ফরিদপুরে মুক্তিযোদ্ধা কমলেশের লাশ সৎকারে বাঁধা!

  ফরিদপুর ব্যুরো ০১ জুন ২০২০, ০০:১১:৫৩ | অনলাইন সংস্করণ

করোনার সঙ্গে যুদ্ধ করে করে অবশেষে জগতের মায়া ত্যাগ করে ওপারে চলে গেলেন মুক্তিযোদ্ধা ও ফরিদপুর সদর উপজেলা ডেপুটি কমান্ডার কমলেশ চক্রবর্তী ভানু (৭০)। রোববার ভোরে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

তিনি গত ১২ দিন ধরে করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। মৃত্যুকালে ২ পুত্র, স্ত্রী, স্বজনসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

এই বীর মুক্তিযোদ্ধার মরদেহ দুপুরে অম্বিকাপুর শশ্মানে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানে স্থানীয় কিছু জনতা তার সৎকারে বাঁধা সৃষ্টি করে। এক পর্যায়ে সেখানে পুলিশ বাড়ানো হয়।

সৎকারের কাজে শশ্মান কমিটি, সৎকার সমিতি বা হিন্দু সমাজের কোনো ব্যক্তিবর্গকে পাওয়া যায়নি। পুলিশ এই বীর মুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয় সম্মাননা জানিয়ে অবশেষে নিহতের পুত্রের মাধ্যমে সনাতনি ধর্ম অনুযায়ী পিতার মুখে অগ্নি নিবেদন করে পুলিশ পাহারায় দাহ সম্পন্ন করে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সদর সার্কেল পুলিশ সুপার, ইউএনও সদর, কোতোয়ালী থানার ওসিসহ প্রশাসনের বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গ।

কোতোয়ালী থানার ওসি মোর্শেদ আলম বলেন, আমাদের পুলিশ সুপার আলীমুজ্জামান বিপিএম-এর নির্দেশে এই বীর মুক্তিযোদ্ধার লাশ যথাযথ সম্মান জানিয়ে শেষকৃত্য সম্পন্ন করেছে পুলিশ।

এ বিষয়ে অম্বিকাপুর শশ্মান কমিটির সভাপতি লক্ষ্মণ দত্ত বলেন, আমি বিষয়টি শুনেছি। করোনা ছড়িয়ে পড়ার ভয়ে এলাকার স্থানীয়রা লাশটি দাহ করতে বাঁধা দিয়েছিল।

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

আরও

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত