ওএমএস কেলেঙ্কারি, অবশেষে জেলা আ’লীগ নেতার ডিলারশিপ বাতিল
jugantor
ওএমএস কেলেঙ্কারি, অবশেষে জেলা আ’লীগ নেতার ডিলারশিপ বাতিল

  ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি  

১৩ মে ২০২০, ২৩:৫৫:৩১  |  অনলাইন সংস্করণ

হতদরিদ্রদের জন্য ওএমএস কার্ডের তালিকায় স্ত্রী ও মেয়েসহ ১৩ স্বজনদের নাম ওঠানোর ঘটনায় ডিলারশিপ হারিয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক মো. শাহ আলম। তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরশহরের কাউতলি এলাকার ওএমএস ডিলার ছিলেন।

বুধবার বিকালে জেলা ওএমএস কমিটির সভায় শাহ আলমের ডিলারশিপ বাতিলের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

জেলা ওএমএস কমিটির সদস্য সচিব ও জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক সুবীর নাথ চৌধুরী এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জেলা প্রশাসক হায়াত উদ-দৌলা খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে ৮৪ ধনী ব্যক্তি ও দ্বৈত নাম, এক ঘরের দুইজনের নাম এবং ঠিকানা খুঁজে না পাওয়া এমন আরও সাতজনসহ মোট ৯১ জনের নাম ওএমএস কার্ডের তালিকা থেকে বাদ দেয়ারও সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক সুবীর নাথ চৌধুরী জানান, ওএমএস কার্ডের তালিকায় পরিবার ও স্বজনদের নাম উঠানোর ব্যাপারে সংশ্লিষ্টতা পাওয়ায় শাহ আলমের ওএমএস ডিলারশিপ বাতিল করা হয়েছে। একই সঙ্গে তালিকা থেকে ৯১ জনের নামও বাতিল করার জন্য পৌরসভা কর্তৃপক্ষকে বলা হয়েছে বৈঠকে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার ১০নং ওয়ার্ডে ওএমএস কার্ডের তালিকায় শাহ আলমের স্ত্রী মোছাম্মৎ মমতাজ আলম, মেয়ে আফরোজাসহ এবং ১৩ জন স্বজনদের নাম উঠানো নিয়ে গত কয়েকদিন ধরেই শহরজুড়ে আলোচনা-সমালোচনা চলছে।

ওএমএস কেলেঙ্কারি, অবশেষে জেলা আ’লীগ নেতার ডিলারশিপ বাতিল

 ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি 
১৩ মে ২০২০, ১১:৫৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

হতদরিদ্রদের জন্য ওএমএস কার্ডের তালিকায় স্ত্রী ও মেয়েসহ ১৩ স্বজনদের নাম ওঠানোর ঘটনায় ডিলারশিপ হারিয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক মো. শাহ আলম। তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরশহরের কাউতলি এলাকার ওএমএস ডিলার ছিলেন।

বুধবার বিকালে জেলা ওএমএস কমিটির সভায় শাহ আলমের ডিলারশিপ বাতিলের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

জেলা ওএমএস কমিটির সদস্য সচিব ও জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক সুবীর নাথ চৌধুরী এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জেলা প্রশাসক হায়াত উদ-দৌলা খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে ৮৪ ধনী ব্যক্তি ও দ্বৈত নাম, এক ঘরের দুইজনের নাম এবং ঠিকানা খুঁজে না পাওয়া এমন আরও সাতজনসহ মোট ৯১ জনের নাম ওএমএস কার্ডের তালিকা থেকে বাদ দেয়ারও সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক সুবীর নাথ চৌধুরী জানান, ওএমএস কার্ডের তালিকায় পরিবার ও স্বজনদের নাম উঠানোর ব্যাপারে সংশ্লিষ্টতা পাওয়ায় শাহ আলমের ওএমএস ডিলারশিপ বাতিল করা হয়েছে। একই সঙ্গে তালিকা থেকে ৯১ জনের নামও বাতিল করার জন্য পৌরসভা কর্তৃপক্ষকে বলা হয়েছে বৈঠকে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার ১০নং ওয়ার্ডে ওএমএস কার্ডের তালিকায় শাহ আলমের স্ত্রী মোছাম্মৎ মমতাজ আলম, মেয়ে আফরোজাসহ এবং ১৩ জন স্বজনদের নাম উঠানো নিয়ে গত কয়েকদিন ধরেই শহরজুড়ে আলোচনা-সমালোচনা চলছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস