কক্সবাজারে করোনারোগীর সেবায় পুলিশের ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস

  শফিউল্লাহ শফি, কক্সবাজার ১৬ জুন ২০২০, ২২:৪১:০৮ | অনলাইন সংস্করণ

কক্সবাজারে করোনারোগীদের সেবায় এক মহতী উদ্যোগ হাতে নিয়েছে জেলা পুলিশ। জেলা শহরে করোনা রোগী বললেই যে কোনো যানবাহন যেখানে সব সময় সর্বদায় মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে সেখানে মানবিক চিন্তাধারায় এগিয়ে এসেছে পুলিশ।

করোনা রোগীদের সেবায় রাত-দিন ২৪ ঘণ্টা চালু করা হয়েছে ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস। ফোন করলেই যে কোনো করোনা রোগীকে হাসপাতাল কিংবা গন্তব্যে পৌঁছে দিচ্ছে এই অ্যাম্বুলেন্সটি।

সূত্র মতে, করোনারোগীদের সেবায় পুলিশের চালু করা অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস সাধারণ লোকজনসহ সর্বমহলে সুনাম কুড়িয়েছে। দীর্ঘ কয়েকমাস ধরে কক্সবাজার জেলা শহরে লকডাউন চলমান থাকায় মানুষ একদিকে আর্থিক সংকটে ভুগছেন। অন্যদিকে করোনারোগী বললে যানবাহন চালকদের অনীহা প্রকাশ আরও বেশি ভোগান্তিতে ফেলেছেন করোনা আক্রান্ত পরিবারগুলোকে। এমন কঠিন মুহূর্তে কক্সবাজার পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন মানবিক সেবা হিসেবে ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স চালু করায় অনেকটা স্বস্তি ফিরেছে সমস্যাগ্রস্তদের মাঝে।

মঙ্গলবার দুপুরে কক্সবাজার জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সামনে অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন জেলা পুলিশ সুপার এ বি এম মাসুদ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন বলেন, কেবল করোনারোগীদেরকে এই অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস সেবাটি দেয়া হবে। এই সেবা পেতে করোনা রোগীর পরিবার থেকে পুলিশের ০১৭২৭-৬৬৬৬৬৬ নম্বর মোবাইল ফোন এবং ০৩৪১-৬৪০৪৮ নম্বর টিঅ্যান্ডটি ফোনে যোগাযোগ করতে হবে। ফোন ২টি ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকবে।

কক্সবাজার পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন যুগান্তরকে বলেন, মানুষের দুঃখ-দুর্দশা এবং হতাশা দেখে এই মানবিক সেবাটি চালু করা হয়েছে। তার মধ্যে দুইটি বিষয় আমাকে বেশি নাড়া দিয়েছে। একটি সম্প্রতি কক্সবাজার সদর হাসপাতালে করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যান এক ব্যক্তি। পরে তার লাশ নেয়ার জন্য দীর্ঘ সময় কোনো অ্যাম্বুলেন্স পাইনি।
তিনি বলেন, ১২ জুন স্থানীয় সাংবাদিক ও ক্রীড়াবিদ জিয়াউল করিমের স্ত্রী করোনা আক্রান্ত হওয়ায় চমেকে নিয়ে যেতে অ্যাম্বুলেন্সের জন্য অনেক ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে। পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের সামনে অ্যাম্বুলেন্সয়েই তিনি মারা যান। এই দুইটি ঘটনা থেকে জেলা পুলিশের সদস্যদের রেশন, পুলিশ কর্মকর্তাদের ব্যক্তিগত অনুদান এবং কয়েকজন প্রবাসী ব্যক্তির দানের অর্থ নিয়ে পুলিশ এমন উদ্যোগ হাতে নিয়েছে।

পুলিশ সুপার আরও বলেন, সারা দেশের মধ্যে করোনার মহামারীতে কক্সবাজার ৪ নম্বরে রয়েছে। সুতরাং এই মহামারীর বিষয়টি মাথায় রেখে কক্সবাজারবাসীকে সর্তক হতে হবে। অন্যথায় চলমান মৃত্যুর মিছিল থেকে কেউ রেহায় পাবে না।

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

আরও

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত