করোনায় মৃত ৮৯ জনের লাশ দাফন করলেন কাউন্সিলর খোরশেদ

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৬ জুন ২০২০, ১২:০৩:০৫ | অনলাইন সংস্করণ

কোভিড-১৯ মহামারী পরিস্থিতিতে নারায়ণগঞ্জবাসীর আশার বাতিঘর সিটি করপোরেশনের ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তিদের লাশ দাফন করে আসছেন তিনি। নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়েই এ কাজ করে যাচ্ছেন খোরশেদ। সংক্রমিতদের পাশে দাঁড়াতে গিয়ে সস্ত্রীক করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন।

তবুও থেমে নেই তার কার্যক্রম। এখনও খবর পেছে ছুটে যান লাশ দাফনে।এ পর‌্যন্ত ৮৯ জনের মৃতদেহ দাফন করেছে টিম খোরশেদ-১৩ টিম। তারা ধর্মীয় ও স্বাস্থবিধি মেনে মেনে মৃত ব্যক্তির গোসল করানো থেকে দাফন পর্যন্ত যাবতীয় আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করে আসছে।

বৃহস্পতিবার ৮৯তম করোনা পজিটিভ মৃতদেহ দাফন করে দলটি। ৮৯ তম ব্যক্তি খোরশেদের বন্ধু ইমতিয়াজ শাকিল। কন্টিনেন্টাল কুরিয়ার সার্ভিসের এই ডিজিএম ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

এদিকে করোনা আক্রান্ত মুমূর্ষ রোগীদের বাঁচাতে টিম খোরশেদ-১৩ প্লাজমাও দান করে যাচ্ছে। বৃহস্পতিবার দলটির প্রচেষ্টায় ৩১ ও ৩২ তম প্লাজমা দেয়া হয়। সাজেদা হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন করোনা আক্রান্ত চৈতীকে ২০০ এমএল ‘ও’ পজিটিভ প্লাজমা দেন তারা।

এ বিষয়ে কাউন্সিলর মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ বলেন,করোনা আক্রান্তদের বাঁচাতে আমি নিজেও প্লাজমা দিয়েছি।এটি রক্তদানের চেয়েও সহজ কাজ। করোনা আক্রান্ত মুমূর্ষ রোগীকে প্লাজমা দিলে হয়তো আল্লাহর রহমতে তিনি জীবন ফিরে পেতে পারেন। আমরা সবাইকে আহ্বান করছি— প্লাজমা দিন, জীবন বাঁচান।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত