নোয়াখালীর গ্রামে-গঞ্জেও ছড়িয়ে পড়ছে করোনা
jugantor
নোয়াখালীর গ্রামে-গঞ্জেও ছড়িয়ে পড়ছে করোনা

  নোয়াখালী প্রতিনিধি  

২৫ জুন ২০২০, ২০:৫১:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালী জেলা, উপজেলা শহরসহ গ্রামে-গঞ্জে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। জেলায় এ পর্যন্ত মারা গেছেন ৪৩ জন, আক্রান্ত হয়েছেন ১১৬ পুলিশ সদস্যসহ ১ হাজার ৮২৮ জন। বর্তমানে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় লকডাউন চলছে।

জেলা সিভিল সার্জন ডা. মাসুম ইফতেখার জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছে ১৯ জন এবং মারা গেছেন ২ জন। এ নিয়ে মারা গেছে ৪৩ জন। জেলায় ১১৬ পুলিশ সদস্যসহ ১ হাজার ৮২৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। ৪২ লাখ মানুষের জেলায় এ পর্যন্ত ১০ হাজার ৪২ জনের করোনা স্যাম্পল কালেকশন করে রিপোর্ট পাওয়া গেছে ৮ হাজার ৯৪৬ জনের।

এ জেলায় করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন ১৩ জন। বিনা চিকিৎসায় মারা গেছেন ৫ জন।

সিভিল সার্জন ডা. মাসুম ইফতেখার জানান, জেলার নোয়াখালী সদর, চৌমুহনী ও চাটখিল পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের করোনা পরিস্থিতি দ্রুত অবনতির কারণে ৩ দিন পূর্বে এ ওয়ার্ডগুলোকে রেড জোন ঘোষণা করার অনুমতির জন্য স্বাস্থ্য অধিদফতরে চিঠি লেখা হয়েছে। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত কোনো আদেশ না দেয়ায় রেড জোন ঘোষণা করা যাচ্ছে না। এ ব্যাপারে জেলা স্বাচিপ সভাপতি ডা. ফজলে এলাহী খান ঢাকায় কাজ করছেন।

তিনি বলেন, নোয়াখালী জেলা, উপজেলা শহরসহ গ্রামে-গঞ্জে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। পরিস্থিতি দ্রুত অবনতির দিকে যাওয়ায় আমরা অনেক বাড়ি লকডাউন ঘোষণা করার চিন্তা-ভাবনা করছি।তবে বাড়ির সংখ্যা তিনি জানাতে পারেননি।

নোয়াখালীর গ্রামে-গঞ্জেও ছড়িয়ে পড়ছে করোনা

 নোয়াখালী প্রতিনিধি 
২৫ জুন ২০২০, ০৮:৫১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালী জেলা, উপজেলা শহরসহ গ্রামে-গঞ্জে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। জেলায় এ পর্যন্ত মারা গেছেন ৪৩ জন, আক্রান্ত হয়েছেন ১১৬ পুলিশ সদস্যসহ ১ হাজার ৮২৮ জন। বর্তমানে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় লকডাউন চলছে।

জেলা সিভিল সার্জন ডা. মাসুম ইফতেখার জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছে ১৯ জন এবং মারা গেছেন ২ জন। এ নিয়ে মারা গেছে ৪৩ জন। জেলায় ১১৬ পুলিশ সদস্যসহ ১ হাজার ৮২৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। ৪২ লাখ মানুষের জেলায় এ পর্যন্ত ১০ হাজার ৪২ জনের করোনা স্যাম্পল কালেকশন করে রিপোর্ট পাওয়া গেছে ৮ হাজার ৯৪৬ জনের।

এ জেলায় করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন ১৩ জন। বিনা চিকিৎসায় মারা গেছেন ৫ জন।

সিভিল সার্জন ডা. মাসুম ইফতেখার জানান, জেলার নোয়াখালী সদর, চৌমুহনী ও চাটখিল পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের করোনা পরিস্থিতি দ্রুত অবনতির কারণে ৩ দিন পূর্বে এ ওয়ার্ডগুলোকে রেড জোন ঘোষণা করার অনুমতির জন্য স্বাস্থ্য অধিদফতরে চিঠি লেখা হয়েছে। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত কোনো আদেশ না দেয়ায় রেড জোন ঘোষণা করা যাচ্ছে না। এ ব্যাপারে জেলা স্বাচিপ সভাপতি ডা. ফজলে এলাহী খান ঢাকায় কাজ করছেন।

তিনি বলেন, নোয়াখালী জেলা, উপজেলা শহরসহ গ্রামে-গঞ্জে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। পরিস্থিতি দ্রুত অবনতির দিকে যাওয়ায় আমরা অনেক বাড়ি লকডাউন ঘোষণা করার চিন্তা-ভাবনা করছি।তবে বাড়ির সংখ্যা তিনি জানাতে পারেননি।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০