জয়পুরহাটের সব বিপণীবিতান ও শপিংমল বন্ধ
jugantor
জয়পুরহাটের সব বিপণীবিতান ও শপিংমল বন্ধ

  জয়পুরহাট প্রতিনিধি  

১৪ মে ২০২০, ২৩:৪৯:০৬  |  অনলাইন সংস্করণ

জয়পুরহাটে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে শুক্রবার থেকে জেলার সব বিপণীবিতান ও শপিংমল অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জরুরি সভা শেষে এ ঘোষণা দেয়া হয়।

এ দিন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাকির হোসেনের সঙ্গে হুইপ আবু সাঈদ অল মাহমুদ স্বপন এমপি, অ্যাডভোকেট সামছুল আলম দুদু এমপি, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সালাম কবিরসহ সেনাবাহিনী, ব্যবসায়ী, সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ জরুরি সভা করেন।

সরকারি নির্দেশনার পর ১০ মে থেকে সারা দেশের ন্যায় জয়পুরহাটেও বিভিন্ন মার্কেট ও দোকানপাট খোলে। কিন্তু লকডাউনের কোনো বিধি-নিষেধ না মেনে অবাধে চলাফেরা এবং মার্কেটসমূহে কেনাকাটায় মানুষের ব্যাপক ভিড় শুরু হয়।

ইতিমধ্যে জেলায় ৭৫ জন করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন। এমন অবস্থায় আজ  শুক্রবার থেকে জয়পুরহাট জেলার সব বিপণীবিতান ও শপিংমল পরবর্তী ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে জেলা প্রশাসন। তবে কাঁচাবাজার ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দোকানপাট প্রশাসন নির্ধারিত সময় পর্যন্ত খোলা থাকবে।

জয়পুরহাটের সব বিপণীবিতান ও শপিংমল বন্ধ

 জয়পুরহাট প্রতিনিধি 
১৪ মে ২০২০, ১১:৪৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

জয়পুরহাটে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে শুক্রবার থেকে জেলার সব বিপণীবিতান ও শপিংমল অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জরুরি সভা শেষে এ ঘোষণা দেয়া হয়।

এ দিন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাকির হোসেনের সঙ্গে হুইপ আবু সাঈদ অল মাহমুদ স্বপন এমপি, অ্যাডভোকেট সামছুল আলম দুদু এমপি, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সালাম কবিরসহ সেনাবাহিনী, ব্যবসায়ী, সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ জরুরি সভা করেন।

সরকারি নির্দেশনার পর ১০ মে থেকে সারা দেশের ন্যায় জয়পুরহাটেও বিভিন্ন মার্কেট ও দোকানপাট খোলে। কিন্তু লকডাউনের কোনো বিধি-নিষেধ না মেনে অবাধে চলাফেরা এবং মার্কেটসমূহে কেনাকাটায় মানুষের ব্যাপক ভিড় শুরু হয়।

ইতিমধ্যে জেলায় ৭৫ জন করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন। এমন অবস্থায় আজ শুক্রবার থেকে জয়পুরহাট জেলার সব বিপণীবিতান ও শপিংমল পরবর্তী ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে জেলা প্রশাসন। তবে কাঁচাবাজার ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দোকানপাট প্রশাসন নির্ধারিত সময় পর্যন্ত খোলা থাকবে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস