অতিরিক্ত পুলিশ সুপারসহ শেরপুরে আরও ৫ জনের করোনা শনাক্ত
jugantor
অতিরিক্ত পুলিশ সুপারসহ শেরপুরে আরও ৫ জনের করোনা শনাক্ত

  শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি  

০৩ জুন ২০২০, ১৯:৩৯:০৯  |  অনলাইন সংস্করণ

বগুড়ার শেরপুরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শেরপুর সার্কেল) মো. গাজিউর রহমানসহ আরও ৫ জনের শরীরে করোনাভাইরাস পজিটিভ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে শেরপুরে ২৮ জন শনাক্ত হল।

আক্রান্তরা হলেন শেরপুর পৌর শহরের স্যান্ন্যালপাড়া এলাকার মৃত মজিবর রহমানের ছেলে মোকব্বেল হোসেন (৬০), ভবানীপুর ইউনিয়নের ছোনকা গ্রামের আশরাফ আলীর ছেলে আব্দুর রহিম (৩৯), শাহবন্দেগী ইউনিয়নের খন্দকার টোলা গ্রামের মৃত ইসহাকের ছেলে আব্দুল হামিদ (৫৭) ও বিশালপুর ইউনিয়নের মানিকচাপড় গ্রামের হাবিবুর রহমান (৫০)। গত ২৭ মে করোনাভাইরাস সন্দেহে তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এ ছাড়া অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শেরপুর সার্কেল) মো. গাজিউর রহমানের নমুনা বগুড়া সদরে সংগ্রহ করা হয়েছিল।

এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মোকছেদা খাতুন ও করোনা ফোকাল পার্সন ডা. আবু হাসান বলেন, যারা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয় তাদের সঙ্গে অশোভন আচরণ না করে ভালো ব্যবহার করুন। তারা যেন দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠে সে জন্য সহযোগিতা করতে হবে। তাদের প্রতি অমানবিক আচরণ না করে মানবিক আচরণ করতে হবে। করোনা আক্রান্ত হলেও তারা কিন্তু মানুষ। তাই তাদের বাড়িতে থেকে হোম আইসোলেশন সম্পন্ন করতে সহযোগিতা করার জন্য সবার প্রতি উদাত্ব আহ্বান জানান।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপারসহ শেরপুরে আরও ৫ জনের করোনা শনাক্ত

 শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি 
০৩ জুন ২০২০, ০৭:৩৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বগুড়ার শেরপুরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শেরপুর সার্কেল) মো. গাজিউর রহমানসহ আরও ৫ জনের শরীরে করোনাভাইরাস পজিটিভ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে শেরপুরে ২৮ জন শনাক্ত হল। 

আক্রান্তরা হলেন শেরপুর পৌর শহরের স্যান্ন্যালপাড়া এলাকার মৃত মজিবর রহমানের ছেলে মোকব্বেল হোসেন (৬০), ভবানীপুর ইউনিয়নের ছোনকা গ্রামের আশরাফ আলীর ছেলে আব্দুর রহিম (৩৯), শাহবন্দেগী ইউনিয়নের খন্দকার টোলা গ্রামের মৃত ইসহাকের ছেলে আব্দুল হামিদ (৫৭) ও বিশালপুর ইউনিয়নের মানিকচাপড় গ্রামের হাবিবুর রহমান (৫০)। গত ২৭ মে করোনাভাইরাস সন্দেহে তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এ ছাড়া অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শেরপুর সার্কেল) মো. গাজিউর রহমানের নমুনা বগুড়া সদরে সংগ্রহ করা হয়েছিল।

এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মোকছেদা খাতুন ও করোনা ফোকাল পার্সন ডা. আবু হাসান বলেন, যারা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয় তাদের সঙ্গে অশোভন আচরণ না করে ভালো ব্যবহার করুন। তারা যেন দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠে সে জন্য সহযোগিতা করতে হবে। তাদের প্রতি অমানবিক আচরণ না করে মানবিক আচরণ করতে হবে। করোনা আক্রান্ত হলেও তারা কিন্তু মানুষ। তাই তাদের বাড়িতে থেকে হোম আইসোলেশন সম্পন্ন করতে সহযোগিতা করার জন্য সবার প্রতি উদাত্ব আহ্বান জানান।