বাড়ি ফিরছেন করোনাজয়ী দুই ভারতীয়সহ চারজন

  রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি ১০ মে ২০২০, ২২:৩৬:২৬ | অনলাইন সংস্করণ

পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলায় করোনাভাইরাস থেকে সুস্থ হয়ে ওঠা দুই ভারতীয় নাগরিক ও এক স্বাস্থ্যকর্মীসহ চারজন বাড়ি ফিরছেন।

তাদের করোনামুক্ত ঘোষণা করার পর রোববার দুপুরে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আনুষ্ঠানিকভাবে ছাড়পত্র দেয়া হয়।

এ সময় ফুলের শুভেচ্ছা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা তহবিল থেকে প্রত্যেককে উপহার হিসেবে ৫ হাজার টাকার চেক এবং ইফতারসামগ্রী তুলে দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাশফাকুর রহমান ও উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা (অতিরিক্ত দায়িত্বে) ডা. মনিরুল ইসলাম।

জানা গেছে, তাবলিগ জামাতে রাঙ্গাবালী আসা ভারতের বিহারের নাগরিক আবদুল মাজিদ, ইব্রার হোসেন, পাবনা জেলা থেকে আসা ওমর ফারুক, ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার ফিরোজ মাহমুদের গত ২১ এপ্রিল করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়।

পরে উপজেলার ফুলখালী গ্রামে অবস্থিত তাবলিগ জামাতের মারকাজে তিনজন এবং রাঙ্গাবালী ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ওই স্বাস্থ্যকর্মীকে সেলফ আইসোলেশনে রাখা হয়। গত ২ মে দ্বিতীয় ও ৫ মে তৃতীয় দফায় ওই চারজনের নমুনা সংগ্রহ করা হলে ফলাফল নেগেটিভ আসে।

করোনাজয়ী উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার ফিরোজ মাহমুদ বলেন, স্বাস্থ্য বিভাগের পরামর্শ অনুযায়ী স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলেছি। দোয়া ও ভালোবাসায় আমি সুস্থ হয়ে আজ বাড়ি ফিরছি।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা (অতিরিক্ত দায়িত্বে) ডা. মনিরুল ইসলাম বলেন, ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টায় জনসচেতনতা বৃদ্ধির কারণে এই চারজনের কাছ থেকে অন্য কারও কাছে করোনা সংক্রমণ ছড়ায়নি।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাশফাকুর রহমান বলেন, করোনামুক্ত তাবলিগ জামাতের দুই ভারতীয় নিজ ঠিকানার উদ্দেশে রওনা দেবেন। এ জন্য তাদেরকে ছাড়পত্রসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেয়া হয়েছে।

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

আরও

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত