করোনাভাইরাসের জন্ম ভারতেই, দাবি চীনের
jugantor
করোনাভাইরাসের জন্ম ভারতেই, দাবি চীনের

  অনলাইন ডেস্ক  

২৯ নভেম্বর ২০২০, ১০:৪১:১৭  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতেই প্রথম প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের উৎপত্তি হয়েছে বলে দাবি করছে চীন।

দেশটির অ্যাকাডেমি অব সায়েন্সেসের এক দল বিজ্ঞানী তাদের এক গবেষণায় এমন দাবি করেছে।

প্রভাবশালী জনস্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সাময়িকী ল্যানসেট চীনা বিজ্ঞানীদের এ গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশ করার প্রস্তুতি নিয়েছে। ইতিমধ্যে ল্যানসেটের প্রাক-প্রকাশনা অনলাইন প্ল্যাটফরমে এই প্রবন্ধ প্রকাশ করা হয়েছে।

চীনা বিজ্ঞানীদের দাবি, ২০১৯ সালের গ্রীষ্মে ভারতেই এ মারণ ভাইরাসের জন্ম হয়। পশুর শরীর থেকে সংক্রমিত পানির মাধ্যমে তা মানুষের শরীরে ঢুকে পড়ে।

তাদের দাবি, এর পর ভারত থেকেই অজানাভাবে চীনের উহানে পৌঁছে যায় সেই ভাইরাস। এবং সেখানেই প্রথম ধরা পড়ে।

এর আগে চীন সরকার করোনার জন্মদাতা হিসেবে ইতালি, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপের দিকেও আঙুল তুলেছিল। যদিও এই দাবির স্বপক্ষে কোনো প্রমাণ দিতে পারেনি বেইজিং।

এবার ভারত-চীন রাজনৈতিক সংঘাতের আবহে নতুন করে করোনাভাইরাস নিয়ে ‘রাজনীতি’ শুরু করেছে বেইজিং।

তাদের গবেষণাপত্রে ‘সাইলোজেনেটিক অ্যানালিসিস’ ব্যবহার করা হয়েছে। এর মাধ্যমে কোভিড ১৯-এর উত্স শনাক্ত করার জন্য কোনো ভাইরাসের কীভাবে পরিবর্তন সাধন হয় তা গবেষণা চালাচ্ছেন চীনের গবেষকরা।

গত বছর চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহর থেকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হয়। গত বছর ৩১ ডিসেম্বর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার চীনের কার্যালয় আনুষ্ঠানিকভাবে নতুন ভাইরাসের তথ্য প্রকাশ করে। শুরুতে এই ভাইরাস চীনের প্রতিবেশী দেশগুলোতে ছড়ায়। একপর্যায়ে তা মহামারী আকারে সারাবিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। সূত্র: ডেইলি মেইল

করোনাভাইরাসের জন্ম ভারতেই, দাবি চীনের

 অনলাইন ডেস্ক 
২৯ নভেম্বর ২০২০, ১০:৪১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতেই প্রথম প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের উৎপত্তি হয়েছে বলে দাবি করছে চীন।

দেশটির অ্যাকাডেমি অব সায়েন্সেসের এক দল বিজ্ঞানী তাদের এক গবেষণায় এমন দাবি করেছে। 

প্রভাবশালী জনস্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সাময়িকী ল্যানসেট চীনা বিজ্ঞানীদের এ গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশ করার প্রস্তুতি নিয়েছে। ইতিমধ্যে ল্যানসেটের প্রাক-প্রকাশনা অনলাইন প্ল্যাটফরমে এই প্রবন্ধ প্রকাশ করা হয়েছে। 

চীনা বিজ্ঞানীদের দাবি, ২০১৯ সালের গ্রীষ্মে ভারতেই এ মারণ ভাইরাসের জন্ম হয়। পশুর শরীর থেকে সংক্রমিত পানির মাধ্যমে তা মানুষের শরীরে ঢুকে পড়ে।

তাদের দাবি, এর পর ভারত থেকেই অজানাভাবে চীনের উহানে পৌঁছে যায় সেই ভাইরাস। এবং সেখানেই প্রথম ধরা পড়ে। 

এর আগে চীন সরকার করোনার জন্মদাতা হিসেবে ইতালি, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপের দিকেও আঙুল তুলেছিল। যদিও এই দাবির স্বপক্ষে কোনো প্রমাণ দিতে পারেনি বেইজিং। 

এবার ভারত-চীন রাজনৈতিক সংঘাতের আবহে নতুন করে করোনাভাইরাস নিয়ে ‘রাজনীতি’ শুরু করেছে বেইজিং। 

তাদের গবেষণাপত্রে ‘সাইলোজেনেটিক অ্যানালিসিস’ ব্যবহার করা হয়েছে। এর মাধ্যমে কোভিড ১৯-এর উত্স শনাক্ত করার জন্য কোনো ভাইরাসের কীভাবে পরিবর্তন সাধন হয় তা গবেষণা চালাচ্ছেন চীনের গবেষকরা। 

গত বছর চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহর থেকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হয়। গত বছর ৩১ ডিসেম্বর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার চীনের কার্যালয় আনুষ্ঠানিকভাবে নতুন ভাইরাসের তথ্য প্রকাশ করে। শুরুতে এই ভাইরাস চীনের প্রতিবেশী দেশগুলোতে ছড়ায়। একপর্যায়ে তা মহামারী আকারে সারাবিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। সূত্র: ডেইলি মেইল

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস