রিমান্ড শেষে আদালতে ডা. সাবরিনা 
jugantor
রিমান্ড শেষে আদালতে ডা. সাবরিনা 

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২০ জুলাই ২০২০, ১২:১২:৫৩  |  অনলাইন সংস্করণ

রিমান্ড শেষে আদালতে ডা. সাবরিনা 
ফাইল ছবি

করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা না করেই রিপোর্ট দেয়ার অভিযোগে গ্রেফতার জেকেজি হেলথকেয়ারের চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনা এ চৌধুরীকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। 
দুদফা রিমান্ড শেষে সোমবার সকালে তাকে ঢাকা মহানগর মুখ্য হাকিম আদালতে হাজির করা হয়। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবি পুলিশর পরিদর্শক লিয়াকত আলী। তিনি বলেন, মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করা হবে।
এর আগে শুক্রবার তেজগাঁও থানার প্রতারণা মামলায় দ্বিতীয় দফায় তাকে ৫ দিনের রিমান্ডে নেয়ার আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক লিয়াকত আলী। অপরদিকে আসামিপক্ষের আইনজীবী সাইফুল ইসলাম তার রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিনের আবেদন করেন। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম মাসুদুর রহমান তার দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রোববার সেই রিমান্ড শেষ হয়।
করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা না করেই রিপোর্ট ডেলিভারি দেয়ার অভিযোগে ১২ জুলাই দুপুরে সাবরিনাকে তেজগাঁও বিভাগীয় উপ-পুলিশ (ডিসি) কার্যালয়ে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তেজগাঁও থানার করা মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখায় পুলিশ।
রিমান্ড সময়ে সাবরিনা ও ও তার স্বামী আরিফকে মুখোমুখি জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ।

রিমান্ড শেষে আদালতে ডা. সাবরিনা 

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২০ জুলাই ২০২০, ১২:১২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
রিমান্ড শেষে আদালতে ডা. সাবরিনা 
ফাইল ছবি

করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা না করেই রিপোর্ট দেয়ার অভিযোগে গ্রেফতার জেকেজি হেলথকেয়ারের চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনা এ চৌধুরীকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।
দুদফা রিমান্ড শেষে সোমবার সকালে তাকে ঢাকা মহানগর মুখ্য হাকিম আদালতে হাজির করা হয়। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবি পুলিশর পরিদর্শক লিয়াকত আলী। তিনি বলেন, মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করা হবে।
এর আগে শুক্রবার তেজগাঁও থানার প্রতারণা মামলায় দ্বিতীয় দফায় তাকে ৫ দিনের রিমান্ডে নেয়ার আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক লিয়াকত আলী। অপরদিকে আসামিপক্ষের আইনজীবী সাইফুল ইসলাম তার রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিনের আবেদন করেন। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম মাসুদুর রহমান তার দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রোববার সেই রিমান্ড শেষ হয়।
করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা না করেই রিপোর্ট ডেলিভারি দেয়ার অভিযোগে ১২ জুলাই দুপুরে সাবরিনাকে তেজগাঁও বিভাগীয় উপ-পুলিশ (ডিসি) কার্যালয়ে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তেজগাঁও থানার করা মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখায় পুলিশ।
রিমান্ড সময়ে সাবরিনা ও ও তার স্বামী আরিফকে মুখোমুখি জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ।

 

ঘটনাপ্রবাহ : করোনা টেস্ট প্রতারণায় জেকেজি