রাঙ্গাবালীতে কোয়ারেন্টিনে তাবলিগের ৭ ভারতীয় নাগরিক
jugantor
রাঙ্গাবালীতে কোয়ারেন্টিনে তাবলিগের ৭ ভারতীয় নাগরিক

  রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি  

০৭ এপ্রিল ২০২০, ২২:১৩:০২  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের ফুলখালী গ্রামে তাবলিগ জামাতের ৭ ভারতীয় নাগরিককে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকালে তাদের কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাশফাকুর রহমান।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, গত ১ জানুয়ারি তাবলিগ জামাতে অংশ নিতে ভারত থেকে বাংলাদেশে আসেন ওই ৭ ভারতীয়। পরে ৩৩ দিন পটুয়াখালী, ১৮ দিন কলাপাড়া ও ৮দিন গলাচিপা থাকার পর তারা এ উপজেলায় অবস্থান করছিলেন।

সর্বশেষ উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে তিনদিন ধরে ফুলখালী গ্রামে অবস্থিত তাবলিগ জামাতের নির্ধারিত একটি ঘরে অবস্থান করেন ওই ভারতীয়রা। এমন খবরের ভিত্তিতে মঙ্গলবার বিকাল ৫টায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদেরকে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশ দেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাশফাকুর রহমান বলেন, ‘করোনার ঝুঁকি এড়াতে তাবলিগ জামাতে আসা ৭ ভারতীয়কে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে তারা সেখানে অবস্থান করবেন। তারা যেখানে আছেন, সেখানে লোকজন আসা যাওয়া করতে নিষেধ করা হয়েছে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা না পাওয়া পর্যন্ত তারা সেখানে কোয়ারেন্টিনে থাকবেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘এলাকাবাসীর আতঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই। ঝুঁকি এড়াতে তাদেরকে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।’

রাঙ্গাবালীতে কোয়ারেন্টিনে তাবলিগের ৭ ভারতীয় নাগরিক

 রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি 
০৭ এপ্রিল ২০২০, ১০:১৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের ফুলখালী গ্রামে তাবলিগ জামাতের ৭ ভারতীয় নাগরিককে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকালে তাদের কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাশফাকুর রহমান।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, গত ১ জানুয়ারি তাবলিগ জামাতে অংশ নিতে ভারত থেকে বাংলাদেশে আসেন ওই ৭ ভারতীয়। পরে ৩৩ দিন পটুয়াখালী, ১৮ দিন কলাপাড়া ও ৮দিন গলাচিপা থাকার পর তারা এ উপজেলায় অবস্থান করছিলেন।

সর্বশেষ উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে তিনদিন ধরে ফুলখালী গ্রামে অবস্থিত তাবলিগ জামাতের নির্ধারিত একটি ঘরে অবস্থান করেন ওই ভারতীয়রা। এমন খবরের ভিত্তিতে মঙ্গলবার বিকাল ৫টায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদেরকে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশ দেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাশফাকুর রহমান বলেন, ‘করোনার ঝুঁকি এড়াতে তাবলিগ জামাতে আসা ৭ ভারতীয়কে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে তারা সেখানে অবস্থান করবেন। তারা যেখানে আছেন, সেখানে লোকজন আসা যাওয়া করতে নিষেধ করা হয়েছে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা না পাওয়া পর্যন্ত তারা সেখানে কোয়ারেন্টিনে থাকবেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘এলাকাবাসীর আতঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই। ঝুঁকি এড়াতে তাদেরকে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।’

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস