ভাড়া না পেয়ে ভাড়াটিয়ার ঘর থেকে ১ মণ চাল নিয়ে গেলেন বাড়িওয়ালা!

  বরগুনা প্রতিনিধি ০৬ মে ২০২০, ২৩:০৪:৫৯ | অনলাইন সংস্করণ

ঘর ভাড়া দিতে না পারায় ভাড়াটিয়ার খাবার চাল নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে বরগুনার এক বাড়ির মালিকের বিরুদ্ধে।

মঙ্গলবার দুপুরে সদর উপজেলার গৌরিচন্না ইউনিয়নের মহাসড়ক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

ভাড়াটিয়া ফারুকের অভিযোগ, চলমান এই লকডাউনে অসহায়ত্বের সুযোগে জোর করে তার ঘরে থাকা এক মণ চাল নিয়ে গেছেন বাড়ির মালিক।

তবে বাড়ির মালিক সরোয়ার মোল্লা এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

ভাড়াটিয়া ফারুক বলেন, আমি একজন পরিবহন শ্রমিক। চলমান পরিস্থিতিতে বাস চলাচল বন্ধ থাকায় কর্মহীন হয়ে পড়েছি। এজন্য মার্চ ও এপ্রিল দুই মাসের মোট তিন হাজার টাকা ভাড়া পরিশোধ করতে পারিনি। তবে মালিকের কাছে অগ্রিম ১৫শ’ টাকা ভাড়া দেয়া ছিল।

তিনি বলেন, মঙ্গলবার দুপুরে এক মাসের টাকার জন্য তিনি আমার বাসায় আসেন। সে সময় আমার অসহায়ত্বের কথা তাকে খুলে বলি। তাকে জানাই আমার ঘরে চাল ছাড়া কিছুই নেই। পরে টাকা না পেয়ে আমার এক মণ চাল তিনি নিয়ে যান।

তবে চালের দাম ১৬শ’ টাকা নির্ধারণ করে একশ টাকা মালিক তাকে ফেরত দিয়ে যান বলেও জানান ফারুক।

এ বিষয়ে বাড়ির মালিক সরোয়ার মোল্লা যুগান্তরকে বলেন, ভাড়াটিয়া ফারুক স্বেচ্ছায় ঘর ভাড়ার পরিবর্তে আমাকে চাল দিয়েছেন। তাই আমি চাল নিয়েছি। ঘর ভাড়া কিংবা ভাড়ার পরিবর্তে চাল নেয়ার জন্য আমি তাকে কোনো প্রকার চাপ প্রয়োগ করিনি।

বরগুনার সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি সাহাবুদ্দিন সাবু বলেন, করোনায় কর্মহীন হয়ে পড়া বাসচালক ফারুকের সঙ্গে যা ঘটেছে এর থেকে নির্মম আর কিছু হতে পারে না। আমরা এ ঘটনায় অভিযুক্ত ঘর মালিকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

বরগুনার জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ বলেন, বাসা ভাড়ার পরিবর্তে ভাড়াটিয়ার ঘরের চাল নিয়ে যাওয়ার বিষয়টি আমরা শুনেছি। এ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছি। সত্যতা পেলে ঘর মালিকের বিরুদ্ধে আইনাগত ব্যবস্থা নেব।

তিনি আরও বলেন, জেলাজুড়ে আমাদের খাদ্য সহায়তা কার্যক্রমসহ নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান চলমান। বাসচালক ফারুকসহ অন্য চালকদের সহায়তায় জেলা প্রশাসন এগিয়ে আসবে।

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

আরও
 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত