করোনা: কুমিল্লায় পর্যবেক্ষণে নগরীর ২৭ ওয়ার্ড
jugantor
করোনা: কুমিল্লায় পর্যবেক্ষণে নগরীর ২৭ ওয়ার্ড

  কুমিল্লা ব্যুরো  

০৪ জুলাই ২০২০, ১৩:৫২:০৯  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনা: কুমিল্লায় পর্যবেক্ষণে নগরীর ২৭ ওয়ার্ড

কুমিল্লা নগরীতে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পর্যবেক্ষণ শুরু করেছে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জেলা সমন্বয় কমিটি।

শনিবার সকাল থেকে আগামী এক সপ্তাহ পর্যন্ত নগরীর ২৭টি ওয়ার্ডকে একসঙ্গে পর্যবেক্ষণে রাখা হবে। এ সময় জেলা প্রশাসন এবং স্বাস্থ্য বিভাগের মাধ্যমে নগরীর কোন কোন ওয়ার্ডগুলোতে সংক্রমণ বাড়ছে সেগুলোকে চিহ্নিত করা হবে। কোনো ওয়ার্ডে যদি আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে যায় তাহলে সমন্বয় কমিটির বৈঠকে সিদ্ধান্ত নিয়ে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে টানা ১৪দিন লকডাউনে থাকার পর শনিবার নগরীর ৩, ১০, ১২ ও ১৩ নং ওয়ার্ড এলাকায় জনসাধারনের চলাচল স্বাভাবিক ঘোষণা করা হয়েছে। এতে নগরীর ওইসব ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, কুমিল্লা নগরীর চারটি ওয়ার্ড ১৪দিন লকডাউনে রাখার পর কিছুটা সফলতা মিলেছে। লকডাউনের ১৪দিনে এসব ওয়ার্ডে আক্রান্তের সংখ্যা কমেছে।

শনিবার ওই চার ওয়ার্ডের লকডাউন তুলে নেয়া হলেও আগামী ১ সপ্তাহ পর্যবেক্ষণে থাকবে সিটি কর্পোরেশনের ২৭টি ওয়ার্ড। এ সময়ে প্রতিটি ওয়ার্ডে আলাদাভাবে করোনা সংক্রমণের হার বিবেচনা করে নেয়া হবে পরবর্তী সিদ্ধান্ত।

পরবর্তী এক সপ্তাহে আক্রান্তের সংখ্যা কম/বেশির ওপর নির্ভর করবে আবারো চলবে লকডাউন নাকি আসবে স্বাস্থ্য বিধি মেনে স্বাভাবিক চলাফেরার ঘোষণা। কোভিড-১৯ সংক্রান্ত কমিটি এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। শনিবার থেকে তারা পর্যবেক্ষনের কাজ শুরু করেছে।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক মো. আবুল ফজল মীর বলেন, শনিবার থেকে আগামী এক সপ্তাহ নগরীর ২৭টি ওয়ার্ডকে পর্যবেক্ষণে রাখা হচ্ছে, কোন ওয়ার্ডে সংক্রমণ বেড়ে গেলে সেখানে লকডাউন করা হতে পারে। এ সময় জেলা প্রশাসন পরিস্থিতি মনিটরিং করবে। সার্বিক অবস্থা বিবেচনা করে আগামী বৃহস্পতিবার নতুন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

করোনা: কুমিল্লায় পর্যবেক্ষণে নগরীর ২৭ ওয়ার্ড

 কুমিল্লা ব্যুরো 
০৪ জুলাই ২০২০, ০১:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
করোনা: কুমিল্লায় পর্যবেক্ষণে নগরীর ২৭ ওয়ার্ড
ফাইল ছবি

কুমিল্লা নগরীতে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পর্যবেক্ষণ শুরু করেছে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জেলা সমন্বয় কমিটি।

শনিবার সকাল থেকে আগামী এক সপ্তাহ পর্যন্ত নগরীর ২৭টি ওয়ার্ডকে একসঙ্গে পর্যবেক্ষণে রাখা হবে। এ সময় জেলা প্রশাসন এবং স্বাস্থ্য বিভাগের মাধ্যমে নগরীর কোন কোন ওয়ার্ডগুলোতে সংক্রমণ বাড়ছে সেগুলোকে চিহ্নিত করা হবে। কোনো ওয়ার্ডে যদি আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে যায় তাহলে সমন্বয় কমিটির বৈঠকে সিদ্ধান্ত নিয়ে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে টানা ১৪দিন লকডাউনে থাকার পর শনিবার নগরীর ৩, ১০, ১২ ও ১৩ নং ওয়ার্ড এলাকায় জনসাধারনের চলাচল স্বাভাবিক ঘোষণা করা হয়েছে। এতে নগরীর ওইসব ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, কুমিল্লা নগরীর চারটি ওয়ার্ড ১৪দিন লকডাউনে রাখার পর কিছুটা সফলতা মিলেছে। লকডাউনের ১৪দিনে এসব ওয়ার্ডে আক্রান্তের সংখ্যা কমেছে।

শনিবার ওই চার ওয়ার্ডের লকডাউন তুলে নেয়া হলেও আগামী ১ সপ্তাহ পর্যবেক্ষণে থাকবে সিটি কর্পোরেশনের ২৭টি ওয়ার্ড। এ সময়ে প্রতিটি ওয়ার্ডে আলাদাভাবে করোনা সংক্রমণের হার বিবেচনা করে নেয়া হবে পরবর্তী সিদ্ধান্ত।

পরবর্তী এক সপ্তাহে আক্রান্তের সংখ্যা কম/বেশির ওপর নির্ভর করবে আবারো চলবে লকডাউন নাকি আসবে স্বাস্থ্য বিধি মেনে স্বাভাবিক চলাফেরার ঘোষণা। কোভিড-১৯ সংক্রান্ত কমিটি এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। শনিবার থেকে তারা পর্যবেক্ষনের কাজ শুরু করেছে।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক মো. আবুল ফজল মীর বলেন, শনিবার থেকে আগামী এক সপ্তাহ নগরীর ২৭টি ওয়ার্ডকে পর্যবেক্ষণে রাখা হচ্ছে, কোন ওয়ার্ডে সংক্রমণ বেড়ে গেলে সেখানে লকডাউন করা হতে পারে। এ সময় জেলা প্রশাসন পরিস্থিতি মনিটরিং করবে। সার্বিক অবস্থা বিবেচনা করে আগামী বৃহস্পতিবার নতুন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস