কুষ্টিয়া-১: আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী তারিক আল মামুন

  যুগান্তর ডেস্ক ১১ অক্টোবর ২০১৮, ০৭:৩৯ | অনলাইন সংস্করণ

কুষ্টিয়া-১: আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী তারিক আল মামুন
কুষ্টিয়া-১: আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী তারিক আল মামুন

আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৭৫, কুষ্টিয়া-১ (দৌলতপুর) সংসদীয় আসনে আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কার্যনির্বাহী সংসদের সাবেক সহ-সভাপতি তারিক আল মামুন।

ছাত্রলীগের রাজনীতি নিয়ে উঠে আসা এ তরুণ মেধাবী নেতা পারিবারিকভাবেও আওয়ামী লীগ পরিবারের সন্তান। সেরা সংগঠক ও গণ-মানুষের নেতা তারিক আল মামুন বিভিন্ন শ্রেণী-পেশা ও দলমত নির্বিশেষে সকলের কাছে দোয়া, সমর্থন ও সহযোগীতা চেয়েছেন।

তিনি আওয়ামী লীগের মনেনয়ন ও সমর্থনে সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার ইচ্ছে প্রকাশ করে নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন। ইতিমধ্যে আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারক পর্যায়ের দায়িত্বশীল একাধিক নেতা তাকে সবুজ সঙ্কেত দিয়ে মাঠে নামার নির্দেশনা দিয়েছেন বলেও রাজনৈতিক অঙ্গনে আলোচনা রয়েছে।

জানা গেছে, এই তরুণ আওয়ামী লীগ নেতা সাধারণ মানুষের আস্থার প্রতীক তারিক আল মামুন ছাত্র জীবনেই বঙ্গবন্ধুর আর্দশে অনুপ্রাণিত হয়ে ছাত্রলীগের রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন এবং এই নেতা বর্তমানে আওয়ামীলীগের ত্রাণ সমাজ কল্যাণ উপ-কমিটির সদস্য পদে দায়িত্ব পালন করে চলেছেন।

কুষ্টিয়া-১ (দৌলতপুর) আসনের নির্বাচনী এলাকায় বিভিন্ন উন্নয়ন, সমাজ সেবা, ক্রীড়া ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে দীর্ঘদিন ধরে তিনি নিজেকে সম্পৃক্ত রেখে চলেছেন। ফলে নির্বাচনী এলাকা জুড়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে তার একটা পরিচ্ছন্ন ও নিজ্বস্ব ব্যক্তি ইমেজ তৈরি হয়েছে।

প্রচার-প্রচারণা ও উঠান বৈঠকে তিনি নির্বাচনী এলাকার জনসাধারণের কাছে বলেন, তিনি মনোনয়ন প্রত্যাশা করে উন্নয়নের প্রতীক নৌকার পক্ষে ভোট চাইতে এসেছেন। তিনি সকলে নৌকা প্রতিকে ভোট দেয়ার আহবান জানান।

এছাড়াও তিনি অঙ্গীকার প্রকাশ করে বলেন, আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেলে বিজয়ী হবেন এবং তিনি তার সকল যোগ্যতা ও দক্ষতা দিয়ে নির্বাচনী এলাকার অবহেলিত জনগণের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কাজ করবেন।

তিনি বলেন, তার প্রথম ভাই যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা, অবসরপ্রাপ্ত উপ মহাব্যবস্থাপক-মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট, সদস্য জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই কমিটি মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়। দ্বিতীয় ভাই পরপর তিনবার ইউপি চেয়ারম্যান বিজয়ী হয়েছেন।

দলীয় সমর্থন নিয়ে নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে বর্তমানে উপজেলা চেয়ারম্যানের ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক দায়িত্ব পালন করে চলেছেন। তৃতীয় ভাই সহ-সভাপতি বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ (কুষ্টিয়া, দৌলতপুর উপজেলা শাখা) দায়িত্ব পালন করে চলেছেন। তার আরেক ভাতিজা সহ-সভাপতি বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (কুষ্টিয়া জেলা শাখা) দায়িত্ব পালন করে চলেছেন।

তিনি বলেন, সাধারণ জনগণ সব সময় তাদের সঙ্গে ছিল, আছে এবং আগামীদিনেও থাকবে ইনশাল্লাহ। তাই মূত্যুর আগে তিনি নির্বাচনী এলাকার সাধারণ মানুষের জন্য এমন একটা কিছু করে যেতে চান যেন মৃত্যুর পরেও তার করে যাওয়া কাজের মাধ্যমে মানুষ তাকে স্মরণ করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ইংরেজি বিভাগের মেধাবী ছাত্র (বি.এ অনার্স, এম.এ ইংরেজি বিভাগ)। আওয়ামী লীগ নেতা তারিক আল মামুন জন্ম একটি সম্ভ্রান্ত মুসলিম মুক্তিযোদ্ধা-রাজনৈতিক পরিবারে হওয়ায় নির্বাচনী এলাকায় তার ব্যাপক সামাজিক পরিচিতি রয়েছে।

ছাত্র জীবন থেকেই তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে সম্পৃক্ত। আওয়ামী লীগের জাতীয় পর্যায়ে অনেক নেতৃবৃন্দের সঙ্গে তার রয়েছে গভীর ও নিবিড় সম্পর্ক। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচনী এলাকার মধ্যঅঞ্চল থেকে তিনিই একমাত্র প্রার্থী হওয়ার দৌড়ে রয়েছেন।

জানা গেছে, নির্বাচনী এলাকায় যতটুকু উন্নয়ন হয়েছে তাতে কোনো না কোনো অবদান রয়েছে তারিক আল মামুনের পরিবারের। এ ছাড়াও ক্লিনম্যান হিসেবে দলমত নির্বিশেষে সকলের কাছে তার ব্যাপক পরিচিতি রয়েছে। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আলমে দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযানে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরা এলাকা ছাড়া হলেও একমাত্র তারিক আল মামুন ছিলেন এলাকায়।

এই বিষয়টিও বিবেচনায় নিয়ে নির্বাচনী এলাকার সাধারণ মানুষ তাকে তাদের প্রতিনিধি করতে উৎসাহী হয়ে উঠেছে।

এছাড়াও তারিক আল মামুনের পরিবার থেকে ইউপি চেয়ারম্যান, উপজেলা চেয়ারম্যান এবং আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতা হিসেবে তার পরিবারের সদস্যরা প্রতিটি ক্ষেত্রে নির্বাচিত হয়ে নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন দীর্ঘদিন ধরে সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে। আর তাই এই অঞ্চলের সাধারণ মানুষের একটিই দাবি এবার তারা তার পরিবার থেকে এমপি দেখতে চাই। ফলে তারিক আল মামুনকে নিয়ে সাধারণের আগ্রহের কোনো শেষ নাই।

এ ব্যাপারে তারিক আল মামুন বলেন, তিনি এবার মনোনয়ন প্রত্যাশা করে উন্নয়নের প্রতীক নৌকার জন্য ভোট চাইছেন। তিনি বলেন, দলের দুরদিনে মাঠে ছিলাম। ওয়ান ইলেভেনের সরকারের সময় নেত্রীর মুক্তির দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে মিছিলে একাধিক বার পুলিশের নির্যাতনের শিকার হয়েছি।

তিনি বলেন, যে কেউ মনোনয়ন চাইতেই পারে তবে দল থেকে যাকেই মনোনয়ন দেয়া হবে তিনি তার পক্ষে কাজ করার জন্য সকল নেতা ও কর্মী-সমর্থকদের প্রতি আহবান জানান। তিনি আরও বলেন, মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচিত হলে তিনি নির্বাচনী এলাকাবাসিকে সঙ্গে নিয়ে শিক্ষা বিস্তার, মাদক মুক্ত, শতভাগ স্যানিটেন, বিশুদ্ধ খাবার পানির সুব্যবস্থা ও সকলের সমঅধিকার নিয়ে কাজ করবেন।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter