মেহেরপুরে করোনা উপসর্গে নৌসেনার মৃত্যু, শ্বশুরবাড়ি লকডাউন
jugantor
মেহেরপুরে করোনা উপসর্গে নৌসেনার মৃত্যু, শ্বশুরবাড়ি লকডাউন

  মেহেরপুর প্রতিনিধি  

০৩ এপ্রিল ২০২০, ১১:০২:৩১  |  অনলাইন সংস্করণ

মেহেরপুর সদর উপজেলায় শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে এসে নাজমুল সালেহীন (৩৫) নামের নৌবাহিনীর এক সদস্য মারা গেছেন।

বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

করোনার উপসর্গ নিয়ে ওই নৌ সদস্যের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

এদিকে নাজমুল সালেহীনের মৃত্যুর পর তার শ্বশুরবাড়ি লকডাউন ঘোষণা করেছে স্থানীয় প্রশাসন।

নাজমুল সালেহীনের বাড়ি চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার ফরিদপুর গ্রামে। তিনি ওই এলাকার আবদুর রহমানের ছেলে।

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটির মধ্যেই সম্প্রতি পরিবার নিয়ে মেহেরপুর সদর উপজেলার কোলাগ্রামের বাবুপাড়ায় শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে আসেন নাজমুল সালেহীন।

তার শ্বশুর খোকন আলী জানান, তাদের জামাই ৬ মাস আগে বিদেশ থেকে মিশন শেষ করে বাড়ি এসেছেন। কয়েক দিন আগে তার বাড়িতে বেড়াতে আসে।

তিনি জানান, নাজমুল সালেহীনের আগে থেকে লিভারের অসুখ ছিল। বৃহস্পতিবার কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হলে ওই রাতেই মারা যান তিনি।

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের আরএমও তাপস কুমার জানান, বৃহস্পতিবার রাতে মেহেরপুর থেকে নৌবাহিনীর এক সদস্য জ্বর, কাশির উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে আসেন। আমরা তাকে ভর্তি না নিয়ে বাড়িতে চিকিৎসা নেয়ার কথা জানাই। পরে তার মৃত্যু হয়। শুক্রবার ময়নাতদন্ত শেষে লাশ হস্তান্তর করা হবে।

মেহেরপুর সদর থানার ওসি শাহ দারা খান জানান, আমরা ওই নৌ সদস্যের মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর তার শ্বশুরবাড়িতে পুলিশ পাঠিয়েছি। সেই বাড়িতে লাল পতাকা টাঙিয়ে লকডাউন ঘোষণা করেছি।

মেহেরপুরে করোনা উপসর্গে নৌসেনার মৃত্যু, শ্বশুরবাড়ি লকডাউন

 মেহেরপুর প্রতিনিধি 
০৩ এপ্রিল ২০২০, ১১:০২ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মেহেরপুর সদর উপজেলায় শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে এসে নাজমুল সালেহীন (৩৫) নামের নৌবাহিনীর এক সদস্য মারা গেছেন।

বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। 

করোনার উপসর্গ নিয়ে ওই নৌ সদস্যের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক। 

এদিকে নাজমুল সালেহীনের মৃত্যুর পর তার শ্বশুরবাড়ি লকডাউন ঘোষণা করেছে স্থানীয় প্রশাসন। 

নাজমুল সালেহীনের বাড়ি চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার ফরিদপুর গ্রামে। তিনি ওই এলাকার আবদুর রহমানের ছেলে।
 
করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটির মধ্যেই সম্প্রতি পরিবার নিয়ে মেহেরপুর সদর উপজেলার কোলাগ্রামের বাবুপাড়ায় শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে আসেন নাজমুল সালেহীন।  

তার শ্বশুর খোকন আলী জানান, তাদের জামাই ৬ মাস আগে বিদেশ থেকে মিশন শেষ করে বাড়ি এসেছেন।  কয়েক দিন আগে তার বাড়িতে বেড়াতে আসে। 

তিনি জানান, নাজমুল সালেহীনের আগে থেকে লিভারের অসুখ ছিল। বৃহস্পতিবার কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হলে ওই রাতেই মারা যান তিনি।

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের আরএমও তাপস কুমার জানান, বৃহস্পতিবার রাতে মেহেরপুর থেকে নৌবাহিনীর এক সদস্য জ্বর, কাশির উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে আসেন।  আমরা তাকে ভর্তি না নিয়ে বাড়িতে চিকিৎসা নেয়ার কথা জানাই। পরে তার মৃত্যু হয়।  শুক্রবার ময়নাতদন্ত শেষে লাশ হস্তান্তর করা হবে।

মেহেরপুর সদর থানার ওসি শাহ দারা খান জানান, আমরা ওই নৌ সদস্যের মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর তার শ্বশুরবাড়িতে পুলিশ পাঠিয়েছি।  সেই বাড়িতে লাল পতাকা টাঙিয়ে লকডাউন ঘোষণা করেছি।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস