কানাডায় শুরু হয়েছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ: জাস্টিন ট্রুডো
jugantor
কানাডায় শুরু হয়েছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ: জাস্টিন ট্রুডো

  রাজীব আহসান, কানাডা থেকে  

২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:৫৪:২৪  |  অনলাইন সংস্করণ

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো বলেছেন, দেশটির কয়েকটি স্থানে ইতিমধ্যে কোভিড-১৯ দ্বিতীয় ধাপে সংক্রমণ শুরু হয়ে গেছে। তবে আমাদের এ পরিস্থিতি মোকাবেলার ক্ষমতা রয়েছে।

তিনি স্থানীয় সময় বুধবার সন্ধ্যায় তার ওয়েস্ট ব্লক অফিস থেকে জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে এ কথা বলেন।

জাস্টিন ট্রুডো বলেন, আমাদের চারটি বৃহৎ প্রদেশ ব্রিটিশ কলম্বিয়া, আলবার্টা, অন্টারিও ও কিউবেকে দ্বিতীয় পর্যায়ের কোভিড-১৯ সংক্রমণের হার হঠাৎ করে বেড়ে গেছে। আগস্টের মাঝামাঝি প্রতিদিন গড়ে ৩০০ সংক্রমণ থেকে মঙ্গলবার এক হাজার ২৪৮ জনে দাঁড়িয়েছে।

প্রধান জনস্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. থেরেসা ট্যামকে এখন সংক্রমণ প্রতিরোধের ব্যবস্থা দ্বিগুণ করতে বলেছে সরকার।

অক্টোবরে ও আসন্ন শীত মৌসুমে পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, তা নিয়েই চিন্তায় আছে দেশটির স্বাস্থ্য বিভাগ।

উল্লেখ্য, কানাডায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা হঠাৎ করে উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে। সব কিছু ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হতে থাকলেও করোনার কারণে প্রশাসনকে আবারও ভাবাচ্ছে।

সর্বপ্রথম কানাডায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ে ব্রিটিশ কলম্বিয়ায়। এর পর অন্যান্য প্রদেশে। পুরো কানাডায় শুরু থেকেই নানা ধরনের সতর্কমূলক কর্মসূচি হাতে নেয়া হলেও এর বিস্তার এখনও কমেনি।

প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো তার ভাষণে সবাইকে সতর্ক হওয়ার আহ্বান জানান।

কানাডায় শুরু হয়েছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ: জাস্টিন ট্রুডো

 রাজীব আহসান, কানাডা থেকে 
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:৫৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো বলেছেন, দেশটির কয়েকটি স্থানে ইতিমধ্যে কোভিড-১৯ দ্বিতীয় ধাপে সংক্রমণ শুরু হয়ে গেছে। তবে আমাদের এ পরিস্থিতি মোকাবেলার ক্ষমতা রয়েছে।

তিনি স্থানীয় সময় বুধবার সন্ধ্যায় তার ওয়েস্ট ব্লক অফিস থেকে জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে এ কথা বলেন।

জাস্টিন ট্রুডো বলেন, আমাদের চারটি বৃহৎ প্রদেশ ব্রিটিশ কলম্বিয়া, আলবার্টা, অন্টারিও ও কিউবেকে দ্বিতীয় পর্যায়ের কোভিড-১৯ সংক্রমণের হার হঠাৎ করে বেড়ে গেছে। আগস্টের মাঝামাঝি প্রতিদিন গড়ে ৩০০ সংক্রমণ থেকে মঙ্গলবার এক হাজার ২৪৮ জনে দাঁড়িয়েছে।

প্রধান জনস্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. থেরেসা ট্যামকে এখন সংক্রমণ প্রতিরোধের ব্যবস্থা দ্বিগুণ করতে বলেছে সরকার।

অক্টোবরে ও আসন্ন শীত মৌসুমে পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, তা নিয়েই চিন্তায় আছে দেশটির স্বাস্থ্য বিভাগ।

উল্লেখ্য, কানাডায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা হঠাৎ করে উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে। সব কিছু ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হতে থাকলেও করোনার কারণে প্রশাসনকে আবারও ভাবাচ্ছে।

সর্বপ্রথম কানাডায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ে ব্রিটিশ কলম্বিয়ায়। এর পর অন্যান্য প্রদেশে। পুরো কানাডায় শুরু থেকেই নানা ধরনের সতর্কমূলক কর্মসূচি হাতে নেয়া হলেও এর বিস্তার এখনও কমেনি।

প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো তার ভাষণে সবাইকে সতর্ক হওয়ার আহ্বান জানান।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস