রাজনগরে ইউএনওর স্বামীসহ ৩ জন করোনায় আক্রান্ত
jugantor
রাজনগরে ইউএনওর স্বামীসহ ৩ জন করোনায় আক্রান্ত

  কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি  

১৬ জুন ২০২০, ২২:৫৩:২৬  |  অনলাইন সংস্করণ

মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলায় নতুন করে আরও ৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে একজন রাজনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার স্বামী। তিনি অগ্রণী ব্যাংকের উপজেলার মুন্সিবাজার শাখার প্রিন্সিপাল অফিসার হিসেবে কর্মরত।

অন্য দুইজনের মধ্যে একজনের বাড়ি ফতেপুর ইউনিয়নের তুলাপুর গ্রামে ও অপর একজনের বাড়ি টেংরা ইউনিয়নের ইলাশপুর গ্রামে। মঙ্গলবার ১৬ জুন সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. বর্ণালী দাশ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তবে তাদের নাম জানাতে রাজি হননি সংশ্লিষ্টরা।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রিয়াঙ্কা পাল জানান, চলতি মাসের ৪ তারিখে তার স্বামী অগ্রণী ব্যাংকের সুনামগঞ্জের ছাতক শাখা থেকে বদলি হয়ে মুন্সিবাজার শাখায় যোগদান করেন। এ সময় তিনি সর্দি ও জ্বরে ভোগায় যোগদানের পর থেকে আর কর্মস্থলে যাননি। পরে কোভিড টেস্টের জন্য নমুনা দেয়া হলে বুধবার তার স্বামী করোনা পজিটিভ বলে জানানো হয়। বর্তমানে তার জ্বর-সর্দি কমেছে।

উপজেলা হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, গত ৭ জুন তারা নমুনা দেন। নমুনা পরীক্ষা শেষে ১৬ জুন সকালে ঢাকা থেকে সিভিল সার্জন ডা. তাওহীদ আহমদকে জানানো হয় রাজনগর উপজেলার এই ৩ জন করোনা পজিটিভ। পরে সিভিল সার্জন মোবাইল ফোনে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. বর্ণালী দাশকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন।

এ দিকে এ পর্যন্ত রাজনগর উপজেলা হাসপাতালে নমুনা দিয়ে ১৩ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ও একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৪ জন।

রাজনগরে ইউএনওর স্বামীসহ ৩ জন করোনায় আক্রান্ত

 কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি 
১৬ জুন ২০২০, ১০:৫৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলায় নতুন করে আরও ৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে একজন রাজনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার স্বামী। তিনি অগ্রণী ব্যাংকের উপজেলার মুন্সিবাজার শাখার প্রিন্সিপাল অফিসার হিসেবে কর্মরত।

অন্য দুইজনের মধ্যে একজনের বাড়ি ফতেপুর ইউনিয়নের তুলাপুর গ্রামে ও অপর একজনের বাড়ি টেংরা ইউনিয়নের ইলাশপুর গ্রামে। মঙ্গলবার ১৬ জুন সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. বর্ণালী দাশ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তবে তাদের নাম জানাতে রাজি হননি সংশ্লিষ্টরা।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রিয়াঙ্কা পাল জানান, চলতি মাসের ৪ তারিখে তার স্বামী অগ্রণী ব্যাংকের সুনামগঞ্জের ছাতক শাখা থেকে বদলি হয়ে মুন্সিবাজার শাখায় যোগদান করেন। এ সময় তিনি সর্দি ও জ্বরে ভোগায় যোগদানের পর থেকে আর কর্মস্থলে যাননি। পরে কোভিড টেস্টের জন্য নমুনা দেয়া হলে বুধবার তার স্বামী করোনা পজিটিভ বলে জানানো হয়। বর্তমানে তার জ্বর-সর্দি কমেছে।

উপজেলা হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, গত ৭ জুন তারা নমুনা দেন। নমুনা পরীক্ষা শেষে ১৬ জুন সকালে ঢাকা থেকে সিভিল সার্জন ডা. তাওহীদ আহমদকে জানানো হয় রাজনগর উপজেলার এই ৩ জন করোনা পজিটিভ। পরে সিভিল সার্জন মোবাইল ফোনে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. বর্ণালী দাশকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন।

এ দিকে এ পর্যন্ত রাজনগর উপজেলা হাসপাতালে নমুনা দিয়ে ১৩ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ও একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৪ জন।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস