জলঢাকায় ত্রাণের মাল ভাগ-বাটোয়ারা করে নিলেন তারা!

  জলঢাকা (নীলফামারী) প্রতিনিধি ১৪ মে ২০২০, ১৮:২৬:০০ | অনলাইন সংস্করণ

নীলফামারীর জলঢাকায় কাতার চ্যারিটি দাতা সংস্থার দুস্থ, এতিম ও হতদরিদ্রদের মাঝে বিতরণের ত্রাণের মাল সরকার দলীয় বিত্তবান নেতাকর্মীদের মধ্য ভাগ-বাটোয়ারা করলেন যুবলীগ নেতা।

করোনা পরিস্থিতিতে ত্রাণ বিতরণে সরকারি নীতিমালাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে নামমাত্র কিছু লোক সমাগম ঘটিয়ে ওই নেতা সিংহভাগ ত্রাণসামগ্রী দলীয় পছন্দের লোকদের দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

জানা যায়, কাতার চ্যারিটি দাতাসংস্থার অর্থায়নে ৯০০ প্যাকেটের ত্রাণের মাল উপজেলার ১টি পৌরসভা ও ১১টি ইউনিয়নের দুস্থ পরিবারের মাঝে বিতরণ করার কথা ছিল। কিন্তু উপজেলা যুবলীগ যুগ্ম-আহ্বায়ক ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোকছুদার রহমান লেলিন নিজের দলীয় পছন্দের লোকজনদের মাঝে এ সব ত্রাণের মাল ভাগ করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার কৈমারী স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে এ সব ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হয়। যার মধ্যে ছিল, ২০ কেজি চাল, ৫ লিটার তেল, ২ কেজি ডাল, ২ কেজি বুট, ২ কেজি খেজুর, ২ কেজি চিনি, ২ কেজি পেঁয়াজ ও ১ কেজি লবণ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন অভিযুক্ত যুবলীগ নেতার পিতা ও কৈমারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাইদার রহমান মাস্টার, কাতার চ্যারিটি এতিমখানার কচুয়া সরদারপাড়ার পরিচালক হাফেজ হায়দার আলী, কাতার চ্যারিটি বাংলাদেশ প্রধান কার্যালয়ের প্রতিনিধি আবু সায়েদ প্রমুখ।

কৈমারীসহ কয়েকটি ইউনিয়নের হতদরিদ্র ত্রাণ বঞ্চিতরা জানান, প্রথম অবস্থায় কিছু লোকের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করা হয়। পরে অতিথিরা চলে গেলে নিজেদের লোকেদের মধ্যে ভাগ-বাটোয়ারা করে নেয় সরকারদলীয় নেতারা।

ত্রাণ কাজে নিয়জিত নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি ত্রাণের মাল বিতরণের তালিকা সাংবাদিকদের কাছে প্রকাশ করেন। তালিকায় দেখা যায়, উপজেলার একটি বাইরের মাদ্রাসাসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী লোকের নাম রয়েছে। যারা এই ত্রাণের হিংসভাগ তুলে নিয়েছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কাতার চ্যারিটি এতিমখানার কচুয়া সরদারপাড়ার পরিচালক হাফেজ হায়দার আলী বলেন, ‘বিতরণে আমি যতক্ষণ ছিলাম তখন কোনো অনিয়ম পাইনি। তবে আমি চলে আসার পর কিছু অনিয়মের অভিযোগ শুনেছি।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক মোকছুদার রহমান লেলিন বলেন, ‘এগুলো বাজে কথা, ত্রাণের মাল কোনো ভাগ-বাটোয়ারা হয়নি।’

এ বিষয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) গোলাম ফেরদৌস বলেন, ‘কাতার চ্যারিটির ত্রাণ বিতরণে সরকারি নীতিমালা অনুসরণ করা হয়নি।

সদ্য যোগদানকৃত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুব হাসান বলেন, ‘সরকারি নিয়ম অনুযায়ী ত্রাণ বিতরণের জন্য দুস্থদের তালিকা উপজেলা প্রশাসনকে দেয়ার কথা থাকলেও তারা তালিকা জমা দেননি।

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

আরও
 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত