করোনায় আক্রান্ত প্রখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী সুজেয় শ্যাম

  বিনোদন ডেস্ক ৩১ মে ২০২০, ১৬:৩৮:০৪ | অনলাইন সংস্করণ

সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক প্রখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী সুজেয় শ্যাম

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক প্রখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী সুজেয় শ্যাম।

সঙ্গীতশিল্পী ইউসুফ আলী খান ও তার পারিবারিক সূত্র বিষয়টি যুগান্তরকে নিশ্চিত করেছে।

ইউসুফ আলী খান জানান, ৩০ মে রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল থেকে জানানো হয়েছে সুজেয় শ্যামের শরীরে করোনাভাইরাস পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে।

গত ২৬ মে শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা নিয়ে শ্যামলীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হন সুজেয় শ্যাম। ২৭ মে নিয়ে তাকে নেয়া হয় কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে। সে সময় গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয় তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত।

যদিও সেসময় বিষয়টি অস্বীকার করে তার পরিবার। ওইদিন নমুনা পরীক্ষা দিয়ে সুজেয় শ্যাম হাসপাতাল থেকে বাসায়ও চলে যান।

অবশেষে ৩০ মে ফলাফল পজেটিভ জানতে পারলে কুর্মিটোলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয় জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত এই সংগীতশিল্পীকে।

প্রসঙ্গত, ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন স্বাধীন বাংলা বেতারে প্রচারিত সুজেয় শ্যামের সুর করা বিখ্যাত গানগুলোর মধ্যে রয়েছে ‘বিজয় নিশান উড়ছে ঐ’, ‘রক্ত দিয়ে নাম লিখেছি, বাংলাদেশের নাম’, ‘আজ রণ সাজে বাজিয়ে বিষাণ’, ‘মুক্তির একই পথ সংগ্রাম’, ‘ওরে আয়রে তোরা শোন’, ‘আয়রে চাষি-মজুর কুলি’, ‘রক্ত চাই, রক্ত চাই’, ‘আহা ধন্য আমার’। ২০০২ সালে হাছন রাজাকে নিয়ে নির্মিত ‘হাছন রাজা’ চলচ্চিত্রের সঙ্গীত পরিচালনা করে প্রথমবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান এই সঙ্গীতযোদ্ধা।

চলচ্চিত্রকার চাষী নজরুল ইসলামের বিশেষ অনুরোধে এই চলচ্চিত্রের একটি গানেও কণ্ঠ দেন তিনি। পরবর্তীতে ‘জয়যাত্রা’ (২০০৪) ও ‘অবুঝ বউ’ (২০১০) চলচ্চিত্রের গানের সঙ্গীত পরিচালনা করেও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন তিনি।

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

আরও
 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত