শাহজাদপুরে মার্কেটে ক্রেতার ঢল, সামাজিক দূরত্ব মানছেন না কেউই

  শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি ১৪ মে ২০২০, ২৩:৫৫:৩৩ | অনলাইন সংস্করণ

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার মনিরামপুর, দ্বারিয়াপুর ও নতুনমাটি এলাকায় রাস্তাঘাট ও মার্কেটগুলোতে শিথিল লকডাউনে ঈদের কেনাকাটায় ক্রেতার ভিড় উপচে পড়েছে। এতে এ উপজেলাসহ আশপাশের উপজেলাগুলোতেও করোনাভাইরাস মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়ার আশংকা দেখা দিয়েছে।

গত ১ সপ্তাহ ধরে প্রতিদিন সকাল থেকে বাজার ও মার্কেটগুলোতে ক্রেতার ঢল শুরু হয়। এ ঢল চলে গভীর রাত পর্যন্ত। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ক্রেতা-বিক্রেতা কেউই সামাজিক দূরত্ব মানছেন না।

রিকশা-ভ্যান, অটো ও সিএনজিতে গাদাগাদি করে যাত্রী পরিবহন করা হচ্ছে। মাঝে-মধ্যে পুলিশ ও প্রশাসনের টহল গাড়ি চোখে পড়লেও তারা এ বিষয়ে কিছু না বলায় এ ভিড় ক্রমশ বেড়ে চলেছে।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে দেখা যায়, নতুনমাটি ও মনিরামপুর বাজারের বিভিন্ন দোকান ও মার্কেটে ক্রেতার উপচে পড়া ভিড়। বিশেষ করে কাপড়, জুতা, রেডিমেড পোশাক ও কসমেটিক্সের দোকানে ভিড় বেশি। তারা গাদাগাদি হয়ে ও গা-ঘেঁষাঘেঁষি করে তাদের পছন্দের জিনিস কিনতে বেশি ব্যস্ত রয়েছেন।

এ ব্যাপারে একাধিক ক্রেতা জানান, করোনার ভয় তো আছেই। কিন্তু কী করব ঈদেরও তো কেনাকাটা করতে হবে। পছন্দ মতো জিনিস কিনতে সবাই বাজারে এসেছে। এতে তো ভিড় একটু হবেই। চেষ্টা করছি দূরত্ব বজায় রেখে কেনাকাটা করতে।

অপরদিকে একাধিক দোকানদার বলেন, করোনায় দেড় মাস দোকান বন্ধ থাকায় তাদের চরম লোকসানের মুখে পড়তে হয়েছে। ঈদ উপলক্ষে লকডাউন শিথিল হওয়ায় দোকান খুলেছি। ক্রেতাদের দূরত্ব বজায় রেখে বেচা-বিক্রির চেষ্টা করছি। ভিড় বেশি থাকায় কেউই তা মানতে চাইছেন না।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন, শাহজাদপুর উপজেলা শাখার সভাপতি গোলাম সাকলায়েন বলেন, এর পরিণতি হবে ভয়াবহ।

ঈদের পর এ এলাকায় করোনাভাইরাস মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়ার আশংকা প্রকাশ করে তিনি বলেন, মানুষ কেন নিজেদের এ মহামারীর দিকে ঠেলে দিচ্ছে। তাদের সামান্য ভুলে সরকারের সব চেষ্টা বিফলে যেতে বসেছে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে স্থানীয় প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

শাহজাদপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ মো. শামসুজ্জোহা বলেন, ঈদ উপলক্ষে সরকার মার্কেটগুলো খুলে দিয়েছে। তবে ক্রেতা-বিক্রেতাদের সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে বলা হয়েছে। কিন্তু শাহজাদপুরের ক্রেতারা তা কিছুতেই মানছেন না। এ অবস্থার কারণে অনেক স্থানে মার্কেট বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

আরও
 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত