কেন্দুয়ায় তিন শতাধিক মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ
jugantor
কেন্দুয়ায় তিন শতাধিক মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ

  কেন্দুয়া (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি  

২৯ মার্চ ২০২০, ২৩:৫১:১২  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনাভাইরাসের কারণে নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলায় গৃহবন্দি দিন কাটাচ্ছেন সাধারণ মানুষ। এতে কর্মহীন হয়ে পড়েছে ভিক্ষুক, দিনমজুর ও খেটে খাওয়া হতদরিদ্র মানুষজন।

কর্মহীন হয়ে পড়া ওইসব গরিব পরিবারের লোকজন খাদ্যাভাবে ভুগছে। এ অবস্থায় কর্মহীন গরিব এ সব মানুষের সহযোগিতায় এগিয়ে এসেছে কল্যাণী যুব ফাউন্ডেশন।

রোববার দুপুরে কেন্দুয়া পৌর শহরের সাউদপাড়া এলাকায় কল্যাণী ফাউন্ডেশনের কার্যালয় প্রাঙ্গণে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে তিন শতাধিক কর্মহীন গরিব নারী-পুরুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী তুলে দেন সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান কল্যাণী হাসান।

তিন শতাধিক কর্মহীন মানুষের প্রত্যেককে তিন কেজি চাল, ১ কেজি আলু ও আধা কেজি করে ডাল বিতরণ করেন। এ সময় তিনি তাদের হাতে স্বাস্থ্য সুরক্ষা উপকরণও তুলে দেয়া হয়।

এর আগে গত শনিবার বিকালে কেন্দুয়া পৌর শহরের সাউদপাড়া গ্রামের বিভিন্ন বাড়িতে গিয়ে কল্যাণী ফাউন্ডেশনের কর্মীরা খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন।

এ ছাড়া গত শুক্রবার পৌর শহরের দিগদাইর, বৃহস্পতিবার আইথর ও বুধবার দিনব্যাপী ভাটিরকোণা গ্রামের বাড়ি বাড়ি গিয়ে সহস্রাধিক সাধারণ মানুষের মাঝে নিজেদের তৈরি মাস্ক ও জীবাণুনাশক সাবান বিতরণ করা হয়।

খাদ্যসামগ্রী পাওয়া সাউদপাড়া গ্রামের হতদরিদ্র বৃদ্ধা নীলবানু আক্তার জানান, করোনাভাইরাসের জন্য আমরা ঘরে আছি। বাইরে যাওয়া নিষেধ। আমরা গরিব মানুষ। দিন আনি দিন খাই। ঘরে খাওন নাই। কেউ খোঁজ-খবর নেয় না। কল্যাণী আমাদের কিছু চাল, ডাল ও আলু দিয়েছে।

এ বিষয়ে কল্যাণী ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান কল্যাণী হাসান বলেন, আর্ত-মানবতার ব্রতকে পুঁজি করেই কল্যাণী ফাউন্ডেশনের জন্ম। আমরা সব সময় সমাজের সুবিধাবঞ্চিত মানুষের সেবায় কাজ করে যাচ্ছি এবং দেশের যে কোনো দুর্যোগ বা বিপর্যয়ে অসহায় লোকজনের কল্যাণে কাজ করছে এ ফাউন্ডেশন। এরই ধারাবাহিকতায় করোনা প্রতিরোধে আমরা নিরলসভাবে কাজ করছি।

করোনা প্রতিরোধে সচেতনতা বৃদ্ধিতে প্রচারণাসহ কর্মহীন গরিব মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলেও তিনি জানান।

কেন্দুয়ায় তিন শতাধিক মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ

 কেন্দুয়া (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি 
২৯ মার্চ ২০২০, ১১:৫১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনাভাইরাসের কারণে নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলায় গৃহবন্দি দিন কাটাচ্ছেন সাধারণ মানুষ। এতে কর্মহীন হয়ে পড়েছে ভিক্ষুক, দিনমজুর ও খেটে খাওয়া হতদরিদ্র মানুষজন।

কর্মহীন হয়ে পড়া ওইসব গরিব পরিবারের লোকজন খাদ্যাভাবে ভুগছে। এ অবস্থায় কর্মহীন গরিব এ সব মানুষের সহযোগিতায় এগিয়ে এসেছে কল্যাণী যুব ফাউন্ডেশন।

রোববার দুপুরে কেন্দুয়া পৌর শহরের সাউদপাড়া এলাকায় কল্যাণী ফাউন্ডেশনের কার্যালয় প্রাঙ্গণে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে তিন শতাধিক কর্মহীন গরিব নারী-পুরুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী তুলে দেন সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান কল্যাণী হাসান।

তিন শতাধিক কর্মহীন মানুষের প্রত্যেককে তিন কেজি চাল, ১ কেজি আলু ও আধা কেজি করে ডাল বিতরণ করেন। এ সময় তিনি তাদের হাতে স্বাস্থ্য সুরক্ষা উপকরণও তুলে দেয়া হয়।

এর আগে গত শনিবার বিকালে কেন্দুয়া পৌর শহরের সাউদপাড়া গ্রামের বিভিন্ন বাড়িতে গিয়ে কল্যাণী ফাউন্ডেশনের কর্মীরা খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন।

এ ছাড়া গত শুক্রবার পৌর শহরের দিগদাইর, বৃহস্পতিবার আইথর ও বুধবার দিনব্যাপী ভাটিরকোণা গ্রামের বাড়ি বাড়ি গিয়ে সহস্রাধিক সাধারণ মানুষের মাঝে নিজেদের তৈরি মাস্ক ও জীবাণুনাশক সাবান বিতরণ করা হয়।

খাদ্যসামগ্রী পাওয়া সাউদপাড়া গ্রামের হতদরিদ্র বৃদ্ধা নীলবানু আক্তার জানান, করোনাভাইরাসের জন্য আমরা ঘরে আছি। বাইরে যাওয়া নিষেধ। আমরা গরিব মানুষ। দিন আনি দিন খাই। ঘরে খাওন নাই। কেউ খোঁজ-খবর নেয় না। কল্যাণী আমাদের কিছু চাল, ডাল ও আলু দিয়েছে।

এ বিষয়ে কল্যাণী ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান কল্যাণী হাসান বলেন, আর্ত-মানবতার ব্রতকে পুঁজি করেই কল্যাণী ফাউন্ডেশনের জন্ম। আমরা সব সময় সমাজের সুবিধাবঞ্চিত মানুষের সেবায় কাজ করে যাচ্ছি এবং দেশের যে কোনো দুর্যোগ বা বিপর্যয়ে অসহায় লোকজনের কল্যাণে কাজ করছে এ ফাউন্ডেশন। এরই ধারাবাহিকতায় করোনা প্রতিরোধে আমরা নিরলসভাবে কাজ করছি।

করোনা প্রতিরোধে সচেতনতা বৃদ্ধিতে প্রচারণাসহ কর্মহীন গরিব মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলেও তিনি জানান।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস