লোহাগড়ায় করোনা উপসর্গে পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যু
jugantor
লোহাগড়ায় করোনা উপসর্গে পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যু

  লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি  

০৭ জুলাই ২০২০, ২০:১৬:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

নড়াইলের লোহাগড়ায় করোনা উপসর্গ নিয়ে মোশারফ হোসেন (৫২) নামে একজন পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুর পর তার শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করেছে স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগ।

মোশারফ হোসেন উপজেলার শালনগর ইউনিয়নের পার শালনগর গ্রামের মৃত আমির হোসেনের ছেলে। তিনি খুলনা পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারের পরিদর্শক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

পারিবারিক সূত্র জানায়, গত ১ জুলাই খুলনা পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারে তিনি করোনা উপসর্গ জ্বর, কাশি, গলাব্যথা, শ্বাসকষ্ট নিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন। খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নমুনা পরীক্ষা করতে দিয়ে তিনি ছুটিতে বাড়ি আসেন।

ওই পুলিশ কর্মকর্তার ছেলে আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, গত ১ জুলাই খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নমুনা পরীক্ষা করার জন্য দেয়া হলেও আজও  সেই নমুনার ফলাফল পাওয়া যায়নি। আমার বাবা বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টিনে চিকিৎসাধীন ছিলেন। সোমবার রাতে উপসর্গ বেড়ে গুরুত্বর অসুস্থ হয়ে পড়েন। এ সময় পরিবারের লোকজন রাত ১১টার দিকে তাকে লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন।

লোহাগড়া থানার ওসি সৈয়দ আশিকুর রহমান বলেন, মোশারফ হোসেন খুলনা  পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারের পরিদর্শক ছিলেন। মঙ্গলবার সকালে ওই কর্মকর্তার শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করেছে স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগ। স্বাস্থ্যবিধি মেনে পারিবারিক কবরস্থানে তার লাশ দাফন করা হয়েছে।

লোহাগড়ায় করোনা উপসর্গে পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যু

 লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি 
০৭ জুলাই ২০২০, ০৮:১৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নড়াইলের লোহাগড়ায় করোনা উপসর্গ নিয়ে মোশারফ হোসেন (৫২) নামে একজন পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুর পর তার শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করেছে স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগ।

মোশারফ হোসেন উপজেলার শালনগর ইউনিয়নের পার শালনগর গ্রামের মৃত আমির হোসেনের ছেলে। তিনি খুলনা পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারের পরিদর্শক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

পারিবারিক সূত্র জানায়, গত ১ জুলাই খুলনা পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারে তিনি করোনা উপসর্গ জ্বর, কাশি, গলাব্যথা, শ্বাসকষ্ট নিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন। খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নমুনা পরীক্ষা করতে দিয়ে তিনি ছুটিতে বাড়ি আসেন।

ওই পুলিশ কর্মকর্তার ছেলে আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, গত ১ জুলাই খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নমুনা পরীক্ষা করার জন্য দেয়া হলেও আজও সেই নমুনার ফলাফল পাওয়া যায়নি। আমার বাবা বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টিনে চিকিৎসাধীন ছিলেন। সোমবার রাতে উপসর্গ বেড়ে গুরুত্বর অসুস্থ হয়ে পড়েন। এ সময় পরিবারের লোকজন রাত ১১টার দিকে তাকে লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন।

লোহাগড়া থানার ওসি সৈয়দ আশিকুর রহমান বলেন, মোশারফ হোসেন খুলনা পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারের পরিদর্শক ছিলেন। মঙ্গলবার সকালে ওই কর্মকর্তার শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করেছে স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগ। স্বাস্থ্যবিধি মেনে পারিবারিক কবরস্থানে তার লাশ দাফন করা হয়েছে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০
২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০