‘বাবা কোলে নাও’

  বরিশাল ব্যুরো ০৬ জুন ২০২০, ২৩:১২:৫১ | অনলাইন সংস্করণ

করোনা পজিটিভ হওয়ায় পরিবারকে রক্ষায় আলাদা কক্ষে আইসোলেশনে থাকছেন পুলিশ কর্মকর্তা বাবা। আর তাই হঠাৎ বাবার আচরণে পরিবর্তন দেখতে পাচ্ছে সাড়ে তিন বছরের শিশুকন্যা আলীশাবা রহমান ইবতিদা।

কী কারণে কাছে আসছে না তার বাবা, কেনই বা কোলে নিয়ে আদর করছে না? এ প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে আইসোলেশনে থাকা বাবাকে জানালা থেকে বারবার ডাকছেন কন্যা ইবতিদা। তবে রুমের মধ্যে ঢুকতে এবং বাবার কাছে যেতে না পেরে ধৈর্যহারা হয়ে পড়েছেন পুলিশ কর্মকর্তার শিশু কন্যা।

জানালা থেকে বাবাকে ডাকছেন আর কোলে নেয়ার জন্য আকুতি করছেন এই ছোট্র শিশু। বাবাকে দেখে বলছে ‘বাবা কোলে নাও’। তবে বাবার সন্তোষজনক উত্তর না পেয়ে অতিষ্ঠ সেও। সুযোগ পেলেই বাবার কক্ষের জানালাতে উঁকি মারছেন শিশু ইবতিদা। এমনই এক দৃশ্যের ভিডিও দেখা গেছে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের ফেসবুক পেজে।

জানা গেছে, ৩১ মে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি (তদন্ত) আব্দুর রহমান মুকুলের করোনা পজিটিভ আসে। দায়িত্বরত অবস্থায় তিনি করোনা আক্রান্ত হন এবং রিপোর্ট আসার সঙ্গে সঙ্গেই তিনি নিজ ঘরে আইসোলশনে চলে যান। সেই থেকেই তিনিও মেয়েকে কোলে নিতে পারছেন না।

পারছেন না আদর করতে। সেই কষ্ট চাপা রেখেও মেয়েকে অনবরত স্বান্তনা দিয়ে যাচ্ছেন করোনা যোদ্ধা এই পুলিশ কর্মকর্তা। তবে কবে নাগাদ স্বাভাবিক অবস্থায় তিনি ফিরতে পারবেন তাও নিশ্চিত করে বলতে পারছে না কেউ।

আব্দুর রহমান মুকুল বলেন, করোনা শনাক্ত হওয়ার পর থেকে সমাজ ও পরিবারের স্বার্থে নিজেকে আলাদা রাখছি। কিন্তু সাড়ে তিন বছরের মেয়েকে তা বোঝাতে পারছি না। অবশ্য তা বোঝানো সম্ভবও না।

সে বুকের ওপর শুয়ে থাকতে চায়, কাছে আসতে চায়। এই বয়সে সে কখনও আমার বুকের ওপর ছাড়া শুয়ে থাকেনি। তাই এ আবদারটাই বেশি। কেন অফিসে যাচ্ছি না, তাও জিজ্ঞাসা করছে আমার মেয়ে।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত