করোনা: মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করলেন বাইডেন
jugantor
করোনা: মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করলেন বাইডেন

  অনলাইন ডেস্ক  

২২ জানুয়ারি ২০২১, ১০:৫০:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনা: মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করলেন বাইডেন

প্রাণঘাতী করোনা মোকাবেলায় মাস্ক পরার নীতি আরও কঠোর করার নির্দেশ দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। শপথ নেওয়ার পর হোয়াইট হাউসে প্রথম পূর্ণ একদিনের দায়িত্ব পালনের সময়ে ১০টি নির্বাহী আদেশে সই করেছেন তিনি।

এতে যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণে আসা লোকদের কোয়ারেন্টিনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বাইডেন বলেন, আগামী মাস নাগাদ করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা চার লাখ থেকে বেড়ে পাঁচ লাখ ছুঁইবে। কাজেই এখন কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া দরকার। বার্তা সংস্থা এএফপি এমন খবর দিয়েছে।

তার পূর্বসূরি ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিভক্ত জমানার পর জনগণের মধ্যে আস্থা ফিরিয়ে আনার প্রতিশ্রুতি দিয়ে তিনি বলেন, আমরা এখন জাতীয় জরুরি অবস্থার মধ্যে রয়েছি। সেভাবেই এ অবস্থাকে বিবেচনা করার সময় এসেছে এখন।

তার প্রশাসনের অধীন বিজ্ঞানীরা রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ ছাড়াই স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারবেন জানিয়ে তিনি বলেন, যখন আমরা ভুল করব, তখন আপনাদের সঙ্গে তা আমরা শুধরে নেওয়ার চেষ্টা করব।

বিমানে ওঠার আগে করোনার নেগেটিভ সনদ লাগবে তো বটেই যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণকারীদের এখন থেকে কোয়ারেন্টিনেও থাকা লাগবে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, ট্রাম্পের অধীন বিদ্যমান বিধিনিষেধকে আরও কঠোর করে দেওয়া হয়েছে।

এ পর্যন্ত হোঁচট খাওয়া টিকাদান কর্মসূচিকে আরও জোরদারের নির্দেশ দিয়েছেন বাইডেন। আর গণপরিবহনে চলাচলে মাস্ক পরা অপরিহার্য করে দিয়েছেন।

বাইডেন বলেন, দুর্ভাগ্যবশত, মাস্ক পরা একটি দলীয় ইস্যুতে পরিণত হয়েছে। কিন্তু এটি এখন দেশপ্রেমিক কাজ।

এর আগে মাস্ক পরার ক্ষেত্রে সাধারণ মানুষকে নিরুৎসাহিত করে গেছেন রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে করোনা ছড়িয়ে পড়ার সময় তিনি নিজেও খুব একটা মাস্ক পরেননি।

ট্রাম্পের মেয়াদের শেষ সময়ে তড়িৎ গতিতেই টিকা উৎপাদিত হয়েছে। কিন্তু টিকাদান কার্যক্রমে ছিল নৈরাজ্যে ভরপুর।

করোনা: মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করলেন বাইডেন

 অনলাইন ডেস্ক 
২২ জানুয়ারি ২০২১, ১০:৫০ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
করোনা: মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করলেন বাইডেন
ছবি: এএফপি

প্রাণঘাতী করোনা মোকাবেলায় মাস্ক পরার নীতি আরও কঠোর করার নির্দেশ দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। শপথ নেওয়ার পর হোয়াইট হাউসে প্রথম পূর্ণ একদিনের দায়িত্ব পালনের সময়ে ১০টি নির্বাহী আদেশে সই করেছেন তিনি।

এতে যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণে আসা লোকদের কোয়ারেন্টিনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বাইডেন বলেন, আগামী মাস নাগাদ করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা চার লাখ থেকে বেড়ে পাঁচ লাখ ছুঁইবে। কাজেই এখন কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া দরকার। বার্তা সংস্থা এএফপি এমন খবর দিয়েছে। 

তার পূর্বসূরি ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিভক্ত জমানার পর জনগণের মধ্যে আস্থা ফিরিয়ে আনার প্রতিশ্রুতি দিয়ে তিনি বলেন, আমরা এখন জাতীয় জরুরি অবস্থার মধ্যে রয়েছি। সেভাবেই এ অবস্থাকে বিবেচনা করার সময় এসেছে এখন।

তার প্রশাসনের অধীন বিজ্ঞানীরা রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ ছাড়াই স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারবেন জানিয়ে তিনি বলেন, যখন আমরা ভুল করব, তখন আপনাদের সঙ্গে তা আমরা শুধরে নেওয়ার চেষ্টা করব।

বিমানে ওঠার আগে করোনার নেগেটিভ সনদ লাগবে তো বটেই যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণকারীদের এখন থেকে কোয়ারেন্টিনেও থাকা লাগবে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, ট্রাম্পের অধীন বিদ্যমান বিধিনিষেধকে আরও কঠোর করে দেওয়া হয়েছে।

এ পর্যন্ত হোঁচট খাওয়া টিকাদান কর্মসূচিকে আরও জোরদারের নির্দেশ দিয়েছেন বাইডেন। আর গণপরিবহনে চলাচলে মাস্ক পরা অপরিহার্য করে দিয়েছেন।

বাইডেন বলেন, দুর্ভাগ্যবশত, মাস্ক পরা একটি দলীয় ইস্যুতে পরিণত হয়েছে। কিন্তু এটি এখন দেশপ্রেমিক কাজ।

এর আগে মাস্ক পরার ক্ষেত্রে সাধারণ মানুষকে নিরুৎসাহিত করে গেছেন রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে করোনা ছড়িয়ে পড়ার সময় তিনি নিজেও খুব একটা মাস্ক পরেননি।

ট্রাম্পের মেয়াদের শেষ সময়ে তড়িৎ গতিতেই টিকা উৎপাদিত হয়েছে। কিন্তু টিকাদান কার্যক্রমে ছিল নৈরাজ্যে ভরপুর।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস