করোনার প্রতিরোধে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পুলিশের শারীরিক অনুশীলন
jugantor
করোনার প্রতিরোধে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পুলিশের শারীরিক অনুশীলন

  ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি  

২৮ জুন ২০২০, ২২:৩০:২৯  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনার প্রতিরোধে পুলিশের শারীরিক অনুশীলন করছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পুলিশ। প্রতিদিন সকালে থানা, ফাঁড়িসহ সব ইউনিটের অফিসার ও ফোর্সদের রুটিন অনুযায়ী সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এক ঘণ্টা করে এ শারীরিক অনুশীলন করানো হচ্ছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমানের নির্দেশনা মোতাবেক জেলার সব ইউনিটে প্রতিদিন শারীরিক অনুশীলন করা হচ্ছে। পাশাপাশি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে করণীয়, বর্জনীয় এবং প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের লক্ষ্যে ও উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ পুলিশের যাবতীয় কার্যক্রম সংক্রান্তে পুলিশ সদর দফতরের নির্দেশনা যথাযথভাবে প্রতিপালিত হচ্ছে।

এতে করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পুলিশ সদস্যদের মাঝে কোভিড-১৯ ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে এবং সংক্রমণের হারও হ্রাস পেয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মুহাম্মদ শাজাহান বলেন, এই অনুশীলনের ফলে পুলিশ সদস্যরা শারীরিকভাবে সুরক্ষিত থাকবে।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আলমগীর হোসেন রোববার দুপুরে জানান, এ পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার ১৩৬ জন পুলিশ সদস্য কোভিড-১৯ ভাইরাস টেস্টের জন্য নমুনা প্রদান করেছেন। তার মধ্যে এসআই ২ জন, এএসআই ৬ জন এবং কনস্টেবল ১১ জনসহ সর্বমোট ১৯ জন পুলিশ সদস্য পজিটিভ রিপোর্ট পাওয়া যায়। আক্রান্তদের মধ্যে ৯ জন ইতিমধ্যে সুস্থ হয়ে নিজ নিজ কর্মস্থলে যোগদান করেছেন। অপর ১০ জন আক্রান্ত পুলিশ সদস্য বর্তমানে আইসোলেশনে রয়েছেন।

পাশপাশি পুলিশ সদস্যদের মনোবল চাঙ্গা রাখতে প্রতিদিন শারীরিক অনুশীলন করানো হচ্ছে বলে তিনি জানান।

করোনার প্রতিরোধে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পুলিশের শারীরিক অনুশীলন

 ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি 
২৮ জুন ২০২০, ১০:৩০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনার প্রতিরোধে পুলিশের শারীরিক অনুশীলন করছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পুলিশ। প্রতিদিন সকালে থানা, ফাঁড়িসহ সব ইউনিটের অফিসার ও ফোর্সদের রুটিন অনুযায়ী সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এক ঘণ্টা করে এ শারীরিক অনুশীলন করানো হচ্ছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমানের নির্দেশনা মোতাবেক জেলার সব ইউনিটে প্রতিদিন শারীরিক অনুশীলন করা হচ্ছে। পাশাপাশি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে করণীয়, বর্জনীয় এবং প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের লক্ষ্যে ও উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ পুলিশের যাবতীয় কার্যক্রম সংক্রান্তে পুলিশ সদর দফতরের নির্দেশনা যথাযথভাবে প্রতিপালিত হচ্ছে।

এতে করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পুলিশ সদস্যদের মাঝে কোভিড-১৯ ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে এবং সংক্রমণের হারও হ্রাস পেয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মুহাম্মদ শাজাহান বলেন, এই অনুশীলনের ফলে পুলিশ সদস্যরা শারীরিকভাবে সুরক্ষিত থাকবে।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আলমগীর হোসেন রোববার দুপুরে জানান, এ পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার ১৩৬ জন পুলিশ সদস্য কোভিড-১৯ ভাইরাস টেস্টের জন্য নমুনা প্রদান করেছেন। তার মধ্যে এসআই  ২ জন, এএসআই  ৬ জন এবং কনস্টেবল ১১ জনসহ সর্বমোট ১৯ জন পুলিশ সদস্য পজিটিভ রিপোর্ট পাওয়া যায়। আক্রান্তদের মধ্যে ৯ জন ইতিমধ্যে সুস্থ হয়ে নিজ নিজ কর্মস্থলে যোগদান করেছেন। অপর ১০ জন আক্রান্ত পুলিশ সদস্য বর্তমানে আইসোলেশনে রয়েছেন।

পাশপাশি পুলিশ সদস্যদের মনোবল চাঙ্গা রাখতে প্রতিদিন শারীরিক অনুশীলন করানো হচ্ছে বলে তিনি জানান।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস