'এখনই টিকা নেওয়ার আগ্রহ নেই ৬৮ শতাংশ মানুষের'
jugantor
'এখনই টিকা নেওয়ার আগ্রহ নেই ৬৮ শতাংশ মানুষের'

  অনলাইন ডেস্ক  

২৭ জানুয়ারি ২০২১, ১১:৩৭:১৯  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাস্থ্য অর্থনীতি বিভাগের এক জরিপে দেখা গেছে বাংলাদেশের ৩২ শতাংশ মানুষ টিকা কার্যক্রম শুরুর সঙ্গে সঙ্গে টিকা নিতে আগ্রহী।

এ মুহুর্তে টিকা নিতে চাচ্ছেন না ৬৮ শতাংশ মানুষ। আরও ৫২ শতাংশ মানুষের আগ্রহ আছে, তবে তারা ঠিক এ মূহুর্তেই টিকা নিতে রাজি নন।খবর বিবিসির।

তারা কয়েক সপ্তাহ বা কয়েক মাস পর্যন্ত পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে তবেই টিকা নিতে আগ্রহী বলে জানিয়েছেন গবেষণা দলটির অন্যতম সদস্য ড. শাফিউন নাহিন শিমুল।

দেশের বিভিন্ন জায়গায় প্রায় তিন হাজার ৫০০ লোকের ওপর জরিপ চালিয়ে এ ফল পাওয়া গেছে।

আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে টিকাদান শুরু হবে সারা দেশে। তবে বুধবার আনুষ্ঠানিকভাবে টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ ঢাকার কুর্মিটোলা হাসপাতালে স্বাস্থ্যকর্মীসহ অন্তত ২৫ জনকে টিকা দেওয়ার মাধ্যমে বাংলাদেশে টিকা কার্যক্রম শুরু হচ্ছে।

এর আগে বেসরকারি নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি গবেষণায় উঠে এসেছিল– অন্তত ৭৫ শতাংশ মানুষ টিকা নিতে আগ্রহী।

তবে সেই গবেষণায় বলা হয়েছিল, শহরে বসবাসকারী নাগরিকরা গ্রামের মানুষের চেয়ে টিকা নেওয়ার বিষয়ে বেশি আগ্রহী।

যদিও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণায় এসেছে, শহরের চেয়ে গ্রামের মানুষের মধ্যে আগ্রহ বেশি।

ড. শাফিউন নাহিন শিমুল বলছেন, শহরের চেয়ে গ্রামে সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার কম এবং সে কারণে গুজব ও নেতিবাচক প্রচারণাও সেখানে তুলনামূলক কম বলেই গ্রামের মানুষের মধ্যে টিকা নেওয়ার ক্ষেত্রে আগ্রহ বেশি বলে মনে করছেন তারা।

দেশের আট বিভাগের আট জেলা ও ১৬ উপজেলায় এবং ঢাকার দুটি সিটি কর্পোরেশনে জনসমাগম বেশি এমন জায়গায় প্রায় সাড়ে তিন হাজার মানুষের ওপর পরিচালিত জরিপে পাওয়া গেছে যে, ১৬ শতাংশ মানুষ কখনই টিকা নিতে চান না।

ঢাবির স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইন্সটিটিউটের সহকারী অধ্যাপক ড. নাহিন বলেন, ৮৪ শতাংশ মানুষ টিকা নিতে আগ্রহী, তবে এর মধ্যে ৫২ শতাংশ এখনই না নিয়ে ধীরে ও সুস্থে নিতে আগ্রহী।

গবেষণায় উঠে আসা তথ্য বিশ্লেষণ করে যা পাওয়া গেছে, তা হলো– ঢাকা সিটিতে টিকা নেওয়ার আগ্রহ তুলনামূলক কম। আবার যারা টিকা নিতে ইচ্ছুক তাদের মধ্যে নারীদের সংখ্যা বেশি।

আবার যদিও বিনামূল্যে না দেওয়া হয়, তা হলে নিম্নআয়ের মানুষের মধ্যে টিকা নেওয়ার আগ্রহ তুলনামূলক কম।

এমনকি মোট যে ৮৪ শতাংশ মানুষ টিকা নিতে আগ্রহী তাদের মধ্যে অর্থের বিনিময়ে টিকা নিতে আগ্রহী ৬৬ শতাংশ। আবার বয়স্কদের, বিশেষ করে ষাটের চেয়ে বেশি বয়স যাদের, তাদের মধ্যে টিকা নেওয়ার আগ্রহ কম।

'এখনই টিকা নেওয়ার আগ্রহ নেই ৬৮ শতাংশ মানুষের'

 অনলাইন ডেস্ক 
২৭ জানুয়ারি ২০২১, ১১:৩৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাস্থ্য অর্থনীতি বিভাগের এক জরিপে দেখা গেছে বাংলাদেশের ৩২ শতাংশ মানুষ টিকা কার্যক্রম শুরুর সঙ্গে সঙ্গে টিকা নিতে আগ্রহী।

এ মুহুর্তে টিকা নিতে চাচ্ছেন না ৬৮ শতাংশ মানুষ। আরও ৫২ শতাংশ মানুষের আগ্রহ আছে, তবে তারা ঠিক এ মূহুর্তেই টিকা নিতে রাজি নন।খবর বিবিসির।

তারা কয়েক সপ্তাহ বা কয়েক মাস পর্যন্ত পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে তবেই টিকা নিতে আগ্রহী বলে জানিয়েছেন গবেষণা দলটির অন্যতম সদস্য ড. শাফিউন নাহিন শিমুল।

দেশের বিভিন্ন জায়গায় প্রায় তিন হাজার ৫০০ লোকের ওপর জরিপ চালিয়ে এ ফল পাওয়া গেছে।

আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে টিকাদান শুরু হবে সারা দেশে। তবে বুধবার আনুষ্ঠানিকভাবে টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ ঢাকার কুর্মিটোলা হাসপাতালে স্বাস্থ্যকর্মীসহ অন্তত ২৫ জনকে টিকা দেওয়ার মাধ্যমে বাংলাদেশে টিকা কার্যক্রম শুরু হচ্ছে।

এর আগে বেসরকারি নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি গবেষণায় উঠে এসেছিল– অন্তত ৭৫ শতাংশ মানুষ টিকা নিতে আগ্রহী।

তবে সেই গবেষণায় বলা হয়েছিল, শহরে বসবাসকারী নাগরিকরা গ্রামের মানুষের চেয়ে টিকা নেওয়ার বিষয়ে বেশি আগ্রহী।

যদিও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণায় এসেছে, শহরের চেয়ে গ্রামের মানুষের মধ্যে আগ্রহ বেশি।

ড. শাফিউন নাহিন শিমুল বলছেন, শহরের চেয়ে গ্রামে সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার কম এবং সে কারণে গুজব ও নেতিবাচক প্রচারণাও সেখানে তুলনামূলক কম বলেই গ্রামের মানুষের মধ্যে টিকা নেওয়ার ক্ষেত্রে আগ্রহ বেশি বলে মনে করছেন তারা।

দেশের আট বিভাগের আট জেলা ও ১৬ উপজেলায় এবং ঢাকার দুটি সিটি কর্পোরেশনে জনসমাগম বেশি এমন জায়গায় প্রায় সাড়ে তিন হাজার মানুষের ওপর পরিচালিত জরিপে পাওয়া গেছে যে, ১৬ শতাংশ মানুষ কখনই টিকা নিতে চান না।

ঢাবির স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইন্সটিটিউটের সহকারী অধ্যাপক ড. নাহিন বলেন,  ৮৪ শতাংশ মানুষ টিকা নিতে আগ্রহী, তবে এর মধ্যে ৫২ শতাংশ এখনই না নিয়ে ধীরে ও সুস্থে নিতে আগ্রহী।

গবেষণায় উঠে আসা তথ্য বিশ্লেষণ করে যা পাওয়া গেছে, তা হলো– ঢাকা সিটিতে টিকা নেওয়ার আগ্রহ তুলনামূলক কম। আবার যারা টিকা নিতে ইচ্ছুক তাদের মধ্যে নারীদের সংখ্যা বেশি।

আবার যদিও বিনামূল্যে না দেওয়া হয়, তা হলে নিম্নআয়ের মানুষের মধ্যে টিকা নেওয়ার আগ্রহ তুলনামূলক কম।

এমনকি মোট যে ৮৪ শতাংশ মানুষ টিকা নিতে আগ্রহী তাদের মধ্যে অর্থের বিনিময়ে টিকা নিতে আগ্রহী ৬৬ শতাংশ। আবার বয়স্কদের, বিশেষ করে ষাটের চেয়ে বেশি বয়স যাদের, তাদের মধ্যে টিকা নেওয়ার আগ্রহ কম।

 

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১
২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১
২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১