ভারতে একদিনে মৃত্যু সহস্রাধিক, নতুন আক্রান্ত ৬১৮৭১ 
jugantor
ভারতে একদিনে মৃত্যু সহস্রাধিক, নতুন আক্রান্ত ৬১৮৭১ 

  অনলাইন ডেস্ক  

১৮ অক্টোবর ২০২০, ১৩:৫২:০৬  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতে গত ২৪ ঘণ্টা করোনাভাইরাসে ১ হাজার ৩৩ জন প্রাণ হারিয়েছেন। ৩ অক্টোবরের পর প্রায় দুসপ্তাহের ব্যবধানে দেশটিতে মৃত্যুসংখ্যা ফের হাজারের কোটা ছাড়াল।

সব মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত দেশটিতে ১ লাখ ১৪ হাজার ৩১ জন কোভিড রোগীর মৃত্যু হলো।

এই সময়ে দেশটিতে নতুন করে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ৬১ হাজার ৮৭১ জন। বিশ্ব তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে থাকা ভারতে এই মুহূর্তে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৭৪ লাখ ৯৪ হাজার ৫৫১ জন।

এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় ৭২ হাজার ৬১৪ জন সুস্থসহ মোট ৬৫ লাখ ৯৭ হাজার ২০৯ জন রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

রোববার ভারতের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাতে এসব তথ্য জানিয়েছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।

গত দুদিনের তুলনায় করোনা শনাক্তের সংখ্যাটা কম হলেও, যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিলের চেয়ে সংখ্যাটা বেশি। কারণ ওই সময়ে আমেরিকায় ৫৭ হাজার ১৬৪ জন এবং ব্রাজিলে ২৪ হাজার ৬২ জন নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন। ফলে দৈনিক সংক্রমণ বৃদ্ধিতে ভারতের পরিস্থিতি উদ্বেগজনক বলেই মনে করছেন দেশটির বিশেষজ্ঞরা।

করোনায় যে হারে ভারতে দৈনিক সংক্রমণ বেড়েই চলেছে, তাতে খুব শিগগিরই বিশ্ব তালিকায় ভারত শীর্ষে পৌঁছে যাবে বলেও আশঙ্কা তাদের।

মৃত্যুর নিরিখে এই মুহূর্তে বিশ্ব তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে ভারত। সংক্রমণ এবং মৃত্যুর নিরিখে দেশটির মহারাষ্ট্রই এখনও শীর্ষে রয়েছে। সেখানে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১৫ লাখ ৮৬ হাজার ৩২১ জন।

এর মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৩ লাখ ৫৮ হাজার ৬০৬ জন রোগী। করোনায় সেখানে প্রাণ হারিয়েছেন ৪১ হাজার ৯৬৫ জন।

সংক্রমণের নিরিখে তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশ। রাজ্যটিতে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৭ লাখ ৭৯ হাজার ১৪৬। এখনও পর্যন্ত ৬ হাজার ৪০৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

সংক্রমণের নিরিখে অন্ধ্রপ্রদেশের চেয়ে পিছিয়ে থাকলেও, কর্নাটক, তামিলনাড়ু এবং উত্তরপ্রদেশে মৃতের সংখ্যা তুলনায় অনেকটাই বেশি।

সংক্রমণের নিরিখে তৃতীয় স্থানে থেকে কর্নাটকে (৭ লাখ ৫৮ হাজার ৫৭৪) এখনও পর্যন্ত ১০ হাজার ৪২৭ জন কোভিড রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

তালিকায় চতুর্থ স্থানে থাকা তামিলনাড়ুতে (৬ লাখ ৮৩ হাজার ৪৮৬) সংখ্যাটা আরও বেশি, ১০ হাজার ৫৮৬। তালিকায় পঞ্চম স্থানে থাকা উত্তরপ্রদেশে (৪ লাখ ৫২ হাজার ৬৬০) এখনও পর্যন্ত ৬ হাজার ৬২৯ জন প্রাণ হারিয়েছেন।

কেরালায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ৩৪ হাজার ২২৮। সংক্রমণের নিরিখে তালিকায় ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে কেরালা। সেখানে এখনও পর্যন্ত ১ হাজার ১৩৯ জন প্রাণ হারিয়েছেন।

তালিকায় সপ্তম স্থানে থাকা দিল্লিতে (৩ লাখ ২৭ হাজার ৭১৮) মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার ৯৮১ জনের। তালিকায় অষ্টম স্থানে থাকা পশ্চিমবঙ্গে (৩ লাখ ১৭ হাজার ৫৩) মৃতের সংখ্যা ৫ হাজার ৯৯২ জন।

সংক্রমণের নিরিখে তালিকায় নবম স্থানে রয়েছে উড়িষ্যা। সেখানে এখনও পর্যন্ত ২ লাখ ৬৬ হাজার মানুষ করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন। প্রাণ হারিয়েছেন ১ হাজার ১২১ জন।

তালিকায় দশম স্থানে থাকা তেলেঙ্গানায় মৃতের সংখ্যা ১ হাজার ২৭১। মোট সংক্রমিতের সংখ্যা ২ লাখ ২২ হাজার ১১ জন।

ভারতের যে রাজ্যগুলোতে মৃতের সংখ্যা হাজারের বেশি ছাড়িয়েছে, সেগুলো হলো— রাজস্থান (১৭৩৫), মধ্যপ্রদেশ (২৭৫৩), ছত্তীসগঢ় (১৪৩৯), গুজরাট (৩৬২৬), হরিয়ানা (১৬৪০), পাঞ্জাব (৩৯৯৯) এবং জম্মু ও কাশ্মীর (১৩৭২)।

ভারতে একদিনে মৃত্যু সহস্রাধিক, নতুন আক্রান্ত ৬১৮৭১ 

 অনলাইন ডেস্ক 
১৮ অক্টোবর ২০২০, ০১:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতে গত ২৪ ঘণ্টা করোনাভাইরাসে ১ হাজার ৩৩ জন প্রাণ হারিয়েছেন। ৩ অক্টোবরের পর প্রায় দুসপ্তাহের ব্যবধানে দেশটিতে মৃত্যুসংখ্যা ফের হাজারের কোটা ছাড়াল।

সব মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত দেশটিতে ১ লাখ ১৪ হাজার ৩১ জন কোভিড রোগীর মৃত্যু হলো। 

এই সময়ে দেশটিতে নতুন করে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ৬১ হাজার ৮৭১ জন। বিশ্ব তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে থাকা ভারতে এই মুহূর্তে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৭৪ লাখ ৯৪ হাজার ৫৫১ জন। 

এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় ৭২ হাজার ৬১৪ জন সুস্থসহ মোট ৬৫ লাখ ৯৭ হাজার ২০৯ জন রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন।  

রোববার ভারতের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাতে এসব তথ্য জানিয়েছে টাইমস অব ইন্ডিয়া। 

গত দুদিনের তুলনায় করোনা শনাক্তের সংখ্যাটা কম হলেও, যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিলের চেয়ে সংখ্যাটা বেশি। কারণ ওই সময়ে আমেরিকায় ৫৭ হাজার ১৬৪ জন এবং ব্রাজিলে ২৪ হাজার ৬২ জন নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন। ফলে দৈনিক সংক্রমণ বৃদ্ধিতে ভারতের পরিস্থিতি উদ্বেগজনক বলেই মনে করছেন দেশটির বিশেষজ্ঞরা।

করোনায় যে হারে ভারতে দৈনিক সংক্রমণ বেড়েই চলেছে, তাতে খুব শিগগিরই বিশ্ব তালিকায় ভারত শীর্ষে পৌঁছে যাবে বলেও আশঙ্কা তাদের।   

মৃত্যুর নিরিখে এই মুহূর্তে বিশ্ব তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে ভারত। সংক্রমণ এবং মৃত্যুর নিরিখে দেশটির মহারাষ্ট্রই এখনও শীর্ষে রয়েছে। সেখানে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১৫ লাখ ৮৬ হাজার ৩২১ জন। 

এর মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৩ লাখ ৫৮ হাজার ৬০৬ জন রোগী। করোনায় সেখানে প্রাণ হারিয়েছেন ৪১ হাজার ৯৬৫ জন। 

সংক্রমণের নিরিখে তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশ। রাজ্যটিতে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৭ লাখ ৭৯ হাজার ১৪৬। এখনও পর্যন্ত ৬ হাজার ৪০৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। 

সংক্রমণের নিরিখে অন্ধ্রপ্রদেশের চেয়ে পিছিয়ে থাকলেও, কর্নাটক, তামিলনাড়ু এবং উত্তরপ্রদেশে মৃতের সংখ্যা তুলনায় অনেকটাই বেশি। 

সংক্রমণের নিরিখে তৃতীয় স্থানে থেকে কর্নাটকে (৭ লাখ ৫৮ হাজার ৫৭৪) এখনও পর্যন্ত ১০ হাজার ৪২৭ জন কোভিড রোগীর মৃত্যু হয়েছে। 

তালিকায় চতুর্থ স্থানে থাকা তামিলনাড়ুতে (৬ লাখ ৮৩ হাজার ৪৮৬) সংখ্যাটা আরও বেশি, ১০ হাজার ৫৮৬। তালিকায় পঞ্চম স্থানে থাকা উত্তরপ্রদেশে (৪ লাখ ৫২ হাজার ৬৬০) এখনও পর্যন্ত ৬ হাজার ৬২৯ জন প্রাণ হারিয়েছেন।

কেরালায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ৩৪ হাজার ২২৮। সংক্রমণের নিরিখে তালিকায় ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে কেরালা। সেখানে এখনও পর্যন্ত ১ হাজার ১৩৯ জন প্রাণ হারিয়েছেন। 

তালিকায় সপ্তম স্থানে থাকা দিল্লিতে (৩ লাখ ২৭ হাজার ৭১৮) মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার ৯৮১ জনের। তালিকায় অষ্টম স্থানে থাকা পশ্চিমবঙ্গে (৩ লাখ ১৭ হাজার ৫৩) মৃতের সংখ্যা ৫ হাজার ৯৯২ জন।

সংক্রমণের নিরিখে তালিকায় নবম স্থানে রয়েছে উড়িষ্যা। সেখানে এখনও পর্যন্ত ২ লাখ ৬৬ হাজার মানুষ করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন। প্রাণ হারিয়েছেন ১ হাজার ১২১ জন। 

তালিকায় দশম স্থানে থাকা তেলেঙ্গানায় মৃতের সংখ্যা ১ হাজার ২৭১। মোট সংক্রমিতের সংখ্যা ২ লাখ ২২ হাজার ১১ জন।

ভারতের যে রাজ্যগুলোতে মৃতের সংখ্যা হাজারের বেশি ছাড়িয়েছে, সেগুলো হলো— রাজস্থান (১৭৩৫), মধ্যপ্রদেশ (২৭৫৩), ছত্তীসগঢ় (১৪৩৯), গুজরাট (৩৬২৬), হরিয়ানা (১৬৪০), পাঞ্জাব (৩৯৯৯) এবং জম্মু ও কাশ্মীর (১৩৭২)।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস