জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মহাসড়কে কাজ করছে ভাঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ
jugantor
জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মহাসড়কে কাজ করছে ভাঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ

  ভাঙ্গা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি  

১৮ জুন ২০২০, ২৩:২২:৪৬  |  অনলাইন সংস্করণ

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে করোনা মোকাবেলা ও মহাসড়কে চাঁদাবাজি বন্ধে নিরলসভাবে কাজ করছেন ভাঙ্গা হাইওয়ে থানা পুলিশ। মাদারীপুর থেকে সূর্যনগর ও ফরিদপুর থেকে গোপালগঞ্জ পর্যন্ত মহাসড়কে কোনো ধরনের চেকপোস্ট বা শ্রমিকরা চাঁদাবাজি করছে তা চোখে পড়েনি।

পুলিশ চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই রোধে মহাসড়কে রাত-দিন কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছে। এ নিয়ে বিভিন্ন সংগঠনের সঙ্গে বৃহস্পতিবার দুপুরে সভা করেছে হাইওয়ে থানা পুলিশ।

এ ব্যাপারে ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার ওসি মো. আতাউর রহমান জানান, ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার সব পুলিশ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে করোনা মোকাবেলা ও মহাসড়কে চাঁদাবাজি বন্ধে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। বর্তমানে মহাসড়কে কোনো ধরনের চাঁদাবাজির ঘটনা ঘটেনি। বর্তমানে মহাসড়কে চাঁদাবাজি বন্ধে মালিক সমিতি, শ্রমিক সংগঠন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, কমিনিউটি পুলিশ ও সাংবাদিকদের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে কাজ করে করছি। এ ছাড়া মহাসড়কে চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই রোধে রাত-দিন কঠোর পরিশ্রম করছি।

তিনি বলেন, এখন মহাসড়কে অটো, নসিমন, করিমন ও থ্রি-হুইলার বা ব্যাটারিচালিত গাড়ি সম্পূর্ণ বন্ধ করা দেয়া হয়েছে। এরপরও যদি কেউ মহাসড়কে উঠে চলাচল করে তাদের গাড়ি আটক রেখে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। মহাসড়কে কোনো এলাকায় কোনো ব্যক্তি বা সংগঠন চাঁদাবাজি করলে তাৎক্ষণিক পুলিশকে অবহিত করার জন্য সবাইকে অনুরোধ করছি।

হাইওয়ে পুলিশ মাদারীপুর রিজিয়নের এডিশনাল এসপি মো. সিরাজুল ইসলাম জানান, হাইওয়ে এলাকায় যদি কেউ চাঁদাবাজি করে তার বিরুদ্ধে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ ছাড়া পুলিশ সদস্য যদি মহাসড়কে চাঁদাবাজি করে, প্রমাণসাপেক্ষে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ ছাড়া কোনো সংগঠন বা গোষ্ঠীর নামে চাঁদাবাজি করলে তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশকে অবহিত করার জন্য সবাইকে অনুরোধ করা হচ্ছে।

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মহাসড়কে কাজ করছে ভাঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ

 ভাঙ্গা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি 
১৮ জুন ২০২০, ১১:২২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে করোনা মোকাবেলা ও মহাসড়কে চাঁদাবাজি বন্ধে নিরলসভাবে কাজ করছেন ভাঙ্গা হাইওয়ে থানা পুলিশ। মাদারীপুর থেকে সূর্যনগর ও ফরিদপুর থেকে গোপালগঞ্জ পর্যন্ত মহাসড়কে কোনো ধরনের চেকপোস্ট বা শ্রমিকরা চাঁদাবাজি করছে তা চোখে পড়েনি।

পুলিশ চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই রোধে মহাসড়কে রাত-দিন কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছে। এ নিয়ে বিভিন্ন সংগঠনের সঙ্গে বৃহস্পতিবার দুপুরে সভা করেছে হাইওয়ে থানা পুলিশ।

এ ব্যাপারে ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার ওসি মো. আতাউর রহমান জানান, ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার সব পুলিশ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে করোনা মোকাবেলা ও মহাসড়কে চাঁদাবাজি বন্ধে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। বর্তমানে মহাসড়কে কোনো ধরনের চাঁদাবাজির ঘটনা ঘটেনি। বর্তমানে মহাসড়কে চাঁদাবাজি বন্ধে মালিক সমিতি, শ্রমিক সংগঠন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, কমিনিউটি পুলিশ ও সাংবাদিকদের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে কাজ করে করছি। এ ছাড়া মহাসড়কে চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই রোধে রাত-দিন কঠোর পরিশ্রম করছি।

তিনি বলেন, এখন মহাসড়কে অটো, নসিমন, করিমন ও থ্রি-হুইলার বা ব্যাটারিচালিত গাড়ি সম্পূর্ণ বন্ধ করা দেয়া হয়েছে। এরপরও যদি কেউ মহাসড়কে উঠে চলাচল করে তাদের গাড়ি আটক রেখে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। মহাসড়কে কোনো এলাকায় কোনো ব্যক্তি বা সংগঠন চাঁদাবাজি করলে তাৎক্ষণিক পুলিশকে অবহিত করার জন্য সবাইকে অনুরোধ করছি।

হাইওয়ে পুলিশ মাদারীপুর রিজিয়নের এডিশনাল এসপি মো. সিরাজুল ইসলাম জানান, হাইওয়ে এলাকায় যদি কেউ চাঁদাবাজি করে তার বিরুদ্ধে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ ছাড়া পুলিশ সদস্য যদি মহাসড়কে চাঁদাবাজি করে, প্রমাণসাপেক্ষে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ ছাড়া কোনো সংগঠন বা গোষ্ঠীর নামে চাঁদাবাজি করলে তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশকে অবহিত করার জন্য সবাইকে অনুরোধ করা হচ্ছে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস