জামাতে নামাজ আদায়ে খুলে যাচ্ছে মালয়েশিয়ার মসজিদ
jugantor
জামাতে নামাজ আদায়ে খুলে যাচ্ছে মালয়েশিয়ার মসজিদ

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৪ মে ২০২০, ২০:৩৩:২৭  |  অনলাইন সংস্করণ

জামাতে নামাজ আদায়ে খুলে যাচ্ছে মালয়েশিয়ার মসজিদ

মসজিদে জামায়াতে নামাজ পড়ার ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা শিথিল করতে যাচ্ছে মালয়েশিয়া। ঈদ উৎসবকে সামনে রেখে শুক্রবার থেকেই নতুন আদেশ কার্যকর হবে বলে দেশটির সরকার জানিয়েছে।

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের লাগাম ধরতে আরোপ করা বিধিনিষেধ ধীরে ধীরে হালকা করতে যাচ্ছে মালয়েশীয় সরকার।

এর আগে গত সপ্তাহে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

মালয়েশিয়ায় এখন পর্যন্ত ছয় হাজার ৮১৯ জন করোনাায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ১১২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

ধর্মবিষয়ক মন্ত্রী জুলকিফলি মোহাম্মদ আল-বাকলি বলেন, রাজধানী কুয়ালালামপুরসহ বিভিন্ন কেন্দ্রীয় অঞ্চলে ৩০ জন কিংবা তার চেয়েও কম সংখ্যক মুসল্লিকে জামায়াতে নামাজের অনুমোদন দেয়া হবে। যদিও ইসলামে ইবাদত কেবল মসজিদ ও সুরাওয়ের মধ্যেই সীমিত না, মুসলমানদের আত্মিক উন্নয়নে এর বিপুল প্রভাব রয়েছে।

সুরাও হল সুমাত্রা এবং মালয় উপদ্বীপের কয়েকটি অঞ্চলে একটি ইসলামিক সমাবেশ ভবন। এই ভবন নামাজ এবং ধর্মীয় নির্দেশের জন্য ব্যবহার করা হয়। সাধারণত বাস্তবিক কাঠামগতভাবে ছোট ছোট আচার অনুষ্ঠানের ফলে বলা যায় সুরাও একটি মসজিদের অনুরূপ।

এদিকে মালয়েশিয়ার ১২টি রাজ্য সরকারের এই নির্দেশনার বাইরে থাকবে। কারণ ধর্মীয় বিষয়গুলোতে এসব অঞ্চলের নিজস্ব আইন আছে।

জুলকিফলি বলেন, ইচ্ছা করলে তারা একই ধরনের পদক্ষেপ নিতে পারে।

তাবলিগ জামাতের একটি জমায়েত থেকে দুই হাজার ৩০০ জনের শরীরে করোনা ছড়ানোর পর গত মধ্য-মার্চ থেকে মসজিদে জামাত নিষিদ্ধ করা হয়েছিল।

মালয়েশিয়ায় এখন দিনে দিনে করোনা সংক্রমণ কমছে। তবে স্কুল-কলেজ আগামী ৯ জুন পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।

জামাতে নামাজ আদায়ে খুলে যাচ্ছে মালয়েশিয়ার মসজিদ

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৪ মে ২০২০, ০৮:৩৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
জামাতে নামাজ আদায়ে খুলে যাচ্ছে মালয়েশিয়ার মসজিদ
ছবি: সংগৃহীত

মসজিদে জামায়াতে নামাজ পড়ার ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা শিথিল করতে যাচ্ছে মালয়েশিয়া। ঈদ উৎসবকে সামনে রেখে শুক্রবার থেকেই নতুন আদেশ কার্যকর হবে বলে দেশটির সরকার জানিয়েছে।

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের লাগাম ধরতে আরোপ করা বিধিনিষেধ ধীরে ধীরে হালকা করতে যাচ্ছে মালয়েশীয় সরকার।

এর আগে গত সপ্তাহে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

মালয়েশিয়ায় এখন পর্যন্ত ছয় হাজার ৮১৯ জন করোনাায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ১১২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

ধর্মবিষয়ক মন্ত্রী জুলকিফলি মোহাম্মদ আল-বাকলি বলেন, রাজধানী কুয়ালালামপুরসহ বিভিন্ন কেন্দ্রীয় অঞ্চলে ৩০ জন কিংবা তার চেয়েও কম সংখ্যক মুসল্লিকে জামায়াতে নামাজের অনুমোদন দেয়া হবে। যদিও ইসলামে ইবাদত কেবল মসজিদ ও সুরাওয়ের মধ্যেই সীমিত না, মুসলমানদের আত্মিক উন্নয়নে এর বিপুল প্রভাব রয়েছে।

সুরাও হল সুমাত্রা এবং মালয় উপদ্বীপের কয়েকটি অঞ্চলে একটি ইসলামিক সমাবেশ ভবন। এই ভবন নামাজ এবং ধর্মীয় নির্দেশের জন্য ব্যবহার করা হয়। সাধারণত বাস্তবিক কাঠামগতভাবে ছোট ছোট আচার অনুষ্ঠানের ফলে বলা যায় সুরাও একটি মসজিদের অনুরূপ।

এদিকে মালয়েশিয়ার ১২টি রাজ্য সরকারের এই নির্দেশনার বাইরে থাকবে। কারণ ধর্মীয় বিষয়গুলোতে এসব অঞ্চলের নিজস্ব আইন আছে। 

জুলকিফলি বলেন, ইচ্ছা করলে তারা একই ধরনের পদক্ষেপ নিতে পারে।

তাবলিগ জামাতের একটি জমায়েত থেকে দুই হাজার ৩০০ জনের শরীরে করোনা ছড়ানোর পর গত মধ্য-মার্চ থেকে মসজিদে জামাত নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। 

মালয়েশিয়ায় এখন দিনে দিনে করোনা সংক্রমণ কমছে। তবে স্কুল-কলেজ আগামী ৯ জুন পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস