করোনার নতুন ধরন: ব্রিটেনে সব ধরনের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা
jugantor
করোনার নতুন ধরন: ব্রিটেনে সব ধরনের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা

  অনলাইন ডেস্ক  

১৬ জানুয়ারি ২০২১, ১২:৫২:৩৯  |  অনলাইন সংস্করণ

এখন পর্যন্ত শনাক্ত হয়নি—করোনার এমন অজ্ঞাত সব ধরন থেকে সুরক্ষায় সোমবার সকাল থেকে সব ধরনের ভ্রমণপথ বন্ধ করে দিতে যাচ্ছে ব্রিটেন।

এ সময়ে যে কেউ দেশটির উদ্দেশ্যে উড়াল দেয়ার আগে করোনায় নেগেটিভ বলে তাকে প্রমাণ দেখাতে হবে।

দক্ষিণ আমেরিকা ও পর্তুগাল থেকে ব্রিটেনে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা শুক্রবার থেকে কার্যকর হওয়ার মধ্যে নতুন এই বিধিনিষেধ দেয়া হয়েছে।

ব্রাজিলে কোভিড-১৯ রোগের নতুন ধরন শনাক্ত হওয়ার পর উদ্বেগ বেড়ে গেছে। প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলছেন, আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত নতুন এই নীতি কার্যকর করা হবে।

এরমধ্যে কেউ যদি দেশটিতে প্রবেশ করতে চায় তাহলে তাকে কোভিড পরীক্ষার নেগেটিভ সনদ দেখাতে হবে।

করোনাভাইরাসে এখনো পর্যন্ত দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ৮৭ হাজার ২৯১ জন। শুক্রবার সর্বশেষ প্রতিবেদনে জানা যাচ্ছে, ৫৫ হাজার ৭৬১ জনের নতুন করে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে যেটা আগের দিনে ছিল ৪৮৬৮২জন।

এদিকে জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয় বলছে, সারা বিশ্বজুড়ে ইতিমধ্যে ২০ লাখের বেশি মানুষ মারা গেছে মহামারী শুরুর পর থেকে।

ডাউনিং স্ট্রিটে এক সংবাদ সম্মেলনে বরিস জনসন বলেন, এই সময়ে অতিরিক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করা খুব গুরুত্বপূর্ণ। দিনের পর দিন আমরা আমাদের জনগণকে রক্ষা করার জন্য এমন সব পদক্ষেপ নিচ্ছি।

করোনার নতুন ধরন: ব্রিটেনে সব ধরনের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা

 অনলাইন ডেস্ক 
১৬ জানুয়ারি ২০২১, ১২:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

এখন পর্যন্ত শনাক্ত হয়নি—করোনার এমন অজ্ঞাত সব ধরন থেকে সুরক্ষায় সোমবার সকাল থেকে সব ধরনের ভ্রমণপথ বন্ধ করে দিতে যাচ্ছে ব্রিটেন।

এ সময়ে যে কেউ দেশটির উদ্দেশ্যে উড়াল দেয়ার আগে করোনায় নেগেটিভ বলে তাকে প্রমাণ দেখাতে হবে।

দক্ষিণ আমেরিকা ও পর্তুগাল থেকে ব্রিটেনে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা শুক্রবার থেকে কার্যকর হওয়ার মধ্যে নতুন এই বিধিনিষেধ দেয়া হয়েছে।

ব্রাজিলে কোভিড-১৯ রোগের নতুন ধরন শনাক্ত হওয়ার পর উদ্বেগ বেড়ে গেছে। প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলছেন, আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত নতুন এই নীতি কার্যকর করা হবে। 

এরমধ্যে কেউ যদি দেশটিতে প্রবেশ করতে চায় তাহলে তাকে কোভিড পরীক্ষার নেগেটিভ সনদ দেখাতে হবে।

করোনাভাইরাসে এখনো পর্যন্ত দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ৮৭ হাজার ২৯১ জন। শুক্রবার সর্বশেষ প্রতিবেদনে জানা যাচ্ছে, ৫৫ হাজার ৭৬১ জনের নতুন করে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে যেটা আগের দিনে ছিল ৪৮৬৮২জন।

এদিকে জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয় বলছে, সারা বিশ্বজুড়ে ইতিমধ্যে ২০ লাখের বেশি মানুষ মারা গেছে মহামারী শুরুর পর থেকে।

ডাউনিং স্ট্রিটে এক সংবাদ সম্মেলনে বরিস জনসন বলেন, এই সময়ে অতিরিক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করা খুব গুরুত্বপূর্ণ। দিনের পর দিন আমরা আমাদের জনগণকে রক্ষা করার জন্য এমন সব পদক্ষেপ নিচ্ছি।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস