অবশেষে বাংলাদেশি পণ্য নিচ্ছে ভারত
jugantor
অবশেষে বাংলাদেশি পণ্য নিচ্ছে ভারত

  বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি  

০৫ জুলাই ২০২০, ২১:১৫:১৩  |  অনলাইন সংস্করণ

দুই দেশের কাস্টমস, বন্দর ও ব্যবসায়ী সংগঠনগুলোর ফলপ্রসূ বৈঠকে ভারত বাংলাদেশি রফতানি পণ্য গ্রহণ করতে রাজি হয়েছে। এতে বেনাপোল বন্দর দিয়ে চালু হয়েছে আমদানি-রফতানি।

রোববার সন্ধ্যা ৭টার দিকে বৃষ্টির মধ্যে ভারত থেকে ৫ ট্রাক পণ্য বাংলাদেশে আমদানি হয়েছে। বাংলাদেশ থেকে ৫ ট্রাক পণ্য রফতানি হয়েছে ভারতে। এতে বেনাপোল বন্দরে ফিরে এসেছে প্রাণ চাঞ্চল্য।

বেনাপোল বন্দর ব্যবহারকারী সংগঠনগুলো বাংলাদেশি রফতানি পণ্য গ্রহণ করতে ভারত রাজি না হওয়ায় গত বুধবার থেকে ভারতীয় সব ধরনের আমদানি পণ্য বাংলাদেশে প্রবেশ বন্ধ করে দেয়।

বেনাপোল সিএন্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি কামাল উদ্দিন শিমুল জানান, করোনাভাইরাসের অজুহাত দেখিয়ে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ সরকার বাংলাদেশি রফতানি পণ্য গ্রহণ করতে অনীহা প্রকাশ করে। কিন্তু বেনাপোল বন্দর দিয়ে গত ৭ জুন থেকে প্রতিদিন ২-৩শ’ ট্রাক আমদানি পণ্য স্বাস্থ্য বিধি মেনেই বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে।

বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারতের সঙ্গে প্রতি বছর ৩০ হাজার কোটি টাকার আমদানি বাণিজ্য সম্পন্ন হলেও মাত্র ২ হাজার কোটি টাকার রফতানি বাণিজ্য সম্পন্ন হয় ভারতের সঙ্গে। ৩ মাস বন্ধ থাকায় রফতানি বাণিজ্যে ঘাটতি হওয়ার আশঙ্কা করছে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ।
   
বেনাপোল কাস্টমস হাউসের কমিশনার বেলাল হোসেন চৌধুরী জানান, ভারত বাংলাদেশি রফতানি পণ্য গ্রহণ করতে সম্মত হওয়ায় বিকাল থেকে দুই দেশের মধ্যে পুনরায় আমদানি-রফতানি বাণিজ্য শুরু হয়েছে।

বেনাপোল বন্দরের  উপ-পরিচালক আবদুল জলিল জানান, রোববার দুপুরের দিকে দুই দেশের কাস্টমস, বন্দর, ও ব্যবসায়ী সংগঠনগুলোর ফলপ্রসূ আলোচনার পর ভারত বাংলাদেশি রফতানি পণ্য গ্রহণ করতে রাজি হওয়ায় পুনরায় দু'দেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য শুরু হয়েছে। বন্দরের সব কর্মকর্তা ও কর্মচারীকে দ্রুত কাজ করার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

অবশেষে বাংলাদেশি পণ্য নিচ্ছে ভারত

 বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি 
০৫ জুলাই ২০২০, ০৯:১৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দুই দেশের কাস্টমস, বন্দর ও ব্যবসায়ী সংগঠনগুলোর ফলপ্রসূ বৈঠকে ভারত বাংলাদেশি রফতানি পণ্য গ্রহণ করতে রাজি হয়েছে। এতে বেনাপোল বন্দর দিয়ে চালু হয়েছে আমদানি-রফতানি।

রোববার সন্ধ্যা ৭টার দিকে বৃষ্টির মধ্যে ভারত থেকে ৫ ট্রাক পণ্য বাংলাদেশে আমদানি হয়েছে। বাংলাদেশ থেকে ৫ ট্রাক পণ্য রফতানি হয়েছে ভারতে। এতে বেনাপোল বন্দরে ফিরে এসেছে প্রাণ চাঞ্চল্য।

বেনাপোল বন্দর ব্যবহারকারী সংগঠনগুলো বাংলাদেশি রফতানি পণ্য গ্রহণ করতে ভারত রাজি না হওয়ায় গত বুধবার থেকে ভারতীয় সব ধরনের আমদানি পণ্য বাংলাদেশে প্রবেশ বন্ধ করে দেয়।

বেনাপোল সিএন্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি কামাল উদ্দিন শিমুল জানান, করোনাভাইরাসের অজুহাত দেখিয়ে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ সরকার বাংলাদেশি রফতানি পণ্য গ্রহণ করতে অনীহা প্রকাশ করে। কিন্তু বেনাপোল বন্দর দিয়ে গত ৭ জুন থেকে প্রতিদিন ২-৩শ’ ট্রাক আমদানি পণ্য স্বাস্থ্য বিধি মেনেই বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে।

বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারতের সঙ্গে প্রতি বছর ৩০ হাজার কোটি টাকার আমদানি বাণিজ্য সম্পন্ন হলেও মাত্র ২ হাজার কোটি টাকার রফতানি বাণিজ্য সম্পন্ন হয় ভারতের সঙ্গে। ৩ মাস বন্ধ থাকায় রফতানি বাণিজ্যে ঘাটতি হওয়ার আশঙ্কা করছে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ।

বেনাপোল কাস্টমস হাউসের কমিশনার বেলাল হোসেন চৌধুরী জানান, ভারত বাংলাদেশি রফতানি পণ্য গ্রহণ করতে সম্মত হওয়ায় বিকাল থেকে দুই দেশের মধ্যে পুনরায় আমদানি-রফতানি বাণিজ্য শুরু হয়েছে।

বেনাপোল বন্দরের উপ-পরিচালক আবদুল জলিল জানান, রোববার দুপুরের দিকে দুই দেশের কাস্টমস, বন্দর, ও ব্যবসায়ী সংগঠনগুলোর ফলপ্রসূ আলোচনার পর ভারত বাংলাদেশি রফতানি পণ্য গ্রহণ করতে রাজি হওয়ায় পুনরায় দু'দেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য শুরু হয়েছে। বন্দরের সব কর্মকর্তা ও কর্মচারীকে দ্রুত কাজ করার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস