ইউরোপকে করোনার তৃতীয় ঢেউ নিয়ে ডব্লিউএইচওর সতর্কবার্তা
jugantor
ইউরোপকে করোনার তৃতীয় ঢেউ নিয়ে ডব্লিউএইচওর সতর্কবার্তা

  অনলাইন ডেস্ক  

২৩ নভেম্বর ২০২০, ১০:৫১:২৪  |  অনলাইন সংস্করণ

২০২১ সালের শুরুর দিকে ইউরোপজুড়ে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের তৃতীয় ঢেউ শুরু হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

ডব্লিউএইচওর কোভিড-১৯বিষয়ক বিশেষ দূত ডেভিড নাবারো সুইজারল্যান্ডের সলোথার্নার জেইতুং পত্রিকায় রোববার দেয়া সাক্ষাৎকারে ওই আশঙ্কার কথা জানিয়েছেন। খবর রয়টার্স ও পলিটিকোর।

তিনি বলেন, ইউরোপের দেশগুলো করোনার প্রথম ঢেউ নিয়ন্ত্রণে আসার পর গরমের মাসগুলোতে এই ভাইরাস প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় অবকাঠামো তৈরিতে ব্যর্থ হয়েছে।

এখন দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলা করতে হচ্ছে। যদি তারা প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নির্মাণ না করে, তবে আগামী বছরের শুরুতে তৃতীয় ঢেউ দেখতে হবে।

এ বছরের শুরুর দিকে ইউরোপজুড়ে করোনাভাইরাস সংক্রমণ মারাত্মক রূপ নিয়ে ছড়িয়ে পড়েছিল। বছরের মাঝামাঝিতে সংক্রমণ বিস্তারের গতি হ্রাস পায় এবং গ্রীষ্মে তা বেশ নিয়ন্ত্রণে চলে আসে।

কিন্তু শীতের শুরুতে আবারও সংক্রমণ বাড়তে শুরু করেছে, যেটিকে সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ বলা হচ্ছে। বর্তমানে দৈনিক সংক্রমণ যেভাবে বাড়ছে, তাতে গত শীতের মতো বা তার থেকেও ভয়াবহ পরিস্থিতি আবার ফিরে আসতে পারে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে।

জার্মানি, ফ্রান্স, সুইজারল্যান্ড ও অস্ট্রিয়ায় দৈনিক হাজারও মানুষ নতুন করে এ রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন। তুরস্কে শনিবার পাঁচ হাজার ৫৩২ জন নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন।

এ পরিস্থিতিতেও শীতে তুষারপাত শুরু হওয়ায় সুইজারল্যান্ড পর্যটকদের জন্য তাদের স্কি রিসোর্টগুলো খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে গন্ডোলায় (এক ধরনের নৌকা) চড়তে হলে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

সুইজারল্যান্ড সরকারের স্কি রিসোর্টগুলো খুলে দেয়ার এ সিদ্ধান্ত পছন্দ হয়নি ডব্লিউএইচও দূত নাবারোর। তিনি সেদিকে ইঙ্গিত করে বলেন, সুইজারল্যান্ডে সংক্রমণ এবং মৃত্যু উভয়ই অনেক বেশি হতে পারে।

তবে ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে এশিয়ার দেশগুলোর প্রশংসা করেছেন ডেভিড নাবারো।

ইউরোপকে করোনার তৃতীয় ঢেউ নিয়ে ডব্লিউএইচওর সতর্কবার্তা

 অনলাইন ডেস্ক 
২৩ নভেম্বর ২০২০, ১০:৫১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

২০২১ সালের শুরুর দিকে ইউরোপজুড়ে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের তৃতীয় ঢেউ শুরু হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

ডব্লিউএইচওর কোভিড-১৯বিষয়ক বিশেষ দূত ডেভিড নাবারো সুইজারল্যান্ডের সলোথার্নার জেইতুং পত্রিকায় রোববার দেয়া সাক্ষাৎকারে ওই আশঙ্কার কথা জানিয়েছেন। খবর রয়টার্স ও পলিটিকোর।

তিনি বলেন, ইউরোপের দেশগুলো করোনার প্রথম ঢেউ নিয়ন্ত্রণে আসার পর গরমের মাসগুলোতে এই ভাইরাস প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় অবকাঠামো তৈরিতে ব্যর্থ হয়েছে।

এখন দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলা করতে হচ্ছে। যদি তারা প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নির্মাণ না করে, তবে আগামী বছরের শুরুতে তৃতীয় ঢেউ দেখতে হবে।

এ বছরের শুরুর দিকে ইউরোপজুড়ে করোনাভাইরাস সংক্রমণ মারাত্মক রূপ নিয়ে ছড়িয়ে পড়েছিল। বছরের মাঝামাঝিতে সংক্রমণ বিস্তারের গতি হ্রাস পায় এবং গ্রীষ্মে তা বেশ নিয়ন্ত্রণে চলে আসে।

কিন্তু শীতের শুরুতে আবারও সংক্রমণ বাড়তে শুরু করেছে, যেটিকে সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ বলা হচ্ছে। বর্তমানে দৈনিক সংক্রমণ যেভাবে বাড়ছে, তাতে গত শীতের মতো বা তার থেকেও ভয়াবহ পরিস্থিতি আবার ফিরে আসতে পারে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে।

জার্মানি, ফ্রান্স, সুইজারল্যান্ড ও অস্ট্রিয়ায় দৈনিক হাজারও মানুষ নতুন করে এ রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন। তুরস্কে শনিবার পাঁচ হাজার ৫৩২ জন নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন।

এ পরিস্থিতিতেও শীতে তুষারপাত শুরু হওয়ায় সুইজারল্যান্ড পর্যটকদের জন্য তাদের স্কি রিসোর্টগুলো খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে গন্ডোলায় (এক ধরনের নৌকা) চড়তে হলে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

সুইজারল্যান্ড সরকারের স্কি রিসোর্টগুলো খুলে দেয়ার এ সিদ্ধান্ত পছন্দ হয়নি ডব্লিউএইচও দূত নাবারোর। তিনি সেদিকে ইঙ্গিত করে বলেন, সুইজারল্যান্ডে সংক্রমণ এবং মৃত্যু উভয়ই অনেক বেশি হতে পারে।

তবে ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে এশিয়ার দেশগুলোর প্রশংসা করেছেন ডেভিড নাবারো।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস