গৌরীপুরে বর্গাচাষীর ধান কেটে দিল ছাত্রলীগের কর্মীরা
jugantor
গৌরীপুরে বর্গাচাষীর ধান কেটে দিল ছাত্রলীগের কর্মীরা

  গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি  

২২ এপ্রিল ২০২০, ২১:৪৪:০৯  |  অনলাইন সংস্করণ

গৌরীপুরে বর্গাচাষীর ধান কেটে দিল ছাত্রলীগের কর্মীরা

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার বোকাইনগর ইউনিয়নের দারিয়াপুর গ্রামে বর্গাচাষী মো. শওকত আলীর ক্ষেতের ধান কেটে দেন উপজেলা ও পৌর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

বুধবার সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে কৃষকের বাড়িতে পৌঁছে যান ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। সকাল থেকে ধান কাটা শুরু করেন।

বর্গাচাষীর পাকা ছিল মাত্র ৪০ শতাংশ জমি। কিছুক্ষণের মধ্যেই জমির ধান কাটা শেষে এর পরে শুরু হয় মাড়াই। দারির ওপরে বেঞ্চ রেখে সেখানে শুরু হয় মাড়াই। সূর্য ঠিক মাথার ওপরে আসার আগে কৃষকের গোলায় উঠে ধান।

কৃষক শওকত আলী বলেন, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা এসে ধান কেটে দিবে, তা কখনও ভাবনায় ছিল না। সত্যিই আমি অবাক হয়েছি!

তিনি বলেন, কয়েকদিন ধরে ধানটা কাটব ভাবছিলাম। শ্রমিকের দাম বেশি তাই কাটা হচ্ছিল না। কিছু অংশ নষ্টও হয়ে যাচ্ছিল। ধন্যবাদ ছাত্রলীগকে।

ধান কাটা কর্মসূচিতে অংশ নেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক ফজলে রাব্বি খান রিফাত, গৌরীপুর পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি উত্তম সরকার, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি আলী আসগর সোহাগ, ছাত্রলীগের কর্মী অন্তর খান পাঠান, মজিবুর রহমান সুমন, মেহেদী হাসান রোমন, মো. জাকির ইসলাম, মামুন খান পাঠান, আরিয়ান আহমেদ দীন, রিয়াদ খান পাঠান, জাহিদ হাসান মামুন, আল মামুন, অনিক সরকার, শরিফ আহাম্মেদ, শান্ত মিয়া প্রমুখ।

ফজলে রাব্বি খান রিফাত জানান, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের দিকনির্দেশনায় সারা দেশের ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা এবার কৃষককে ধান কাটায় সহযোগিতা করছেন। আমরাও করছি।

পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি উত্তম সরকার বলেন, এ কর্মসূচি আমাদের জন্য আনন্দের। ধান কেটে দেয়ার পর কৃষকের মুখে দেখলাম তৃপ্তির এক অকৃত্রিম হাসি। তা আমাদের অনুপ্রাণিত করেছে। আগামী দিনেও এ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।

গৌরীপুরে বর্গাচাষীর ধান কেটে দিল ছাত্রলীগের কর্মীরা

 গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি 
২২ এপ্রিল ২০২০, ০৯:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
গৌরীপুরে বর্গাচাষীর ধান কেটে দিল ছাত্রলীগের কর্মীরা
গৌরীপুরে বর্গাচাষীর ধান কেটে দিল ছাত্রলীগের কর্মীরা

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার বোকাইনগর ইউনিয়নের দারিয়াপুর গ্রামে বর্গাচাষী মো. শওকত আলীর ক্ষেতের ধান কেটে দেন উপজেলা ও পৌর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

বুধবার সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে কৃষকের বাড়িতে পৌঁছে যান ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। সকাল থেকে ধান কাটা শুরু করেন।

বর্গাচাষীর পাকা ছিল মাত্র ৪০ শতাংশ জমি। কিছুক্ষণের মধ্যেই জমির ধান কাটা শেষে এর পরে শুরু হয় মাড়াই। দারির ওপরে বেঞ্চ রেখে সেখানে শুরু হয় মাড়াই। সূর্য ঠিক মাথার ওপরে আসার আগে কৃষকের গোলায় উঠে ধান।

কৃষক শওকত আলী বলেন, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা এসে ধান কেটে দিবে, তা কখনও ভাবনায় ছিল না। সত্যিই আমি অবাক হয়েছি!

তিনি বলেন, কয়েকদিন ধরে ধানটা কাটব ভাবছিলাম। শ্রমিকের দাম বেশি তাই কাটা হচ্ছিল না। কিছু অংশ নষ্টও হয়ে যাচ্ছিল। ধন্যবাদ ছাত্রলীগকে।

ধান কাটা কর্মসূচিতে অংশ নেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক ফজলে রাব্বি খান রিফাত, গৌরীপুর পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি উত্তম সরকার, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি আলী আসগর সোহাগ, ছাত্রলীগের কর্মী অন্তর খান পাঠান, মজিবুর রহমান সুমন, মেহেদী হাসান রোমন, মো. জাকির ইসলাম, মামুন খান পাঠান, আরিয়ান আহমেদ দীন, রিয়াদ খান পাঠান, জাহিদ হাসান মামুন, আল মামুন, অনিক সরকার, শরিফ আহাম্মেদ, শান্ত মিয়া প্রমুখ।

ফজলে রাব্বি খান রিফাত জানান, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের দিকনির্দেশনায় সারা দেশের ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা এবার কৃষককে ধান কাটায় সহযোগিতা করছেন। আমরাও করছি।

পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি উত্তম সরকার বলেন, এ কর্মসূচি আমাদের জন্য আনন্দের। ধান কেটে দেয়ার পর কৃষকের মুখে দেখলাম তৃপ্তির এক অকৃত্রিম হাসি। তা আমাদের অনুপ্রাণিত করেছে। আগামী দিনেও এ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

২০ অক্টোবর, ২০২১
১৭ অক্টোবর, ২০২১