‘করোনা পরিস্থিতি দীর্ঘ হলে বাল্যবিবাহ বাড়বে’

  অনলাইন ডেস্ক ১১ জুলাই ২০২০, ১৯:৩৭:৪৬ | অনলাইন সংস্করণ

ফাইল ছবি

প্রতি বছরের মতো দেশে এবারও বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস পালিত হয়েছে। শনিবার নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে এ দিবসটি পালন করা হয়। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য- ‘মহামারী কোভিড-১৯ কে প্রতিরোধ করি, নারী ও কিশোরীর সুস্বাস্থ্যের অধিকার নিশ্চিত করি।’

দিবসটি উপলক্ষে জনসংখ্যা ও উন্নয়নবিষয়ক বক্তৃতা, অনলাইন সেমিনার ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

অনলাইন সেমিনারে অংশ নিয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, আমাদের দেশে সুন্দর স্বাস্থ্যসেবার কারণে করোনায় (কোভিড-১৯) মৃত্যুর হার অনেক কম। আমরা শক্ত হাতে করোনা মোকাবিলা করতে সক্ষম হয়েছি। তবে দেশে করোনা পরিস্থিতি দীর্ঘ হলে বাল্যবিবাহ বাড়বে। এছাড়া করোনার কারণে দারিদ্রসীমা বৃদ্ধি পাওয়ার শঙ্কাও রয়েছে।

পরিবার পরিকল্পনা অধিদফতর আয়োজিত এক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক আরও বলেন, করোনার কারণে বাংলাদেশের জীবনযাত্রার মান, অর্থনৈতিক ও স্বাস্থ্য সেবা পর্যায়েও মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। করোনায় পরিবার পরিকল্পনার কিছুটা ব্যাহত হয়েছে। প্রতিষ্ঠানিক সন্তন প্রসবের হারও কমেছে। জন্মনিয়ন্ত্রণ সেবা না পেলে অনাকাঙ্ক্ষিত গর্ভধারণ হবে। করোনার কারণে জীবনযাত্রা বিপর্যস্ত হয়েছে। তবে বাংলাদেশে জন্মনিয়ন্ত্রন এবং মা ও শিশু মৃত্যুর হার আগের তুলনায় কমেছে।

জনগণের উদ্দেশে স্বাস্থ্যমন্ত্রী তিনি আরও বলেন, আপনারা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবেন। অবশ্যই মাস্ক পড়বেন। তিন ফুট নয়, অন্তত ছয় ফুট দূরত্ব বজায় রাখবেন। সুষম খাবার খাবেন।
অনুষ্ঠানে শ্রেষ্ঠ পরিবার পরিকল্পনা কর্মী ও শ্রেষ্ঠ সেবা দানকারী প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কার দেয়া হয়। একই সঙ্গে ছয় জন গণমাধ্যমকর্মীকে মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড ও ৪০ জন মিডিয়া কর্মীকে মিডিয়া ফেলোশিপ- ২০২০ দেয়া হয়।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব মো. আলী নূরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আবদুল মান্নান, আইইএম’র পরিচালক ড. আশরাফুন্নেছা, জাতিসংঘ জনসংখ্যা তহবিলের (ইউএনএফপিএ) বাংলাদেশ হেলথ সিস্টেম স্পেশালিস্ট ড. দেওয়ান মো. ইমদাদুল হক প্রমুখ।

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

আরও

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত