প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ১০ হাজার টাকা দিলেন দুর্গাপুরের রিকশাচালক
jugantor
প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ১০ হাজার টাকা দিলেন দুর্গাপুরের রিকশাচালক

  দুর্গাপুর (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি  

০১ মে ২০২০, ২২:২৯:২৮  |  অনলাইন সংস্করণ

নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের এক রিকশাচালক মো. তারা মিয়া ১০ হাজার ২০০ টাকা প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে জমা দিয়েছেন।

করোনা মহামারিতে মানুষের খাদ্য সংকটের কথা মাথায় রেখে শুক্রবার দুপুরে স্থানীয় এমপি মানু মজুমদাদের মাধ্যমে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফারজানা খানমের কাছে এ টাকা প্রদান করা হয়।

দুর্গাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফারজানা খানম জানান, নজরুল ইসলাম দুর্গাপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের দেবথৈল গ্রামের বাসিন্দা। দীর্ঘদিন ধরে একটি নতুন রিকশা কেনার জন্য টাকা জমানো শুরু করেন। ইতিমধ্যে দেশে করোনা পরিস্থিতিতে রিক্সা না কিনে তিনি সমুদয় টাকা প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দেয়ার জন্য এমপির মাধ্যমে আমার কাছে জমা দেন।

এ সময় অন্যদের মধ্যে উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আলাউদ্দিন আল আজাদ, পৌর মেয়র মাও. আবদুস সালাম, উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার মো. রফিকুল ইসলাম, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. সাইফুল ইসলাম, একাডেমিক সুপারভাইজার মো. নাসির উদ্দিন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সাদ্দাম আকঞ্জি, উপজেলা যুবলীগের সহ সভাপতি সুমন চৌধুরী পাভেলসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

মো. তারা মিয়া বলেন, দীর্ঘদিন ভাড়ায় চালিত রিক্সা চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছি। নতুন একটি রিকশা কেনার জন্য এই টাকা জমিয়েছিলাম। কিন্তু করোনায় দেশের মানুষ না খেয়ে কষ্ট করছে। আমার জন্য নতুন রিকশা কিনার চেয়ে মানুষের জীবন বাঁচানো বড়, বেঁচে থাকলে নতুন রিকশা কিনতে পারব।

প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ১০ হাজার টাকা দিলেন দুর্গাপুরের রিকশাচালক

 দুর্গাপুর (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি 
০১ মে ২০২০, ১০:২৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের এক রিকশাচালক মো. তারা মিয়া ১০ হাজার ২০০ টাকা প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে জমা দিয়েছেন।

করোনা মহামারিতে মানুষের খাদ্য সংকটের কথা মাথায় রেখে শুক্রবার দুপুরে স্থানীয় এমপি মানু মজুমদাদের মাধ্যমে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফারজানা খানমের কাছে এ টাকা প্রদান করা হয়।

দুর্গাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফারজানা খানম জানান, নজরুল ইসলাম দুর্গাপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের দেবথৈল গ্রামের বাসিন্দা। দীর্ঘদিন ধরে একটি নতুন রিকশা কেনার জন্য টাকা জমানো শুরু করেন। ইতিমধ্যে দেশে করোনা পরিস্থিতিতে রিক্সা না কিনে তিনি সমুদয় টাকা প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দেয়ার জন্য এমপির মাধ্যমে আমার কাছে জমা দেন।

এ সময় অন্যদের মধ্যে উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আলাউদ্দিন আল আজাদ, পৌর মেয়র মাও. আবদুস সালাম, উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার মো. রফিকুল ইসলাম, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. সাইফুল ইসলাম, একাডেমিক সুপারভাইজার মো. নাসির উদ্দিন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সাদ্দাম আকঞ্জি, উপজেলা যুবলীগের সহ সভাপতি সুমন চৌধুরী পাভেলসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

মো. তারা মিয়া বলেন, দীর্ঘদিন ভাড়ায় চালিত রিক্সা চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছি। নতুন একটি রিকশা কেনার জন্য এই টাকা জমিয়েছিলাম। কিন্তু করোনায় দেশের মানুষ না খেয়ে কষ্ট করছে। আমার জন্য নতুন রিকশা কিনার চেয়ে মানুষের জীবন বাঁচানো বড়, বেঁচে থাকলে নতুন রিকশা কিনতে পারব।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

১৭ অক্টোবর, ২০২১