ত্রাণ বিতরণে অনিয়ম রোধে সরকার জিরো টলারেন্স নীতিতে: কৃষিমন্ত্রী
jugantor
ত্রাণ বিতরণে অনিয়ম রোধে সরকার জিরো টলারেন্স নীতিতে: কৃষিমন্ত্রী

  টাঙ্গাইল প্রতিনিধি  

২২ এপ্রিল ২০২০, ২২:৪৫:৪৯  |  অনলাইন সংস্করণ

কৃষিমন্ত্রী মো. আবদুর রাজ্জাক কর্মহীন ৬০০ মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন

কৃষিমন্ত্রী মো. আবদুর রাজ্জাক বলেছেন, সরকার ত্রাণ বিতরণে অনিয়ম রোধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছে। এ ক্ষেত্রে অনিয়মকে কোনোরকম প্রশ্রয় দিচ্ছে না।

তিনি বলেন, ইতিমধ্যে ত্রাণ বিতরণে অনিয়মে জড়িতদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এই দুঃসময়ে-মহাদুর্যোগে মানবিকতা ভুলে যারা ত্রাণ বিতরণে অনিয়মে জড়িত হবে তাদের বিরুদ্ধে আরও কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হেবে।

বুধবার ধনবাড়ী উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে স্থানীয় প্রশাসন, জনপ্রতিনিধিবৃন্দ এবং আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে করোনা প্রতিরোধ, ত্রাণ বিতরণ এবং ধান কাটা বিষয়ে মতবিনিময় সভায় বক্তৃতাকালে কৃষিমন্ত্রী মো. আবদুর রাজ্জাক কথা বলেন।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, এ সময়টা বোরো ধান কাটার মৌসুম। সারা দেশে এ বছর বোরো চাল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা হল ২ কোটি ৪ লাখ ৩৬ হাজার মেট্রিক টন। আমাদের সারা বছরের মোট চাল উৎপাদনের প্রায় ৫৫ ভাগের যোগান দেয় বোরো ধান। সে জন্য, শুধু হাওর নয়, সারা দেশের ফসল সুষ্ঠুভাবে ঘরে তোলা জরুরি। আর এটি করতে পারলে বাংলাদেশের ধান উৎপাদনে তা গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে। একই সঙ্গে নিশ্চিত করবে খাদ্য নিরাপত্তা।

তিনি বলেন, কৃষি মন্ত্রণালয় এ সব বিষয় বিবেচনায় নিয়ে অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

মন্ত্রী বলেন, ধান কাটার জন্য বিভিন্ন জেলা থেকে শ্রমিকের যাতায়াতের ব্যবস্থা করা হয়েছে। তারা স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিভিন্ন জেলায় ধান কাটতে যাচ্ছেন। ইতিমধ্যে সারা দেশে ১০০ কোটি টাকার মাধ্যমে প্রায় ৮০০টি কম্বাইন হারভেস্টার ও ৪০০টি রিপারসহ বিভিন্ন কৃষি যন্ত্রপাতি কৃষকের কাছে পৌঁছে দেয়া হয়েছে। আরও ১০০ কোটি টাকা দিয়ে সমপরিমাণ কৃষি যন্ত্রপাতি অচিরেই কৃষকের কাছে পৌঁছে দেয়ার কার্যক্রম চলছে।

সভায় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হারুনুর রশীদ হীরা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফা সিদ্দিকা, সহকারী পুলিশ সুপার কামরান হোসেনসহ উপজেলা পর্যায়ের সব কর্মকর্তা এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে কৃষিমন্ত্রী মো. আবদুর রাজ্জাক ধনবাড়ী কলেজ মাঠে এবং পাইস্কা হাইস্কুল মাঠে করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কারণে কর্মহীন হয়ে পড়া ৬০০ মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন।

ত্রাণ বিতরণে অনিয়ম রোধে সরকার জিরো টলারেন্স নীতিতে: কৃষিমন্ত্রী

 টাঙ্গাইল প্রতিনিধি 
২২ এপ্রিল ২০২০, ১০:৪৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
কৃষিমন্ত্রী মো. আবদুর রাজ্জাক কর্মহীন ৬০০ মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন
কৃষিমন্ত্রী মো. আবদুর রাজ্জাক কর্মহীন ৬০০ মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন

কৃষিমন্ত্রী মো. আবদুর রাজ্জাক বলেছেন, সরকার ত্রাণ বিতরণে অনিয়ম রোধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছে। এ ক্ষেত্রে অনিয়মকে কোনোরকম প্রশ্রয় দিচ্ছে না।

তিনি বলেন, ইতিমধ্যে ত্রাণ বিতরণে অনিয়মে জড়িতদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এই দুঃসময়ে-মহাদুর্যোগে মানবিকতা ভুলে যারা ত্রাণ বিতরণে অনিয়মে জড়িত হবে তাদের বিরুদ্ধে আরও কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হেবে।

বুধবার ধনবাড়ী উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে স্থানীয় প্রশাসন, জনপ্রতিনিধিবৃন্দ এবং আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে করোনা প্রতিরোধ, ত্রাণ বিতরণ এবং ধান কাটা বিষয়ে মতবিনিময় সভায় বক্তৃতাকালে কৃষিমন্ত্রী মো. আবদুর রাজ্জাক কথা বলেন।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, এ সময়টা বোরো ধান কাটার মৌসুম। সারা দেশে এ বছর বোরো চাল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা হল ২ কোটি ৪ লাখ ৩৬ হাজার মেট্রিক টন। আমাদের সারা বছরের মোট চাল উৎপাদনের প্রায় ৫৫ ভাগের যোগান দেয় বোরো ধান। সে জন্য, শুধু হাওর নয়, সারা দেশের ফসল সুষ্ঠুভাবে ঘরে তোলা জরুরি। আর এটি করতে পারলে বাংলাদেশের ধান উৎপাদনে তা গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে। একই সঙ্গে নিশ্চিত করবে খাদ্য নিরাপত্তা।

তিনি বলেন, কৃষি মন্ত্রণালয় এ সব বিষয় বিবেচনায় নিয়ে অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

মন্ত্রী বলেন, ধান কাটার জন্য বিভিন্ন জেলা থেকে শ্রমিকের যাতায়াতের ব্যবস্থা করা হয়েছে। তারা স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিভিন্ন জেলায় ধান কাটতে যাচ্ছেন। ইতিমধ্যে সারা দেশে ১০০ কোটি টাকার মাধ্যমে প্রায় ৮০০টি কম্বাইন হারভেস্টার ও ৪০০টি রিপারসহ বিভিন্ন কৃষি যন্ত্রপাতি কৃষকের কাছে পৌঁছে দেয়া হয়েছে। আরও ১০০ কোটি টাকা দিয়ে সমপরিমাণ কৃষি যন্ত্রপাতি অচিরেই কৃষকের কাছে পৌঁছে দেয়ার কার্যক্রম চলছে।

সভায় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হারুনুর রশীদ হীরা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফা সিদ্দিকা, সহকারী পুলিশ সুপার কামরান হোসেনসহ উপজেলা পর্যায়ের সব কর্মকর্তা এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে কৃষিমন্ত্রী মো. আবদুর রাজ্জাক ধনবাড়ী কলেজ মাঠে এবং পাইস্কা হাইস্কুল মাঠে করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কারণে কর্মহীন হয়ে পড়া ৬০০ মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস