ছুটিতেও নিয়মিত ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী
jugantor
ছুটিতেও নিয়মিত ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী

  যুগান্তর রিপোর্ট  

৩১ মার্চ ২০২০, ০১:১৪:৩৪  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনাভাইরাস মোকাবেলায় সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটির মধ্যেও সচিবালয়ে সার্বক্ষণিক অফিস করছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান।

প্রয়োজনীয় ত্রাণ ও নগদ টাকা ছাড়সহ সারাদেশের জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছেন প্রতিমন্ত্রী ও মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. শাহ কামাল।

তাদের সঙ্গে অফিস করছেন মন্ত্রণালয়ের অন্যান্য কর্মকর্তারাও। পর্যায়ক্রমে ডিউটি করছেন তারা। বিষয়টি যুগান্তরকে নিশ্চিত করেছেন প্রতিমন্ত্রী একান্ত সচিব (পিএস) খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমান।

জানা গেছে, করোনাভাইরাসের কারণে গত ২৬ মার্চ থেকে দেশের অফিস আদালতে ১০ দিনের ছুটি শুরু হয়েছে। অঘোষিত লকডাউনে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন শহর ও গ্রামে কর্মহীন হয়েছেন লাখ লাখ মানুষ। এসব কর্মহীন মানুষকে সহায়তা দিতে নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী গতকালও আমাদের টেলিফোনে নির্দেশ দিয়েছেন যে, এই লকডাউনে কোনো রিকশাচালক, ভ্যানচালক, ফেরিওয়ালা, চা বিক্রেতা, দিনমজুর কেউ যেন খাদ্যকষ্টে না ভোগে। সবার পাশে যেন প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি ও দলের নেতাকর্মীরা খাদ্য নিয়ে হাজির হন।

তিনি (প্রধানমন্ত্রী) নির্দেশনা দিয়েছেন এই কর্মসূচি যেন আমরা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে বাস্তবায়ন করি। আমরা গত ২৪ মার্চ ২৪ হাজার ৭০০ টন চাল এবং ৭ কোটি ৫৮ লাখ টাকা বরাদ্দ দেই। এ বিষয়ে আমরা জেলা প্রশাসকদের মনিটরিং করি।

২৮ মার্চ তারা জানিয়েছেন, তাদের কর্মকাণ্ড চলছে, তাদের চাল এবং টাকা প্রায় ফুরিয়ে আসছে। এটা জানার পর আমরা ২৮ মার্চ আবার সাড়ে ৬ হাজার টন চাল ও এক কোটি ৩১ লাখ টাকা নতুন করে বরাদ্দ দিয়েছি।

রোববার রাত ৮টার পর থেকে জেলা প্রশাসকদের কাছ থেকে মেইল এসেছে, এছাড়া আমাদের মন্ত্রী, সংসদ সদস্যরা জানিয়েছেন- মজুদ প্রায় ফুরিয়ে আসছে। সেই প্রেক্ষাপটে আমরা নতুন করে সব জেলায় চাল ও নগদ অর্থ বরাদ্দ দেব।’

ছুটিতেও নিয়মিত ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী

 যুগান্তর রিপোর্ট 
৩১ মার্চ ২০২০, ০১:১৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনাভাইরাস মোকাবেলায় সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটির মধ্যেও সচিবালয়ে সার্বক্ষণিক অফিস করছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান। 

প্রয়োজনীয় ত্রাণ ও নগদ টাকা ছাড়সহ সারাদেশের জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছেন প্রতিমন্ত্রী ও মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. শাহ কামাল। 

তাদের সঙ্গে অফিস করছেন মন্ত্রণালয়ের অন্যান্য কর্মকর্তারাও। পর্যায়ক্রমে ডিউটি করছেন তারা। বিষয়টি যুগান্তরকে নিশ্চিত করেছেন প্রতিমন্ত্রী একান্ত সচিব (পিএস) খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমান।

জানা গেছে, করোনাভাইরাসের কারণে গত ২৬ মার্চ থেকে দেশের অফিস আদালতে ১০ দিনের ছুটি শুরু হয়েছে। অঘোষিত লকডাউনে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন শহর ও গ্রামে কর্মহীন হয়েছেন লাখ লাখ মানুষ। এসব কর্মহীন মানুষকে সহায়তা দিতে নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী গতকালও আমাদের টেলিফোনে নির্দেশ দিয়েছেন যে, এই লকডাউনে কোনো রিকশাচালক, ভ্যানচালক, ফেরিওয়ালা, চা বিক্রেতা, দিনমজুর কেউ যেন খাদ্যকষ্টে না ভোগে। সবার পাশে যেন প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি ও দলের নেতাকর্মীরা খাদ্য নিয়ে হাজির হন। 

তিনি (প্রধানমন্ত্রী) নির্দেশনা দিয়েছেন এই কর্মসূচি যেন আমরা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে বাস্তবায়ন করি। আমরা গত ২৪ মার্চ ২৪ হাজার ৭০০ টন চাল এবং ৭ কোটি ৫৮ লাখ টাকা বরাদ্দ দেই। এ বিষয়ে আমরা জেলা প্রশাসকদের মনিটরিং করি।

২৮ মার্চ তারা জানিয়েছেন, তাদের কর্মকাণ্ড চলছে, তাদের চাল এবং টাকা প্রায় ফুরিয়ে আসছে। এটা জানার পর আমরা ২৮ মার্চ আবার সাড়ে ৬ হাজার টন চাল ও এক কোটি ৩১ লাখ টাকা নতুন করে বরাদ্দ দিয়েছি। 

রোববার রাত ৮টার পর থেকে জেলা প্রশাসকদের কাছ থেকে মেইল এসেছে, এছাড়া আমাদের মন্ত্রী, সংসদ সদস্যরা জানিয়েছেন- মজুদ প্রায় ফুরিয়ে আসছে। সেই প্রেক্ষাপটে আমরা নতুন করে সব জেলায় চাল ও নগদ অর্থ বরাদ্দ দেব।’

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস