বগুড়ায় ভার্চুয়াল আদালতের কার্যক্রম বর্জনের ঘোষণা

  বগুড়া ব্যুরো ১৩ মে ২০২০, ২১:২১:৩২ | অনলাইন সংস্করণ

বগুড়ায় ভার্চুয়াল আদালতের কার্যক্রম বর্জন করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে অ্যাডভোকেটস বার সমিতির জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম এর সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বৃহস্পতিবার সিজিএম বৈঠক ডেকেছেন। সেখানে সীমিত আকারে হলেও আগের পদ্ধতির পাশাপাশি ভার্চুয়াল ব্যবস্থা চালু রাখার অনুরোধ করা হবে। তবে অনেকে বর্জনের সিদ্ধান্তের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করে বলেছেন, এটা হটকারী সিদ্ধান্ত; এতে বিচারপ্রার্থীরা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন।

আইনজীবীরা জানান, দেশে করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে সরকারি ছুটিকালীন তথ্যপ্রযুক্ত ব্যবহার অধ্যাদেশ ২০২০ অনুসরণে ভার্চুয়াল উপস্থিতির মাধ্যমে জামিন আবেদন শুনানির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। বগুড়ার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (সিজিএম) মুহাম্মদ রবিউল আউয়াল গত ১১ মে ভার্চুয়াল আদালতের ব্যাপারে অফিস আদেশ জারি করেন।

আদেশে বলা হয়, পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত অনলাইনে পাওয়া জামিন আবেদন ভার্চুয়াল উপস্থিতির মাধ্যমে নিষ্পত্তি করা হবে। এ সময় আদালতের বেঞ্চ সহকারী ও অন্য কর্মচারীরা উপস্থিত থাকবেন।

এ দিকে সিজিএমের এ আদেশ জারির পর আইনজীবীরা দ্বিধাবিভক্ত হয়ে পড়েন। এ অবস্থায় বুধবার দুপুরে বগুড়া অ্যাডভোকেটস বার সমিতির জরুরি সভা আহ্বান করা হয়। সভাপতি গোলাম ফারুকের সভাপতিত্বে সভায় সর্বসম্মতিতে ভার্চুয়াল আদালতের কার্যক্রম বর্জনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

এ সিদ্ধান্তের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের স্পেশাল পিপি নরেশ মুখার্জি বলেন, এটা সরকারি দল সমর্থিত সিনিয়র কিছু আইনজীবীর হটকারী সিদ্ধান্ত। এতে বিচারপ্রার্থীরা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন।

বার সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক জানান, ভারতের মতো উন্নত প্রযুক্তির দেশেও পাঁচদিনের বেশি ভার্চুয়াল আদালতের কার্যক্রম চলেনি। আমাদের অধিকাংশ আইনজীবী ভার্চুয়াল ব্যাপারে অনভিজ্ঞ। তাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে দুই পদ্ধতি চালু রাখলে ভালো হতো।

এ প্রসঙ্গে বার সমিতির সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম জানান, সমিতির ৯৫ ভাগ সদস্য আইটি বিষয়ে অনভিজ্ঞ। অনেকের প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম নেই। তাই সমিতির জরুরি সভায় সর্বসম্মতিতে ভার্চুয়াল আদালত বর্জনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

তিনি আরও জানান, সিজিএম বৃহস্পতিবার বৈঠক ডেকেছেন। সেখানে সীমিত আকারে হলেও সাবেক পদ্ধতি চালু রাখার ব্যাপারে প্রস্তাব করা হবে।

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

আরও
 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত