জনসমাগম ঘটিয়ে মেয়ের বিয়ে দেয়া সেই সিভিল সার্জন ওএসডি
jugantor
জনসমাগম ঘটিয়ে মেয়ের বিয়ে দেয়া সেই সিভিল সার্জন ওএসডি

  ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি  

২৩ মার্চ ২০২০, ২৩:০০:৩১  |  অনলাইন সংস্করণ

ডা. মো. শাহ আলম

সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জনসমাগম ঘটিয়ে মেয়ের বিয়ে দেয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিতর্কিত সিভিল সার্জন ডা. মো. শাহ আলমকে স্বাস্থ্য অধিদফতরের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে ওএসডি করা হয়েছে।

রোববার রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব শারমিন আক্তার জাহান স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে তাকে ওএসডি করা হয়। বিষয়টি সোমবার দুপুরের পর স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীরা জানতে পারে।

একই প্রজ্ঞাপনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নতুন সিভিল সার্জন হিসেবে স্বাস্থ্য অধিদফতরের সহকারী পরিচালক ডা. মোহাম্মদ একরাম উল্লাহকে পদায়ন করা হয়েছে।

এর আগে গত ২০ মার্চ ব্যাপক জনসমাগম ঘটিয়ে নিজের দন্ত চিকিৎসক মেয়ের বিয়ে দেন সিভিল সার্জন। সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সরকারি বাসভবনে বিয়ের অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। এতে তিন শতাধিক অতিথিকে আমন্ত্রণ করা হয়।

এর ফলে দায়িত্বশীল পদে থেকে বর্তমান প্রেক্ষাপটে সরকারি নির্দেশনা না মেনে বিয়ের অনুষ্ঠান আয়োজন করায় সমালোচনার ঝড় উঠে সিভিল সার্জন শাহ আলমকে নিয়ে।

তবে ব্যাপক জনসমাগম ঘটানোর বিষয়টি অস্বীকার করে ঘরোয়া পরিবেশে মেয়ের দিয়েছেন বলে দাবি করেন সাবেক এই সিভিল সার্জন ডা. শাহ আলম।

এর আগে ৩১ ডিসেম্বর রাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতাল চত্বরে আতশবাজি ও গান বাজনা করে সারা দেশে আলোচনার কেন্দ্র বিন্দু ছিল এই চিকিৎসক। তখনও সমালোচনার মুখে পড়ে ছিলেন তিনি।

এদিকে বিতর্কিত এই সিভিল সার্জন ডা. মো. শাহ আলম বদলি আদেশ ঠেকাতে প্রভাবশালীদের নাম ব্যবহার করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

জনসমাগম ঘটিয়ে মেয়ের বিয়ে দেয়া সেই সিভিল সার্জন ওএসডি

 ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি 
২৩ মার্চ ২০২০, ১১:০০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ডা. মো. শাহ আলম
ডা. মো. শাহ আলম। ফাইল ছবি

সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জনসমাগম ঘটিয়ে মেয়ের বিয়ে দেয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিতর্কিত সিভিল সার্জন ডা. মো. শাহ আলমকে স্বাস্থ্য অধিদফতরের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে ওএসডি করা হয়েছে।

রোববার রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব শারমিন আক্তার জাহান স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে তাকে ওএসডি করা হয়। বিষয়টি সোমবার দুপুরের পর স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীরা জানতে পারে।

একই প্রজ্ঞাপনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নতুন সিভিল সার্জন হিসেবে স্বাস্থ্য অধিদফতরের সহকারী পরিচালক ডা. মোহাম্মদ একরাম উল্লাহকে পদায়ন করা হয়েছে।

এর আগে গত ২০ মার্চ ব্যাপক জনসমাগম ঘটিয়ে নিজের দন্ত চিকিৎসক মেয়ের বিয়ে দেন সিভিল সার্জন। সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সরকারি বাসভবনে বিয়ের অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। এতে তিন শতাধিক অতিথিকে আমন্ত্রণ করা হয়।

এর ফলে দায়িত্বশীল পদে থেকে বর্তমান প্রেক্ষাপটে সরকারি নির্দেশনা না মেনে বিয়ের অনুষ্ঠান আয়োজন করায় সমালোচনার ঝড় উঠে সিভিল সার্জন শাহ আলমকে নিয়ে।

তবে ব্যাপক জনসমাগম ঘটানোর বিষয়টি অস্বীকার করে ঘরোয়া পরিবেশে মেয়ের দিয়েছেন বলে দাবি করেন সাবেক এই সিভিল সার্জন ডা. শাহ আলম।

এর আগে ৩১ ডিসেম্বর রাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতাল চত্বরে আতশবাজি ও গান বাজনা করে সারা দেশে আলোচনার কেন্দ্র বিন্দু ছিল এই চিকিৎসক। তখনও সমালোচনার মুখে পড়ে ছিলেন তিনি।

এদিকে বিতর্কিত এই সিভিল সার্জন ডা. মো. শাহ আলম বদলি আদেশ ঠেকাতে প্রভাবশালীদের নাম ব্যবহার করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১
১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১