করোনায় রেকর্ড পরিমাণ তেল উৎপাদন কমাচ্ছে ওপেক প্লাস
jugantor
করোনায় রেকর্ড পরিমাণ তেল উৎপাদন কমাচ্ছে ওপেক প্লাস

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৩ এপ্রিল ২০২০, ০৯:৫৮:৩৫  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনাভাইরাসের কারণে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে চলছে লকডাউন। এ জন্য চাহিদা কমেছে জ্বালানি তেলের। ফলে বিশ্ববাজারে তেলের মূল্য পতন ঠেকাতে দৈনিক ৯৭ লাখ ব্যারেল তেল কম উৎপাদন করতে সম্মত হয়েছে ‘ওপেক প্লাস’।

বিশ্বের তেল উত্তোলনকারী দেশগুলোর সংস্থা ওপেকভুক্ত ১৩ দেশের সঙ্গে রাশিয়ার মতো ওপেকবহির্ভূত আরও ১০ দেশকে নিয়ে ওপেক প্লাস গঠিত হয়েছে। খবর আলজাজিরার।

ওপেক প্লাসের তেলমন্ত্রীরা রোববার এক অনলাইন বৈঠকে এই ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। বিশ্বব্যাপী মহামারী আকারে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার কারণে জ্বালানি তেলের বৈশ্বিক চাহিদা দৈনিক তিন কোটি ব্যারেল কমেছে।

করোনাভাইরাসের জেরে বিগত ১৮ বছরের মধ্যে বিশ্ববাজারে তেলের দাম সবচেয়ে তলানিতে এসে ঠেকেছে।

এ অবস্থায় ওপেক প্লাস আন্তর্জাতিক বাজারে দৈনিক মোট সরবরাহের ১০ শতাংশ কমানোর ঘোষণা দিল। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আগামী মে ও জুন মাসে ওপেক প্লাস দৈনিক প্রায় এক কোটি ব্যারেল তেল কম উত্তোলন করবে।

ইরানের তেলমন্ত্রী বিজান জাঙ্গানে রোববারের অনলাইন বৈঠক শেষে বলেছেন, বৃহস্পতি ও শুক্রবারের ভার্চুয়াল বৈঠকের ধারাবাহিকতায় রোববারের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ওই দুদিন মেক্সিকোর বিরোধিতার কারণে এ পরিকল্পনা অনুমোদন পায়নি। তবে অনেক দেনদরবারের পর দেশটি রাজি হওয়ায় শেষ পর্যন্ত দুই মাসের জন্য দৈনিক প্রায় এক কোটি ব্যারেল তেল উৎপাদন কমানোর সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়েছে।

অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড, যানবাহন চলাচল এবং বৃহৎ শিল্পাঞ্চল লকডাউনের আওতায় পড়ায় জ্বালানির বৈশ্বিক চাহিদা দৈনিক তিন কোটি ব্যারেল কমেছে। বিশ্ববাজারে এখন যা সরবরাহ আছে এটি তার ৩০ শতাংশ।

করোনায় রেকর্ড পরিমাণ তেল উৎপাদন কমাচ্ছে ওপেক প্লাস

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৩ এপ্রিল ২০২০, ০৯:৫৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনাভাইরাসের কারণে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে চলছে লকডাউন। এ জন্য চাহিদা কমেছে জ্বালানি তেলের। ফলে বিশ্ববাজারে তেলের মূল্য পতন ঠেকাতে দৈনিক ৯৭ লাখ ব্যারেল তেল কম উৎপাদন করতে সম্মত হয়েছে ‘ওপেক প্লাস’। 

বিশ্বের তেল উত্তোলনকারী দেশগুলোর সংস্থা ওপেকভুক্ত ১৩ দেশের সঙ্গে রাশিয়ার মতো ওপেকবহির্ভূত আরও ১০ দেশকে নিয়ে ওপেক প্লাস গঠিত হয়েছে। খবর আলজাজিরার।

ওপেক প্লাসের তেলমন্ত্রীরা রোববার এক অনলাইন বৈঠকে এই ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। বিশ্বব্যাপী মহামারী আকারে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার কারণে জ্বালানি তেলের বৈশ্বিক চাহিদা দৈনিক তিন কোটি ব্যারেল কমেছে। 

করোনাভাইরাসের জেরে বিগত ১৮ বছরের মধ্যে বিশ্ববাজারে তেলের দাম সবচেয়ে তলানিতে এসে ঠেকেছে। 

এ অবস্থায় ওপেক প্লাস আন্তর্জাতিক বাজারে দৈনিক মোট সরবরাহের ১০ শতাংশ কমানোর ঘোষণা দিল। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আগামী মে ও জুন মাসে ওপেক প্লাস দৈনিক প্রায় এক কোটি ব্যারেল তেল কম উত্তোলন করবে।

ইরানের তেলমন্ত্রী বিজান জাঙ্গানে রোববারের অনলাইন বৈঠক শেষে বলেছেন, বৃহস্পতি ও শুক্রবারের ভার্চুয়াল বৈঠকের ধারাবাহিকতায় রোববারের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

ওই দুদিন মেক্সিকোর বিরোধিতার কারণে এ পরিকল্পনা অনুমোদন পায়নি। তবে অনেক দেনদরবারের পর দেশটি রাজি হওয়ায় শেষ পর্যন্ত দুই মাসের জন্য দৈনিক প্রায় এক কোটি ব্যারেল তেল উৎপাদন কমানোর সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়েছে।

অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড, যানবাহন চলাচল এবং বৃহৎ শিল্পাঞ্চল লকডাউনের আওতায় পড়ায় জ্বালানির বৈশ্বিক চাহিদা দৈনিক তিন কোটি ব্যারেল কমেছে। বিশ্ববাজারে এখন যা সরবরাহ আছে এটি তার ৩০ শতাংশ।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

২৬ নভেম্বর, ২০২১