করোনায় মারা গেলেন পরিযায়ী শ্রমিকদের বাড়ি পৌঁছে দেয়া সেই ম্যাজিস্ট্রেট

  অনলাইন ডেস্ক ১৫ জুলাই ২০২০, ০১:৪৫:১৫ | অনলাইন সংস্করণ

দেবদত্তা রায়

করোনাতেই প্রাণ হারালেন ভারতের বিভিন্ন রাজ্যের পরিযায়ী শ্রমিকদের বাড়ি পৌঁছে দিয়ে প্রশংসা কুড়ানো দেবদত্তা রায় নামের সেই ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট। তার বয়স হয়েছিল ৩৮ বছর।

সোমবার সকালে শ্রীরামপুর শ্রমজীবী কোভিড হাসপাতালে করোনার সঙ্গে লড়াইয়ে দেবদত্তা হার মানেন বলে জানিয়েছে ভারতের সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা

আনন্দবাজার আরও জানায়, পশ্চিমবঙ্গের হুগলি জেলার চন্দননগরের মহকুমাশাসকের দফতরের ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট ছিলেন দেবদত্তা রায়।

লকডাউনের সময় ডানকুনি রেলস্টেশনে আটকেপড়া পরিযায়ী শ্রমিকদের বাড়ি পৌঁছনোর দায়িত্ব নিয়েছিলেন এই ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট।

জানা গেছে, চার বছরের সন্তানকে দেখভালের জন্য গত ১ জুলাই থেকে ছুটিতে ছিলেন দেবদত্তা। এরইমধ্যে তার করোনা উপসর্গ দেখা দেয়। ব্যারাকপুরের বিএন বসু মেমোরিয়াল হাসপাতালে নমুনা সংগ্রহ করে পাঠালে গত বৃহস্পতিবার তার করোনা ‘পজ়িটিভ’ শনাক্ত হয়। এরপর থেকে স্বাস্থ্য দফতরের পরামর্শে উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে ছিলেন। রোববার শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে শ্রীরামপুর শ্রমজীবী হাসপাতালের আইসিইউ-তে ভর্তি করানো হয় দেবদত্তাকে। সেখানেই মারা যান তিনি।

দেবদত্তার মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করে তার পরিবারকে সমবেদনা জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এক চিঠিতে মমতা দেবদত্তাকে করোনা যুদ্ধে ‘সামনের সারিতে থাকা এক সাহসী সেনানী’ হিসাবে উল্লেখ করেছেন।

দেবদত্তার স্বামীও প্রাণঘাতী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

আরও

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত