জার্মানির স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনায় আক্রান্ত
jugantor
জার্মানির স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনায় আক্রান্ত

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২২ অক্টোবর ২০২০, ১৩:৫৪:৩১  |  অনলাইন সংস্করণ

জার্মানির স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনায় আক্রান্ত

কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়েছেন জার্মানির স্বাস্থ্যমন্ত্রী ইয়েন স্পান। স্থানীয় সময় বুধবার বিকাল ৫টায় জার্মান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এ ঘোষণা দেয়। করোনা শনাক্ত হওয়ার পর ইয়েন স্পান হোম কোয়ারেন্টিনে চলে গেছেন। খবর রয়টার্সের।

৪০ বছর বয়স্ক স্পান সর্দি-কাশিতে ভুগছিলেন। পরে করোনা টেস্টের জন্য নমুনা দেন। পরীক্ষায় দেখা যায় তিনি করোনা পজিটিভ।

নিজের করোনা সংক্রমণের কথা চ্যাঞ্চেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেলকে জানিয়েছেন জার্মানির স্বাস্থ্যমন্ত্রী ইয়েন স্পান। চ্যাঞ্চেলর তার দ্রুত আরোগ্য কামনা করে বিশ্রামে থাকার পরামর্শ দেন।

পরে এ টুইটে স্পান লেখেন– আমি বাসায় আইসোলেশনে আছি। আমার সংস্পর্শে যারা এসেছেন, তাদের সবার সুস্থতা কামনা করছি। সবাই দূরত্ব মেনে চলুন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর মুখপাত্র হান্নো কাউটজ গণমাধ্যমকে বলেন, মন্ত্রী বুধবার সকালেও সচিবালয়ে বৈঠকে ছিলেন। সেখানে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করেই উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু বিকালে তার সর্দি দেখা দেয়। পরে পরীক্ষা করে কোভিড-১৯ পজিটিভ পাওয়া যায়। তিনি এখন আইসোলেশনে আছেন।’

এ মুহূর্তে জার্মানিতে প্রতি ১০ লাখ মানুষের মধ্যে ৫১ জন নতুন এ রোগে আক্রান্ত। সংখ্যাটি যখন ৫০ ছিল, তখন থেকেই দেশের সব জায়গায় নতুন করে কড়াকড়ি শুরু হয়েছে।

বিবিসি জানিয়েছে, স্পানের জ্বর এসেছে। ঠাণ্ডাও লেগেছে। মন্ত্রিসভার অনেকের সঙ্গেই মঙ্গল এবং বুধবার তার মিটিং ছিল বলে সবাইকে কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে।

করোনায় মৃত্যু ও আক্রান্তের পরিসংখ্যান রাখা আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান ওয়ার্ল্ডোমিটারসের তথ্যানুযায়ী, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত এ রোগে গোটা পৃথিবীতে ৪ কোটি ১৪ লাখ ৬৯ হাজার ৬২৪ জন শনাক্ত হয়েছেন।

সুস্থ হয়েছেন ৩ কোটি ৯ লাখ ৯ হাজার ৬৪৩ জন। মারা গেছেন ১১ লাখ ৩৬ হাজার ২৬০ জন।

জার্মানিতে ১০ হাজার মানুষ মারা যাওয়ার পাশাপাশি ৩ লাখ ৯১ হাজার ৩৫৫ জন পজিটিভ হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন।


জার্মানির স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনায় আক্রান্ত

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২২ অক্টোবর ২০২০, ০১:৫৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
জার্মানির স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনায় আক্রান্ত
ফাইল ছবি

কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়েছেন জার্মানির স্বাস্থ্যমন্ত্রী ইয়েন স্পান।  স্থানীয় সময় বুধবার বিকাল ৫টায় জার্মান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এ ঘোষণা দেয়। করোনা শনাক্ত হওয়ার পর ইয়েন স্পান হোম কোয়ারেন্টিনে চলে গেছেন। খবর রয়টার্সের।

৪০ বছর বয়স্ক স্পান সর্দি-কাশিতে ভুগছিলেন। পরে করোনা টেস্টের জন্য নমুনা দেন। পরীক্ষায় দেখা যায় তিনি করোনা পজিটিভ।

নিজের করোনা সংক্রমণের কথা চ্যাঞ্চেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেলকে জানিয়েছেন জার্মানির স্বাস্থ্যমন্ত্রী ইয়েন স্পান। চ্যাঞ্চেলর তার দ্রুত আরোগ্য কামনা করে বিশ্রামে থাকার পরামর্শ দেন।

পরে এ টুইটে স্পান লেখেন– আমি বাসায় আইসোলেশনে আছি।  আমার সংস্পর্শে যারা এসেছেন, তাদের সবার সুস্থতা কামনা করছি।  সবাই দূরত্ব মেনে চলুন। 

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর মুখপাত্র হান্নো কাউটজ গণমাধ্যমকে বলেন, মন্ত্রী বুধবার সকালেও সচিবালয়ে বৈঠকে ছিলেন। সেখানে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করেই উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু বিকালে তার সর্দি দেখা দেয়। পরে পরীক্ষা করে কোভিড-১৯ পজিটিভ পাওয়া যায়। তিনি এখন আইসোলেশনে আছেন।’

এ মুহূর্তে জার্মানিতে প্রতি ১০ লাখ মানুষের মধ্যে ৫১ জন নতুন এ রোগে আক্রান্ত। সংখ্যাটি যখন ৫০ ছিল, তখন থেকেই দেশের সব জায়গায় নতুন করে কড়াকড়ি শুরু হয়েছে।

বিবিসি জানিয়েছে, স্পানের জ্বর এসেছে। ঠাণ্ডাও লেগেছে। মন্ত্রিসভার অনেকের সঙ্গেই মঙ্গল এবং বুধবার তার মিটিং ছিল বলে সবাইকে কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে।

করোনায় মৃত্যু ও আক্রান্তের পরিসংখ্যান রাখা আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান ওয়ার্ল্ডোমিটারসের তথ্যানুযায়ী, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত এ রোগে গোটা পৃথিবীতে ৪ কোটি ১৪ লাখ ৬৯ হাজার ৬২৪ জন শনাক্ত হয়েছেন।

সুস্থ হয়েছেন ৩ কোটি ৯ লাখ ৯ হাজার ৬৪৩ জন। মারা গেছেন ১১ লাখ ৩৬ হাজার ২৬০ জন।

জার্মানিতে ১০ হাজার মানুষ মারা যাওয়ার পাশাপাশি ৩ লাখ ৯১ হাজার ৩৫৫ জন পজিটিভ হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন।


 

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস