মহামারীর সময় অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো ইমানি দায়িত্ব: বাবুনগরী
jugantor
মহামারীর সময় অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো ইমানি দায়িত্ব: বাবুনগরী

  হাটহাজারী প্রতিনিধি  

০৩ এপ্রিল ২০২০, ১১:৫৫:২৫  |  অনলাইন সংস্করণ

বৈশ্বিক করোনা মহামারীর সময় অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব আল্লামা বাবুনগরী।

বৃহস্পতিবার রাতে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এ আহ্বান জানান।

বাবুনগরী বলেন, করোনাভাইরাস বিস্তার রোধে সারা দেশে চলছে অঘোষিত লকডাউন। সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। দোকানপাট, রাস্তাঘাট সব কিছুই বন্ধ। নেই কাজের কোনো উৎস। করোনা আতঙ্কে কার্যতই মানুষ আজ গৃহবন্দি।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, এ পরিস্থিতিতে রুজি-রোজগার করতে না পেরে খেটে খাওয়া দিনমজুররা খাদ্য সংকটে অসহায় অবস্থায় মানবেতর জীবনযাপন করছেন। করোনায় সৃষ্ট উদ্ভূত পরিস্থিতিতে দুর্দশাগ্রস্ত পরিবারের পাশে খাদ্যদ্রব্য, নগদ অর্থসহ জরুরি ত্রাণসামগ্রী নিয়ে সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসতে হবে।

স্থানীয় প্রশাসন, সমাজের বিত্তবান, জনপ্রতিনিধি, সামাজিক ও সেবামূলক সংগঠন এবং বিশেষভাবে হেফাজতে ইসলামের নেতৃবৃন্দকে যার যার অবস্থানে থেকে সাধ্যমতো ত্রাণসামগ্রী নিয়ে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান হেফাজত মহাসচিব।

তিনি আরও বলেন, সহযোগিতা নিয়ে অসহায় মানবতার পাশে দাঁড়ানো মুসলমাদের জন্য ইমানি দায়িত্বও বটে। করোনাভাইরাসের দুর্যোগপূর্ণ পরিস্থিতিতে ব্যক্তিগত বা সম্মিলিত উদ্যোগে দুস্থ এবং অসহায়দের সাহায্যে এগিয়ে আসা আমাদের নৈতিক দায়িত্ব ও কর্তব্য।

বাবুনগরী আগাম জাকাত দেয়া জায়েজ আছে, এমনটি জানিয়ে বলেন, যাদের ওপর জাকাত ফরজ, তারা করোনাভাইরাসের এই নাজুক পরিস্থিতিতে আগামী রমজানের জাকাত গরিব-দুঃখীদের মাঝে প্রদান করতে পারেন।

‘এ ছাড়া প্রত্যেককেই অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে এবং সামর্থ্যনুযায়ী ত্রাণ বিতরণ করলে তথা অসহায়দের সাহায্য-সহযোগিতা করলে মহান আল্লাহর কাছে এর উত্তম বিনিময় পাওয়া যাবে।’

মহামারীর সময় অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো ইমানি দায়িত্ব: বাবুনগরী

 হাটহাজারী প্রতিনিধি 
০৩ এপ্রিল ২০২০, ১১:৫৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বৈশ্বিক করোনা মহামারীর সময় অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব আল্লামা বাবুনগরী। 

বৃহস্পতিবার রাতে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এ আহ্বান জানান।

বাবুনগরী বলেন, করোনাভাইরাস বিস্তার রোধে সারা দেশে চলছে অঘোষিত লকডাউন। সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। দোকানপাট, রাস্তাঘাট সব কিছুই বন্ধ। নেই কাজের কোনো উৎস। করোনা আতঙ্কে কার্যতই মানুষ আজ গৃহবন্দি।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, এ পরিস্থিতিতে রুজি-রোজগার করতে না পেরে খেটে খাওয়া দিনমজুররা খাদ্য সংকটে অসহায় অবস্থায় মানবেতর জীবনযাপন করছেন। করোনায় সৃষ্ট উদ্ভূত পরিস্থিতিতে দুর্দশাগ্রস্ত পরিবারের পাশে খাদ্যদ্রব্য, নগদ অর্থসহ জরুরি ত্রাণসামগ্রী নিয়ে সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসতে হবে।

স্থানীয় প্রশাসন, সমাজের বিত্তবান, জনপ্রতিনিধি, সামাজিক ও সেবামূলক সংগঠন এবং বিশেষভাবে হেফাজতে ইসলামের নেতৃবৃন্দকে যার যার অবস্থানে থেকে সাধ্যমতো ত্রাণসামগ্রী নিয়ে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান হেফাজত মহাসচিব। 

তিনি আরও বলেন, সহযোগিতা নিয়ে অসহায় মানবতার পাশে দাঁড়ানো মুসলমাদের জন্য ইমানি দায়িত্বও বটে। করোনাভাইরাসের দুর্যোগপূর্ণ পরিস্থিতিতে ব্যক্তিগত বা সম্মিলিত উদ্যোগে দুস্থ এবং অসহায়দের সাহায্যে এগিয়ে আসা আমাদের নৈতিক দায়িত্ব ও কর্তব্য।

বাবুনগরী আগাম জাকাত দেয়া জায়েজ আছে, এমনটি জানিয়ে বলেন, যাদের ওপর জাকাত ফরজ, তারা করোনাভাইরাসের এই নাজুক পরিস্থিতিতে আগামী রমজানের জাকাত গরিব-দুঃখীদের মাঝে প্রদান করতে পারেন। 

‘এ ছাড়া প্রত্যেককেই অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে এবং সামর্থ্যনুযায়ী ত্রাণ বিতরণ করলে তথা অসহায়দের সাহায্য-সহযোগিতা করলে মহান আল্লাহর কাছে এর উত্তম বিনিময় পাওয়া যাবে।’

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস