করোনার উপসর্গ নিয়ে বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তার মৃত্যু
jugantor
করোনার উপসর্গ নিয়ে বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তার মৃত্যু

  রাজশাহী ব্যুরো  

১৩ জুলাই ২০২০, ০৮:১৬:৩৬  |  অনলাইন সংস্করণ

আসাদুল ইসলাম

করোনার উপসর্গ নিয়ে বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণাগার (বিসিএসআইআর) রাজশাহীর জ্যেষ্ঠ বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা আসাদুল ইসলামের (৫৫) মৃত্যু হয়েছে।

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন রোববার রাত সাড়ে ৮টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

আসাদুল রাজশাহী মহানগরীর বুধপাড়া এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা ছিলেন। তার বাবার নাম মৃত আকরাম হোসেন।

আসাদুল ইসলামের নিকটাত্মীয় নাজমুল হক বলেন, কয়েক দিন ধরে আসাদুলের জ্বর, সর্দি-কাশি ছিল। তাই তিনি বাড়িতেই ছিলেন।

গত বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয় ডায়রিয়া। সেদিন তিনি বাথরুমে পড়ে যান। পরে তাকে দ্রুত রামেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেয়া হয়। এর পর তাকে আইসিইউতে রাখা হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন তিনি মারা যান।

রামেক হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস বলেন, আসাদুল ইসলাম করোনা আক্রান্ত থাকতে পারেন ভেবে আগেই তার নমুনা নেয়া হয়েছে। কিন্তু পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়ার আগেই তিনি মারা যান।

তার মৃত্যুর বিষয়টি কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনকে অবহিত করা হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাদের স্বেচ্ছাসেবকরা মরদেহ দাফন করবে। তবে তিনি করোনা আক্রান্ত ছিলেন কিনা তা নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়ার পরই বলা যাবে?

করোনার উপসর্গ নিয়ে বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তার মৃত্যু

 রাজশাহী ব্যুরো 
১৩ জুলাই ২০২০, ০৮:১৬ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আসাদুল ইসলাম
আসাদুল ইসলাম। ছবি: যুগান্তর

করোনার উপসর্গ নিয়ে বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণাগার  (বিসিএসআইআর) রাজশাহীর জ্যেষ্ঠ বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা আসাদুল ইসলামের (৫৫) মৃত্যু হয়েছে।  

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন রোববার রাত সাড়ে ৮টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

আসাদুল রাজশাহী মহানগরীর বুধপাড়া এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা ছিলেন। তার বাবার নাম মৃত আকরাম হোসেন।

আসাদুল ইসলামের নিকটাত্মীয় নাজমুল হক বলেন, কয়েক দিন ধরে আসাদুলের জ্বর, সর্দি-কাশি ছিল। তাই তিনি বাড়িতেই ছিলেন।

গত বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয় ডায়রিয়া। সেদিন তিনি বাথরুমে পড়ে যান। পরে তাকে দ্রুত রামেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেয়া হয়। এর পর তাকে আইসিইউতে রাখা হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন তিনি মারা যান।

রামেক হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস বলেন, আসাদুল ইসলাম করোনা আক্রান্ত থাকতে পারেন ভেবে আগেই তার নমুনা নেয়া হয়েছে। কিন্তু পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়ার আগেই তিনি মারা যান।

তার মৃত্যুর বিষয়টি কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনকে অবহিত করা হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাদের স্বেচ্ছাসেবকরা মরদেহ দাফন করবে। তবে তিনি করোনা আক্রান্ত ছিলেন কিনা তা নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়ার পরই বলা যাবে?

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস