যুক্তরাষ্ট্রে করোনা রোগী দুই কোটি ৫৫ লাখ ছাড়াল
jugantor
যুক্তরাষ্ট্রে করোনা রোগী দুই কোটি ৫৫ লাখ ছাড়াল

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৪ জানুয়ারি ২০২১, ১৪:২৫:০৯  |  অনলাইন সংস্করণ

কোভিড-১৯ মহামারীতে বিপর্যস্ত বিশ্ব। বৈশ্বিক এই মহামারীতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির কোনো কোনো অঞ্চলে করোনার দ্বিতীয় ও তৃতীয় ঢেউ লেগেছে। করোনার নতুন ধরনের শঙ্কায়ও ভুগছেন অনেক মার্কিনি। এরই মধ্যে দেশটিতে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা আড়াই কোটি ছাড়িয়ে গেছে।

শনিবার স্থানীয় সময় বিকালে দেশটি এই আশঙ্কাজনক মাইলফলক পার হয় বলে জানিয়েছে নিউইয়র্ক টাইমস।

বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, এ সংখ্যাটি বিস্ময়কর হলেও প্রকৃত আক্রান্তের সংখ্যা আরও অনেক বেশি হবে; আর এতে ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে দেশটির ব্যর্থতার ব্যাপকতাও প্রতিফলিত হয়েছে।

করোনায় শনাক্ত ও আক্রান্তের পরিসংখ্যান রাখা আন্তর্জাতিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটারসের তথ্যমতে, রোববার বেলা দেড়টা পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন দুই কোটি ৫৫ লাখ ৬৬ হাজার ৭৮৯ জন। আর মৃত্যু হয়েছে চার লাখ ২৭ হাজার ৬৩৫ জন। আর করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন এক কোটি ৫৩ লাখ ৩০ হাজার ৯৪৯ জন।

পৃথিবীতে আর কোনো দেশে এতসংখ্যক আক্রান্ত নেই। মৃত্যুর হিসাবও এত বেশি আর কোনো দেশে নেই। সব মিলিয়ে মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

দেশটির প্রায় প্রতি ১৩ জনের মধ্যে একজন বা জনসংখ্যার সাত দশমিক ছয় শতাংশ করোনাভাইরাস মহামারীতে আক্রান্ত।

আড়াই কোটি আক্রান্তের সংখ্যাকে ‘অবিশ্বাস্য মাপের ট্র্যাজেডি’ বলে বর্ণনা করেছেন জনস হপকিন্স ব্লুমবার্গ স্কুল অব পাবলিক হেলথের গবেষক কেইটলিন রিভার্স। তিনি করোনাভাইরাস মহামারীকে ইতিহাসের অন্যতম মারাত্মক জনস্বাস্থ্য সংকট বলে অভিহিত করেছেন।

গত বছরের জানুয়ারিতে প্রথম যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাস রোগী শনাক্ত হয়েছিল। জানুয়ারির শুরুতে কিছুটা কমলেও তার পর থেকে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে শুরু করে সর্বোচ্চপর্যায়ে দৈনিক তিন লাখেরও বেশি রোগী শনাক্তের রেকর্ড হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রে করোনা রোগী দুই কোটি ৫৫ লাখ ছাড়াল

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৪ জানুয়ারি ২০২১, ০২:২৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কোভিড-১৯ মহামারীতে বিপর্যস্ত বিশ্ব। বৈশ্বিক এই মহামারীতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির কোনো কোনো অঞ্চলে করোনার দ্বিতীয় ও তৃতীয় ঢেউ লেগেছে। করোনার নতুন ধরনের শঙ্কায়ও ভুগছেন অনেক মার্কিনি। এরই মধ্যে দেশটিতে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা আড়াই কোটি ছাড়িয়ে গেছে।  

শনিবার স্থানীয় সময় বিকালে দেশটি এই আশঙ্কাজনক মাইলফলক পার হয় বলে জানিয়েছে নিউইয়র্ক টাইমস।

বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, এ সংখ্যাটি বিস্ময়কর হলেও প্রকৃত আক্রান্তের সংখ্যা আরও অনেক বেশি হবে; আর এতে ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে দেশটির ব্যর্থতার ব্যাপকতাও প্রতিফলিত হয়েছে।

করোনায় শনাক্ত ও আক্রান্তের পরিসংখ্যান রাখা আন্তর্জাতিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটারসের তথ্যমতে, রোববার বেলা দেড়টা পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন দুই কোটি ৫৫ লাখ ৬৬ হাজার ৭৮৯ জন। আর মৃত্যু হয়েছে চার লাখ ২৭ হাজার ৬৩৫ জন। আর করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন এক কোটি ৫৩ লাখ ৩০ হাজার ৯৪৯ জন।

পৃথিবীতে আর কোনো দেশে এতসংখ্যক আক্রান্ত নেই। মৃত্যুর হিসাবও এত বেশি আর কোনো দেশে নেই। সব মিলিয়ে মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। 

দেশটির প্রায় প্রতি ১৩ জনের মধ্যে একজন বা জনসংখ্যার সাত দশমিক ছয় শতাংশ করোনাভাইরাস মহামারীতে আক্রান্ত।  

আড়াই কোটি আক্রান্তের সংখ্যাকে ‘অবিশ্বাস্য মাপের ট্র্যাজেডি’ বলে বর্ণনা করেছেন জনস হপকিন্স ব্লুমবার্গ স্কুল অব পাবলিক হেলথের গবেষক কেইটলিন রিভার্স। তিনি করোনাভাইরাস মহামারীকে ইতিহাসের অন্যতম মারাত্মক জনস্বাস্থ্য সংকট বলে অভিহিত করেছেন।

গত বছরের জানুয়ারিতে প্রথম যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাস রোগী শনাক্ত হয়েছিল। জানুয়ারির শুরুতে কিছুটা কমলেও তার পর থেকে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে শুরু করে সর্বোচ্চপর্যায়ে দৈনিক তিন লাখেরও বেশি রোগী শনাক্তের রেকর্ড হয়েছে।  
 

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১
২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১