাত্রদল নেতা জাহাঙ্গীর আলম, সম্রাট ভূইয়া প্রমুখ। 

গাজীপুর মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক শিল্পপতি মো. সোহরাব উদ্দিন জানান, বিএনপির কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে আমাদের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মীদের নিয়ে আমরা বিএনপি কার্যালয়ের সামনে শান্তিপূর্ণভাবে মানববন্ধন করছিলাম।  মানবন্ধনের শেষ মুহূর্তে সভাপতির বক্তব্যের পূর্বে হঠাৎ করে পূর্ব দিক থেকে একদল পুলিশ ফাঁকা গুলি করে মানববন্ধনে অংশ নেয়া নেতাকর্মীদের ওপর অতর্কিত লাঠিপেটা শুরু করে।  মুহূর্তেই নেতাকর্মীরা দিগ্বিদিক ছোটাছুটি করতে থাকে। এ সময় নগরবাসী ও পথচারীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। 

পুলিশ প্রয়াত ব্রিগে. আসম হান্নান শাহের ছেলে শাহ রিয়াজুল হান্নান ও সিটি কাউন্সিলর হান্নান মিয়া হান্নুসহ বেশ কয়েকজন নেতাকর্মীকে তুলে নিয়ে যায়।  

গাজীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাসেল শেখ জানান, ওই ঘটনায় পুলিশ ৯ জনকে আটক  করা হয়েছে। আটককৃতদের মধ্যে শাহ রিয়াজুল হান্নান ও সিটি কাউন্সিলর হান্নান মিয়া হান্নুসহ বাকিদের ভিডিও ফুটেজ দেখে যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। দায়ীদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে।