তিন মাস পর বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে খাদ্যদ্রব্য আমদানি
jugantor
তিন মাস পর বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে খাদ্যদ্রব্য আমদানি

  বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি  

১৯ জুন ২০২০, ২১:৩০:৪১  |  অনলাইন সংস্করণ

বেনাপোল বন্দর
ফাইল ছবি

দীর্ঘ ৩ মাস পর বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে খাদ্যদ্রব্য জাতীয় কাঁচামাল আমদানি পুনরায় শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে ৪০ ট্রাক পচনশীল পণ্য বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে।

এ সব আমদানিকৃত পণ্যের মধ্যে রয়েছে পেঁয়াজ, ডালিম, পান পাতা ও মাছ। রাতে কিছু পণ্য খালাস করা হয়। পরে শুক্রবার সকালে অধিকাংশ পণ্য চালান খালাস হয়ে ঢাকার উদ্দেশে চলে গেছে।
 
প্রায় তিন মাস পর স্থলপথে ভারত থেকে ৪০ ট্রাক খাদ্যদ্রব্য জাতীয় পণ্য আমদানি হয়েছে বলে বেনাপোল চেকপোস্ট কাস্টমস কার্গো শাখার রাজস্ব কর্মকর্তা নাসিদুল হক জানান।

বেনাপোল সিএন্ডএফ অ্যাসোসিয়েশন সভাপতি মফিজুর রহমান সজন জানান, দীর্ঘদিন পর কাঁচামাল আমদানি শুরু হওয়ায় স্বস্তি ফিরেছে সবার মধ্যে।

বেনাপোল বন্দরের পরিচালক (ট্রাফিক) মামুন কবীর তরফদার বলেন, ধীরে ধীরে বন্দরে আমদানি বাণিজ্য স্বাভাবিক হচ্ছে। আমদানিকারকরা যাতে দ্রুত পণ্য খালাস করে নিতে পারেন সে জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

করোনার কারণে গত ২২ মার্চ থেকে বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে সব ধরনের পণ্য আমদানি-রফতানি বন্ধ হয়ে যায়। পরবর্তীকালে লকডাউন শিথিল হলে গত ৭ জুন সড়কপথে সাধারণ পণ্যের আমদানি শুরু হলেও খাদ্যদ্রব্য জাতীয় পচনশীল পণ্যের আমদানি বন্ধ ছিল। 

তিন মাস পর বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে খাদ্যদ্রব্য আমদানি

 বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি 
১৯ জুন ২০২০, ০৯:৩০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বেনাপোল বন্দর
ফাইল ছবি

দীর্ঘ ৩ মাস পর বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে খাদ্যদ্রব্য জাতীয় কাঁচামাল আমদানি পুনরায় শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে ৪০ ট্রাক পচনশীল পণ্য বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে।

এ সব আমদানিকৃত পণ্যের মধ্যে রয়েছে পেঁয়াজ, ডালিম, পান পাতা ও মাছ। রাতে কিছু পণ্য খালাস করা হয়। পরে শুক্রবার সকালে অধিকাংশ পণ্য চালান খালাস হয়ে ঢাকার উদ্দেশে চলে গেছে।

প্রায় তিন মাস পর স্থলপথে ভারত থেকে ৪০ ট্রাক খাদ্যদ্রব্য জাতীয় পণ্য আমদানি হয়েছে বলে বেনাপোল চেকপোস্ট কাস্টমস কার্গো শাখার রাজস্ব কর্মকর্তা নাসিদুল হক জানান।

বেনাপোল সিএন্ডএফ অ্যাসোসিয়েশন সভাপতি মফিজুর রহমান সজন জানান, দীর্ঘদিন পর কাঁচামাল আমদানি শুরু হওয়ায় স্বস্তি ফিরেছে সবার মধ্যে।

বেনাপোল বন্দরের পরিচালক (ট্রাফিক) মামুন কবীর তরফদার বলেন, ধীরে ধীরে বন্দরে আমদানি বাণিজ্য স্বাভাবিক হচ্ছে। আমদানিকারকরা যাতে দ্রুত পণ্য খালাস করে নিতে পারেন সে জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

করোনার কারণে গত ২২ মার্চ থেকে বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে সব ধরনের পণ্য আমদানি-রফতানি বন্ধ হয়ে যায়। পরবর্তীকালে লকডাউন শিথিল হলে গত ৭ জুন সড়কপথে সাধারণ পণ্যের আমদানি শুরু হলেও খাদ্যদ্রব্য জাতীয় পচনশীল পণ্যের আমদানি বন্ধ ছিল।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০
২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০